১১:৩১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪

গ্রেফতার হচ্ছেনে ভোলে বাবা!!

১২১ জনের ঘটনায় গ্রেফতার হতে পারেন কথিত ধর্মগুরু নারায়ণ সরকার হরি ওরফে ‘ভোলে বাবা’।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ধর্মীয় সভায় পদদলিত হয়ে ১২১ জনের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার হতে পারেন কথিত ধর্মগুরু নারায়ণ সরকার হরি ওরফে ‘ভোলে বাবা’। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

পুলিশের এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের একটি দল হাথরাস জেলার সিকান্দাররাউয়ের ঘটনাস্থলে গিয়েছে। অন্য একটি দল গিয়েছে ‘বাবা’ নারায়ণ হরির মূল আশ্রম মইনপুরির রাম কুটির চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ভবনে। পুলিশের ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট সুনিল কুমার বলেন,আমরা ভবনের ভেতরে ‘বাবাজি’ কে খুঁজে পাইনি। তিনি সেখানে ছিলেন না।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের তথ্যানুসারে, মঙ্গলবার (২ জুলাই) হাথরাস জেলায় ‘সৎসঙ্গে’ (প্রার্থনা সভা) ভক্তদের উদ্দেশে বক্তব্য দিচ্ছিলেন কথিত ধর্মগুরু নারায়ণ সরকার হরি। সেখানেই পদদলিত হয়ে ১২১ জনের মৃত্যু হয়। মৃতদের মধ্যে শতাধিকই নারী। এছাড়া কয়েকটি শিশুও রয়েছে।

স্থানীয় এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, খুব ছোট একটি জায়গায় এ ‘সৎসঙ্গর আয়োজন করা হয়েছিল। অল্প জায়গায় বহু মানুষের ভিড়ে ‘দমবন্ধকর’ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, অনুষ্ঠানস্থলে নিঃশ্বাস নিতে না পারায় ‘সৎসঙ্গে’ উপস্থিত লোকজনের মধ্যে অস্বস্তি তৈরি হয়েছিল। এরপর লোকজন সেখান থেকে সরে যেতে তাড়াহুড়ো শুরু করলে পদদলিত হওয়ার ঘটনা ঘটে।

ট্যাগ :

গ্রেফতার হচ্ছেনে ভোলে বাবা!!

প্রকাশিত : ০১:২২:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ধর্মীয় সভায় পদদলিত হয়ে ১২১ জনের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার হতে পারেন কথিত ধর্মগুরু নারায়ণ সরকার হরি ওরফে ‘ভোলে বাবা’। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

পুলিশের এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের একটি দল হাথরাস জেলার সিকান্দাররাউয়ের ঘটনাস্থলে গিয়েছে। অন্য একটি দল গিয়েছে ‘বাবা’ নারায়ণ হরির মূল আশ্রম মইনপুরির রাম কুটির চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ভবনে। পুলিশের ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট সুনিল কুমার বলেন,আমরা ভবনের ভেতরে ‘বাবাজি’ কে খুঁজে পাইনি। তিনি সেখানে ছিলেন না।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের তথ্যানুসারে, মঙ্গলবার (২ জুলাই) হাথরাস জেলায় ‘সৎসঙ্গে’ (প্রার্থনা সভা) ভক্তদের উদ্দেশে বক্তব্য দিচ্ছিলেন কথিত ধর্মগুরু নারায়ণ সরকার হরি। সেখানেই পদদলিত হয়ে ১২১ জনের মৃত্যু হয়। মৃতদের মধ্যে শতাধিকই নারী। এছাড়া কয়েকটি শিশুও রয়েছে।

স্থানীয় এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, খুব ছোট একটি জায়গায় এ ‘সৎসঙ্গর আয়োজন করা হয়েছিল। অল্প জায়গায় বহু মানুষের ভিড়ে ‘দমবন্ধকর’ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, অনুষ্ঠানস্থলে নিঃশ্বাস নিতে না পারায় ‘সৎসঙ্গে’ উপস্থিত লোকজনের মধ্যে অস্বস্তি তৈরি হয়েছিল। এরপর লোকজন সেখান থেকে সরে যেতে তাড়াহুড়ো শুরু করলে পদদলিত হওয়ার ঘটনা ঘটে।