০৫:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

ব্রাজিলে বন্যায় নিহত বেড়ে ১০০, নিখোঁজ ১২৬

ব্রাজিলের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ রিও গ্র্যান্ডে দো সুলেতে ভয়াবহ বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১০০ তে পৌঁছেছে। এছাড়া এখন পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছেন ১২৬ জন। নিখোঁজদের সন্ধানে উদ্ধারকর্মীরা অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে দেশটির সিভিল ডিফেন্স এজেন্সি।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ব্রাজিলের রিও গ্র্যান্ডে দো সুলেতে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট জলাবন্ধতায় ৪০০ এর বেশি পৌরসভা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বুধবার (৮ মে) পর্যন্ত ১ লাখ ৬০ হাজার বাসিন্দাকে তাদের বাড়িঘর থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বন্যাদুর্গত প্রদেশটিতে ১২৬ জনের হদিস মিলছে না। সেইসঙ্গে ব্রাজিলের জাতীয় দুর্যোগ কেন্দ্র জানিয়েছে, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে বন্যার উচ্চ ঝুঁকি বিরাজ করছে এখনও। কারণ আবারও ভারী বর্ষণ শুরু হতে পারে।

ইতোমধ্যে রিও গ্র্যান্ডে দো সুলেতে সুপেয় পানির অভাব দেখা দিয়েছে এবং বিস্তীর্ণ এলাকা বিদ্যুৎ হয়ে গেছে। এমনকি ইন্টারনেট সংযোগ এবং টেলিফোনেও যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছে না। বন্যা কবলিত এলাকায় দেড় লাখ সেনা, ফায়ারফাইটার, পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবী প্রস্তুত রাখা হয়েছে ত্রাণ তৎপরতা চালানোর জন্য।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

ব্রাজিলে বন্যায় নিহত বেড়ে ১০০, নিখোঁজ ১২৬

প্রকাশিত : ১০:৩৯:৩২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০২৪

ব্রাজিলের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ রিও গ্র্যান্ডে দো সুলেতে ভয়াবহ বন্যায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১০০ তে পৌঁছেছে। এছাড়া এখন পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছেন ১২৬ জন। নিখোঁজদের সন্ধানে উদ্ধারকর্মীরা অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে দেশটির সিভিল ডিফেন্স এজেন্সি।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ব্রাজিলের রিও গ্র্যান্ডে দো সুলেতে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট জলাবন্ধতায় ৪০০ এর বেশি পৌরসভা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বুধবার (৮ মে) পর্যন্ত ১ লাখ ৬০ হাজার বাসিন্দাকে তাদের বাড়িঘর থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

সিভিল ডিফেন্স কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বন্যাদুর্গত প্রদেশটিতে ১২৬ জনের হদিস মিলছে না। সেইসঙ্গে ব্রাজিলের জাতীয় দুর্যোগ কেন্দ্র জানিয়েছে, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে বন্যার উচ্চ ঝুঁকি বিরাজ করছে এখনও। কারণ আবারও ভারী বর্ষণ শুরু হতে পারে।

ইতোমধ্যে রিও গ্র্যান্ডে দো সুলেতে সুপেয় পানির অভাব দেখা দিয়েছে এবং বিস্তীর্ণ এলাকা বিদ্যুৎ হয়ে গেছে। এমনকি ইন্টারনেট সংযোগ এবং টেলিফোনেও যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছে না। বন্যা কবলিত এলাকায় দেড় লাখ সেনা, ফায়ারফাইটার, পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবী প্রস্তুত রাখা হয়েছে ত্রাণ তৎপরতা চালানোর জন্য।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে