০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪

মাদকসেবীকে ঘৃনা নয়: এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী

বর্তমান সরকার মাদক অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। মাদক ও সন্ত্রাসকে সম্মিলিতভাবে ‘না’ বলতে হবে। মাদক সেবীকে ঘৃনা না করে পরিবারিক ও সামাজিকভাবে আদর-ভালবাসা দিয়ে সুস্থ্য ও শান্তিময় জীবনধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে। বুধবার (৭ নভেম্বর) রাজধানীর শাহবাগে পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে সীমান্ত কালচারাল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মাদক ও সন্ত্রাস বিষয়ক এক আলোচনা সভা ও গুণীজন পদক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এলজিআরডি ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মোঃমসিউর রহমান রাঙ্গাঁ এসব কথা বলেন।

স্বাধীনতা লীগের সভাপতি ডাঃ খন্দকার মোঃইমদাদুল হক সেলিমের সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইনবিদ ড. মোঃ এনামুল হক, বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী আব্দুস সাত্তার, ড. মোঃরফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা এইচ এম মেহেদী হাসান ও ফাউন্ডেশনের পরিচালকমোঃ খলিলুর রহমান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, টেকসই উন্নয়নের অন্যতম প্রধান শর্ত দেশকে সন্ত্রাসও মাদকমুক্ত করা। গত ১ বছরে ১০ হাজারের বেশি মাদক অপরাধীকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে। এ সময় মাদকাসক্তদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে চিকিৎসা ও পুনর্বাসনে অর্ধশতাধিক নতুন মাদকাসক্তি নিরাময়কেন্দ্র নির্মাণের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে।

তিনি সীমান্ত কালচারাল ফাউন্ডেশন কর্তৃক মাদক ও সন্ত্রাস বিষয়ে গণসচেতনামূলক কার্যক্রম গ্রহণে সাধুবাদ জানান। সংগঠনটির কার্যক্রম আরো এগিয়ে নিতে সার্বিক সহায়তার আশ্বাস দেন তিনি। পরে প্রতিমন্ত্রী আয়োজক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সমাজে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখা গুণীজনদের মাঝে সম্মাননা পদক তুলে দেন এবং সাংস্কৃতিকঅনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

মাদকসেবীকে ঘৃনা নয়: এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত : ০৭:৪২:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০১৭

বর্তমান সরকার মাদক অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। মাদক ও সন্ত্রাসকে সম্মিলিতভাবে ‘না’ বলতে হবে। মাদক সেবীকে ঘৃনা না করে পরিবারিক ও সামাজিকভাবে আদর-ভালবাসা দিয়ে সুস্থ্য ও শান্তিময় জীবনধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে। বুধবার (৭ নভেম্বর) রাজধানীর শাহবাগে পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে সীমান্ত কালচারাল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মাদক ও সন্ত্রাস বিষয়ক এক আলোচনা সভা ও গুণীজন পদক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এলজিআরডি ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মোঃমসিউর রহমান রাঙ্গাঁ এসব কথা বলেন।

স্বাধীনতা লীগের সভাপতি ডাঃ খন্দকার মোঃইমদাদুল হক সেলিমের সভাপতিত্বে এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইনবিদ ড. মোঃ এনামুল হক, বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী আব্দুস সাত্তার, ড. মোঃরফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা এইচ এম মেহেদী হাসান ও ফাউন্ডেশনের পরিচালকমোঃ খলিলুর রহমান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, টেকসই উন্নয়নের অন্যতম প্রধান শর্ত দেশকে সন্ত্রাসও মাদকমুক্ত করা। গত ১ বছরে ১০ হাজারের বেশি মাদক অপরাধীকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে। এ সময় মাদকাসক্তদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে চিকিৎসা ও পুনর্বাসনে অর্ধশতাধিক নতুন মাদকাসক্তি নিরাময়কেন্দ্র নির্মাণের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে।

তিনি সীমান্ত কালচারাল ফাউন্ডেশন কর্তৃক মাদক ও সন্ত্রাস বিষয়ে গণসচেতনামূলক কার্যক্রম গ্রহণে সাধুবাদ জানান। সংগঠনটির কার্যক্রম আরো এগিয়ে নিতে সার্বিক সহায়তার আশ্বাস দেন তিনি। পরে প্রতিমন্ত্রী আয়োজক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সমাজে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখা গুণীজনদের মাঝে সম্মাননা পদক তুলে দেন এবং সাংস্কৃতিকঅনুষ্ঠান উপভোগ করেন।