০২:৩৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪

বিভিন্ন ধরনের সাইবার অপরাধ হচ্ছে: তারানা

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম দাবি করেছেন, বাংলাদেশে ফেসবুক,ইউটিউবের মতো সামাজিক মাধ্যমগুলোতে বিভিন্ন ধরনের সাইবার অপরাধ হচ্ছে।

মঙ্গলবার ঢাকার লা মেরিডিয়ান হোটেলে তিন দিনব্যাপী ‘৮ম এপিটি সাইবার নিরাপত্তা ফোরামের’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এমন দাবি করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দেশে অনলাইন পর্নোগ্রাফি বর্তমানে একটি সামাজিক সমস্যা। এই সমস্যা দূর করতে আমরা কাজ করছি। শুধু ইন্টারনেট ব্যবহার নয়, চলুন আমরা সবাই ইন্টারনেটকে নিরাপদ রাখি।’

সাইবার ক্রাইম নিয়ে তারানা হালিম বলেন, ফেসবুক ও অন্যান্য মাধ্যমে সাইবার বুলিং হচ্ছে। ইন্টারনেটে আপত্তিকর বিষয়ের জন্য অনেক মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। এজন্য ব্যবহারকারী দেশের প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নিয়ে তাদের পলিসি সংশোধন করতে হবে।

ফোরামে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর উদ্দেশ্য তিনি আরো বলেন, সবার জন্য যেমন ইন্টারনেট নিশ্চিত করতে হবে তেমনি নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিত করার উদ্যোগে নিতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন,‘টেলিকম এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির উৎকর্ষতার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নিত্য-নতুন সাইবার অপরাধ বাড়ছে। দেশের দুর্বল অনলাইন অবকাঠামোকে টার্গেট করে আক্রমণের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করছে সাইবার অপরাধীরা।’

অনুষ্ঠানে এশিয়া প্যাসিফিক টেলিকমিউনিটির উপ-মহাসচিব মাসানোরি কন্ডো (Masanori Kondo) স্বাগত বক্তব্য দেন। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন এশিয়া প্যাসিফিক টেলিকমিউনিটির উপ-মহাসচিব মাসানরি কোনদো, বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার প্রমুখ।

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

বিভিন্ন ধরনের সাইবার অপরাধ হচ্ছে: তারানা

প্রকাশিত : ০৩:৫৯:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৭

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম দাবি করেছেন, বাংলাদেশে ফেসবুক,ইউটিউবের মতো সামাজিক মাধ্যমগুলোতে বিভিন্ন ধরনের সাইবার অপরাধ হচ্ছে।

মঙ্গলবার ঢাকার লা মেরিডিয়ান হোটেলে তিন দিনব্যাপী ‘৮ম এপিটি সাইবার নিরাপত্তা ফোরামের’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এমন দাবি করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দেশে অনলাইন পর্নোগ্রাফি বর্তমানে একটি সামাজিক সমস্যা। এই সমস্যা দূর করতে আমরা কাজ করছি। শুধু ইন্টারনেট ব্যবহার নয়, চলুন আমরা সবাই ইন্টারনেটকে নিরাপদ রাখি।’

সাইবার ক্রাইম নিয়ে তারানা হালিম বলেন, ফেসবুক ও অন্যান্য মাধ্যমে সাইবার বুলিং হচ্ছে। ইন্টারনেটে আপত্তিকর বিষয়ের জন্য অনেক মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। এজন্য ব্যবহারকারী দেশের প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নিয়ে তাদের পলিসি সংশোধন করতে হবে।

ফোরামে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর উদ্দেশ্য তিনি আরো বলেন, সবার জন্য যেমন ইন্টারনেট নিশ্চিত করতে হবে তেমনি নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিত করার উদ্যোগে নিতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন,‘টেলিকম এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির উৎকর্ষতার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নিত্য-নতুন সাইবার অপরাধ বাড়ছে। দেশের দুর্বল অনলাইন অবকাঠামোকে টার্গেট করে আক্রমণের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করছে সাইবার অপরাধীরা।’

অনুষ্ঠানে এশিয়া প্যাসিফিক টেলিকমিউনিটির উপ-মহাসচিব মাসানোরি কন্ডো (Masanori Kondo) স্বাগত বক্তব্য দেন। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন এশিয়া প্যাসিফিক টেলিকমিউনিটির উপ-মহাসচিব মাসানরি কোনদো, বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার প্রমুখ।