০৩:২৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

আমিরাতের গোল্ডেন ভিসা পাচ্ছেন শাকিব খান

শাকিব খান অভিনীত ‘রাজকুমার’ সিনেমা দেশ মাতিয়ে এবার যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি ও অস্ট্রেলিয়া যখন মাতাচ্ছে ঠিক এই সময়ে নতুন আরো একটি সুখবর এলো শাকিব খানের কাছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সম্মানজনক গোল্ডেন ভিসা পাচ্ছেন শাকিব। শনিবার (৪ মে) বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নির্মাতা-প্রযোজক অনন্য মামুন। যিনি শাকিবকে নিয়ে আমিরাত তথা দুবাইতে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন।

মামুন জানান, ইতোমধ্যে আরব আমিরাতের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় থেকে ক্রিয়েটিভ কালচার ক্যাটাগরিতে গোল্ডেন ভিসার রিকমেন্ডেশন পেয়েছেন শাকিব। এখন কেবল সেটা রিসিভ করে আনা বাকি।

অনন্য মামুনের ভাষ্য, ‘এত দিন শাকিব ভাই ট্যুরিস্ট ভিসায় আমিরাতে যেতেন। তবে আগামীতে তিনি গোল্ডেন ভিসায় যাবেন। রিকমেন্ডেশন চলে এসেছে। এখন শুধু রিসিভ করা বাকি। এটা সত্যিই একটা বড় ব্যাপার। ভারতীয় সিনেমার বড় তারকারা এই ভিসা পেয়েছেন। অথচ আমি যখন আমিরাতের মন্ত্রণালয়ে গিয়েছিলাম, তারা এটাও জানে না যে, আমাদের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি আছে! যাক, শেষ পর্যন্ত যাচাই-বাছাই করে তারা শাকিব ভাইকে গোল্ডেন ভিসা দিচ্ছে; এটাই আনন্দের।’

এই ফাঁকে বলা দরকার, ব্যবসা ও এ ক্যাটাগরি চাকরি ছাড়া কেবল সংস্কৃতি অঙ্গনের মেধাবী তারকাদের বিনামূল্যে গোল্ডেন ভিসা দেওয়া হয়। দীর্ঘ মেয়াদী এই ভিসার মাধ্যমে আমিরাতে গিয়ে থাকা, ভ্রমণ, কাজ এমনকি পড়াশোনাও করা যায়। বলিউডের শাহরুখ খান, সঞ্জয় দত্তসহ অনেক তারকা গোল্ডেন ভিসা পেয়েছেন। তবে বাংলাদেশি হিসেবে শাকিবই প্রথম এমন সুযোগ পাচ্ছেন দেশটির পক্ষে।

শাকিবকে নিয়ে ‘দরদ’ নামে নতুন একটি সিনেমা বানিয়েছেন অনন্য মামুন। গত ২৮ মার্চ নায়কের জন্মদিনে দুবাইতে ছবিটির ব্যতিক্রম প্রচারণা চালিয়েছিলেন তিনি। আগামীতে আরও চমক অপেক্ষা করছে বলেও জানালেন মামুন। তবে ছবিটি কবে নাগাদ মুক্তি পাবে, সেটা খোলাসা করলেন না।

উল্লেখ্য, ‘দরদ’কে বলা হচ্ছে প্যান-ইন্ডিয়ান বাংলাদেশি ছবি। এটি বাংলার পাশাপাশি হিন্দি, তামিল, তেলুগু, কন্নড় ও মালায়লাম ভাষায় মুক্তি পাবে বলেও জানিয়েছেন নির্মাতা মামুন। ছবিতে শাকিবের নায়িকা বলিউডের সোনাল চৌহান। এছাড়াও থাকছেন কলকাতার পায়েল সরকার, রাজেশ শর্মা, রাহুল দেব-সহ অনেকে।

বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ

ট্যাগ :

