০৩:২৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

‘এ দেশের মাটি সোনার চেয়ে খাটি’

মাটি ও পানি, জীবনের উৎস। এই প্রতিপাদ্যে জামালপুরে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত হয়েছে।

টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট দুইয়ের আওতায় ২০৩০ সালের মধ্যে কৃষির উৎপাদনশীলতা দ্বিগুণ লক্ষ নির্ধারণ করেছে সরকার। তাই টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদনের লক্ষ্য অর্জনে সীমিত মৃত্তিকা সম্পদের টেকসই উন্নয়নের কোন বিকল্প নাই।
মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে শহরের ফৌজদারি মোড় থেকে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহর প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রা শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট জামালপুর এর আয়োজনে ও জেলা প্রশাসক মো: শফিউর রহমান এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ আনোয়ার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মোক্তার হোসেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জাকিয়া সুলতানাসহ কৃষি, স্বাস্থ্য, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের বিভিন্ন কর্মকর্তা গন আলোচনায় অংশ নেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য ও প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জামালপুর মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আ, খা, ম, মোর্শেদুর রহমান। এ সময় বক্তারা বলেন মৃত্তিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ। এই সম্পদ ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে একদিকে মাটির পুষ্টি উপাদানের মাত্রা কমে যাচ্ছে, অন্যদিকে দেশের মাটির অবক্ষয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই আমাদের মৃত্তিকা সংরক্ষণের ওপর গুরুত্ব প্রদান করতে হবে।

এ সময় জেলা প্রশাসক আরো বলেন, মাটিকে আমাদের সম্পদে পরিণত করতে হবে, তবেই দেশ স্বয়ংসম্পন্ন হবে। সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে মাটির সুস্বাস্থ্য বজায় রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এদেশের মাটি কে সোনার চেয়ে খাঁটি বলা হয় অথচ সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবে এই মাটি আজ হুমকির সম্মুখীন। তাই আমাদের উচিত মাটি পরীক্ষা করে জমিতে সুষম মাত্রায় সার প্রয়োগ করা। যাতে মাটির উর্বরতা ধরে রাখা যায় এবং ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি পায়।

বিজনেস বাংলাদেশ/bh

 

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

‘এ দেশের মাটি সোনার চেয়ে খাটি’

প্রকাশিত : ০৫:১৮:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩

মাটি ও পানি, জীবনের উৎস। এই প্রতিপাদ্যে জামালপুরে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত হয়েছে।

টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট দুইয়ের আওতায় ২০৩০ সালের মধ্যে কৃষির উৎপাদনশীলতা দ্বিগুণ লক্ষ নির্ধারণ করেছে সরকার। তাই টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদনের লক্ষ্য অর্জনে সীমিত মৃত্তিকা সম্পদের টেকসই উন্নয়নের কোন বিকল্প নাই।
মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে শহরের ফৌজদারি মোড় থেকে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহর প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রা শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট জামালপুর এর আয়োজনে ও জেলা প্রশাসক মো: শফিউর রহমান এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ আনোয়ার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মোক্তার হোসেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জাকিয়া সুলতানাসহ কৃষি, স্বাস্থ্য, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের বিভিন্ন কর্মকর্তা গন আলোচনায় অংশ নেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য ও প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জামালপুর মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আ, খা, ম, মোর্শেদুর রহমান। এ সময় বক্তারা বলেন মৃত্তিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ। এই সম্পদ ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে একদিকে মাটির পুষ্টি উপাদানের মাত্রা কমে যাচ্ছে, অন্যদিকে দেশের মাটির অবক্ষয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই আমাদের মৃত্তিকা সংরক্ষণের ওপর গুরুত্ব প্রদান করতে হবে।

এ সময় জেলা প্রশাসক আরো বলেন, মাটিকে আমাদের সম্পদে পরিণত করতে হবে, তবেই দেশ স্বয়ংসম্পন্ন হবে। সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে মাটির সুস্বাস্থ্য বজায় রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এদেশের মাটি কে সোনার চেয়ে খাঁটি বলা হয় অথচ সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার অভাবে এই মাটি আজ হুমকির সম্মুখীন। তাই আমাদের উচিত মাটি পরীক্ষা করে জমিতে সুষম মাত্রায় সার প্রয়োগ করা। যাতে মাটির উর্বরতা ধরে রাখা যায় এবং ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি পায়।

বিজনেস বাংলাদেশ/bh