০৪:৫৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পাবনায়, বিপর্যস্ত জনজীবন

তীব্র তাপপ্রবাহে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে পাবনার জনজীবন। ঘরে বাইরে কোথাও মিলছে না স্বস্তি। মাথার ওপর ফ্যান ঘুরলেও শরীর শীতল হচ্ছে না। বুধবার (১৭ এপ্রিল) বিকেল তিনটায় পাবনার ঈশ্বরদীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ মৌসুমে এটাই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

ঈশ্বরদী আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়া পর্যবেক্ষক নাজমুল হক জানান, বর্তমানে ঈশ্বরদীর উপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বইছে। তীব্র তাপের কারণে সূর্যের আলো তির্যকভাবে শরীরে অনুভূত হচ্ছে। এছাড়া বর্তমানে আকাশে মেঘের উপস্থিতি খুবই কম এবং বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি হওয়ায় ঈশ্বরদীতে তীব্র তাপ অনুভূত হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, ৪০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ঈশ্বরদীর এ মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। এখন পর্যন্ত এটি বছরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা হিসেবে রেকর্ড হয়েছে। গত বছর ১৭ এপ্রিল ঈশ্বরদীতে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়া পর্যন্ত তাপমাত্রা কমার সম্ভাবনা নেই।

ঈশ্বরদী আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার সূত্রে জানা গেছে, পর্যাপ্ত বৃষ্টি না হওয়ায় এপ্রিল মাসের শুরু থেকেই তাপমাত্রা হালকা, মাঝারি ও তীব্র হচ্ছে। প্রতিদিনই ঈশ্বরদীর তাপমাত্রা বাড়ছে। এর মধ্যে তীব্র গরম উপেক্ষা করে শ্রমজীবী খেটে খাওয়া মানুষ কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, এপ্রিল মাস জুড়েই গরমের তীব্রতা রয়েছে। তবে এপ্রিলের ১২ তারিখ থেকে তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠানামা করছে ‌এবং তা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। গত ১২ এপ্রিল ঈশ্বরদীর তাপমাত্রা ছিল ৩৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পরদিন ১৩ এপ্রিল তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি, ১৪ এপ্রিল ৩৯ ডিগ্রি, ১৫ এপ্রিল ৩৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি, ১৬ এপ্রিল ৩৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি এবং বুধবার ১৭ এপ্রিল তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা তীব্র তাপপ্রবাহ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বিজনেস বাংলাদেশ/Bh

ট্যাগ :

মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা পাবনায়, বিপর্যস্ত জনজীবন

প্রকাশিত : ০৮:৪০:০৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

তীব্র তাপপ্রবাহে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে পাবনার জনজীবন। ঘরে বাইরে কোথাও মিলছে না স্বস্তি। মাথার ওপর ফ্যান ঘুরলেও শরীর শীতল হচ্ছে না। বুধবার (১৭ এপ্রিল) বিকেল তিনটায় পাবনার ঈশ্বরদীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ মৌসুমে এটাই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

ঈশ্বরদী আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়া পর্যবেক্ষক নাজমুল হক জানান, বর্তমানে ঈশ্বরদীর উপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বইছে। তীব্র তাপের কারণে সূর্যের আলো তির্যকভাবে শরীরে অনুভূত হচ্ছে। এছাড়া বর্তমানে আকাশে মেঘের উপস্থিতি খুবই কম এবং বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি হওয়ায় ঈশ্বরদীতে তীব্র তাপ অনুভূত হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, ৪০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ঈশ্বরদীর এ মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। এখন পর্যন্ত এটি বছরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা হিসেবে রেকর্ড হয়েছে। গত বছর ১৭ এপ্রিল ঈশ্বরদীতে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়া পর্যন্ত তাপমাত্রা কমার সম্ভাবনা নেই।

ঈশ্বরদী আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার সূত্রে জানা গেছে, পর্যাপ্ত বৃষ্টি না হওয়ায় এপ্রিল মাসের শুরু থেকেই তাপমাত্রা হালকা, মাঝারি ও তীব্র হচ্ছে। প্রতিদিনই ঈশ্বরদীর তাপমাত্রা বাড়ছে। এর মধ্যে তীব্র গরম উপেক্ষা করে শ্রমজীবী খেটে খাওয়া মানুষ কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, এপ্রিল মাস জুড়েই গরমের তীব্রতা রয়েছে। তবে এপ্রিলের ১২ তারিখ থেকে তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠানামা করছে ‌এবং তা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। গত ১২ এপ্রিল ঈশ্বরদীর তাপমাত্রা ছিল ৩৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পরদিন ১৩ এপ্রিল তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি, ১৪ এপ্রিল ৩৯ ডিগ্রি, ১৫ এপ্রিল ৩৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি, ১৬ এপ্রিল ৩৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি এবং বুধবার ১৭ এপ্রিল তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা তীব্র তাপপ্রবাহ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বিজনেস বাংলাদেশ/Bh