আমিরাতের গোল্ডেন ভিসা পাচ্ছেন শাকিব খান

প্রকাশিত : ০৫:২৫:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ মে ২০২৪

শাকিব খান অভিনীত ‘রাজকুমার’ সিনেমা দেশ মাতিয়ে এবার যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি ও অস্ট্রেলিয়া যখন মাতাচ্ছে ঠিক এই সময়ে নতুন আরো একটি সুখবর এলো শাকিব খানের কাছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সম্মানজনক গোল্ডেন ভিসা পাচ্ছেন শাকিব। শনিবার (৪ মে) বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নির্মাতা-প্রযোজক অনন্য মামুন। যিনি শাকিবকে নিয়ে আমিরাত তথা দুবাইতে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন।

মামুন জানান, ইতোমধ্যে আরব আমিরাতের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় থেকে ক্রিয়েটিভ কালচার ক্যাটাগরিতে গোল্ডেন ভিসার রিকমেন্ডেশন পেয়েছেন শাকিব। এখন কেবল সেটা রিসিভ করে আনা বাকি।

অনন্য মামুনের ভাষ্য, ‘এত দিন শাকিব ভাই ট্যুরিস্ট ভিসায় আমিরাতে যেতেন। তবে আগামীতে তিনি গোল্ডেন ভিসায় যাবেন। রিকমেন্ডেশন চলে এসেছে। এখন শুধু রিসিভ করা বাকি। এটা সত্যিই একটা বড় ব্যাপার। ভারতীয় সিনেমার বড় তারকারা এই ভিসা পেয়েছেন। অথচ আমি যখন আমিরাতের মন্ত্রণালয়ে গিয়েছিলাম, তারা এটাও জানে না যে, আমাদের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি আছে! যাক, শেষ পর্যন্ত যাচাই-বাছাই করে তারা শাকিব ভাইকে গোল্ডেন ভিসা দিচ্ছে; এটাই আনন্দের।’

এই ফাঁকে বলা দরকার, ব্যবসা ও এ ক্যাটাগরি চাকরি ছাড়া কেবল সংস্কৃতি অঙ্গনের মেধাবী তারকাদের বিনামূল্যে গোল্ডেন ভিসা দেওয়া হয়। দীর্ঘ মেয়াদী এই ভিসার মাধ্যমে আমিরাতে গিয়ে থাকা, ভ্রমণ, কাজ এমনকি পড়াশোনাও করা যায়। বলিউডের শাহরুখ খান, সঞ্জয় দত্তসহ অনেক তারকা গোল্ডেন ভিসা পেয়েছেন। তবে বাংলাদেশি হিসেবে শাকিবই প্রথম এমন সুযোগ পাচ্ছেন দেশটির পক্ষে।

শাকিবকে নিয়ে ‘দরদ’ নামে নতুন একটি সিনেমা বানিয়েছেন অনন্য মামুন। গত ২৮ মার্চ নায়কের জন্মদিনে দুবাইতে ছবিটির ব্যতিক্রম প্রচারণা চালিয়েছিলেন তিনি। আগামীতে আরও চমক অপেক্ষা করছে বলেও জানালেন মামুন। তবে ছবিটি কবে নাগাদ মুক্তি পাবে, সেটা খোলাসা করলেন না।

উল্লেখ্য, ‘দরদ’কে বলা হচ্ছে প্যান-ইন্ডিয়ান বাংলাদেশি ছবি। এটি বাংলার পাশাপাশি হিন্দি, তামিল, তেলুগু, কন্নড় ও মালায়লাম ভাষায় মুক্তি পাবে বলেও জানিয়েছেন নির্মাতা মামুন। ছবিতে শাকিবের নায়িকা বলিউডের সোনাল চৌহান। এছাড়াও থাকছেন কলকাতার পায়েল সরকার, রাজেশ শর্মা, রাহুল দেব-সহ অনেকে।

বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