০৫:১৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী ভেঙে দিলেন কাতালান পার্লামেন্ট

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী ভেঙে দিলেন কাতালান পার্লামেন্ট
মাদ্রিদ, ২৮ অক্টোবর, ২০১৭ (বাসস ডেস্ক) : স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাহয় কাতালান পার্লামেন্টে ভেঙে দিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি আগাম স্থানীয় নির্বাচনেরও ঘোষণা দিয়েছেন।
শুক্রবার কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণার পরপরই স্প্যানিশ প্রধানমন্ত্রী পার্লামেন্ট ভেঙে আগাম নির্বাচন দেয়ার এ ঘোষণা দেন।
তিনি বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে কাতালোনিয়ায় নজিরবিহীন প্রত্যক্ষ শাসন জারি জরুরি। তিনি কাতালান নেতা কার্লেস পুজেমন ও তার মন্ত্রীসভাকেও বরখাস্ত করেন।
সাংবিধানিক আদালতের রায় উপেক্ষা করে কাতালানের নেতৃবৃন্দ স্বাধীনতার জন্যে গণভোটের আয়োজনের পর কেন্দ্রের সাথে তাদের সংকট শুরু হয়। সাংবিধানিক আদালত এ গণভোটকে অবৈধ বলে রায় দেয়।
এদিকে শুক্রবার ১৩৫ আসন বিশিষ্ট কাতালান সংসদে স্বাধীনতা ঘোষণার পক্ষে ৭০টি ভোট পড়ে। ১০জন এর বিরোধিতা করে এবং দুইজন ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকে।
কাতালান নেতা কার্লেস পুজেমন শান্তিপূর্ণভাবে এই চেতনা ধরে রাখতে সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানান।
ধারণা করা হচ্ছে, স্পেনের সাংবিধানিক আদালত এই ঘোষণাকে অবৈধ বলে রায় দেবে। কারণ, যুক্তরাজ্য, জার্মানী ও ফ্রান্স সকলে স্পেনের ঐক্যের পক্ষে।

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

ইসরায়েলকে সতর্ক করল হোয়াইট হাউজ

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী ভেঙে দিলেন কাতালান পার্লামেন্ট

প্রকাশিত : ১২:১৭:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৭

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী ভেঙে দিলেন কাতালান পার্লামেন্ট
মাদ্রিদ, ২৮ অক্টোবর, ২০১৭ (বাসস ডেস্ক) : স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাহয় কাতালান পার্লামেন্টে ভেঙে দিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি আগাম স্থানীয় নির্বাচনেরও ঘোষণা দিয়েছেন।
শুক্রবার কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণার পরপরই স্প্যানিশ প্রধানমন্ত্রী পার্লামেন্ট ভেঙে আগাম নির্বাচন দেয়ার এ ঘোষণা দেন।
তিনি বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে কাতালোনিয়ায় নজিরবিহীন প্রত্যক্ষ শাসন জারি জরুরি। তিনি কাতালান নেতা কার্লেস পুজেমন ও তার মন্ত্রীসভাকেও বরখাস্ত করেন।
সাংবিধানিক আদালতের রায় উপেক্ষা করে কাতালানের নেতৃবৃন্দ স্বাধীনতার জন্যে গণভোটের আয়োজনের পর কেন্দ্রের সাথে তাদের সংকট শুরু হয়। সাংবিধানিক আদালত এ গণভোটকে অবৈধ বলে রায় দেয়।
এদিকে শুক্রবার ১৩৫ আসন বিশিষ্ট কাতালান সংসদে স্বাধীনতা ঘোষণার পক্ষে ৭০টি ভোট পড়ে। ১০জন এর বিরোধিতা করে এবং দুইজন ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকে।
কাতালান নেতা কার্লেস পুজেমন শান্তিপূর্ণভাবে এই চেতনা ধরে রাখতে সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানান।
ধারণা করা হচ্ছে, স্পেনের সাংবিধানিক আদালত এই ঘোষণাকে অবৈধ বলে রায় দেবে। কারণ, যুক্তরাজ্য, জার্মানী ও ফ্রান্স সকলে স্পেনের ঐক্যের পক্ষে।