০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির সব অভিযোগ মিথ্যা: হোয়াইট হাউস

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যেসব নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন, তার সবই মিথ্যা বলে দাবি করেছে হোয়াইট হাউসের প্রেসসচিব সারাহ হুকাবি স্যান্ডারস।

শুক্রবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগের বিষয়ে হোয়াইট হাউজের অবস্থানের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে সান্ডার্স একথা বলেন।

হোয়াইট হাউসের ব্রিফিংয়ের সময় সম্প্রতি ক্ষমতাবান ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগের ব্যাপারে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। সেখানে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ. ডব্লিউ. বুশ এবং এবিসি নিউজের সাবেক সাংবাদিক মার্ক হ্যালপেরিনের নামও উঠে আসে।

সিবিএস নিউজের সাংবাদিক জ্যাকুলিন আলেমানি বলে উঠেন, ‘অবশ্যই যৌন হয়রানি বড় ধরনের সংবাদ। প্রেসিডেন্টের (ট্রাম্পের) বিরুদ্ধে অন্তত ১৬ জন নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন। গত সপ্তাহে রোজ গার্ডেনে সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট দাবি করলেন, এগুলো ভুয়া সংবাদ। তাহলে কি সরকারিভাবে হোয়াইট হাউসের অবস্থান এটাই যে, সব নারী মিথ্যা বলছেন?’

সঙ্গে সঙ্গে সারাহ হুকাবি স্যান্ডারস উত্তরে জানান, ‘হ্যাঁ, শুরু থেকেই আমাদের কাছে বিষয়টি পরিষ্কার এবং এ ব্যাপারে প্রেসিডেন্ট নিজেও কথা বলেছেন।’আবারও প্রশ্ন করেন জ্যাকুলিন আলেমানি। সামার জার্ভোস নামের এক নারীর অভিযোগের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি জানান, ‘এই নারী ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন, তাকে জোরপূর্বক চুম্বন করে বুকে হাত দিয়েছেন তিনি।’

এ ব্যাপারে ট্রাম্প জানান, ‘এগুলো সব ভুয়া খবর। একেবারেই ভুয়া। এগুলো বানোয়াট এবং অপমানজনক। এতে করে কী এমন হবে, কিন্তু বিশ্ব রাজনীতিতে তার প্রভাব পড়বে।’

২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারণার সময় জোরপূর্বক স্পর্শ করা, চুম্বন করার অভিযোগ করেছেন ১১ জন নারী। আর অন্যদেরকে আগের বিভিন্ন সময়ে ট্রাম্প যৌন হয়রানি করেছেন বলে অভিযোগ ওঠে।

হার্ভে উইনস্টেইন, বিল ও’রিয়্যালি, জরার আইলেস এবং হ্যালপেরিনের বিরুদ্ধে যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ ওঠার পর ট্রাম্পের ব্যাপারটাও নতুনভাবে আলোচনায় এসেছে

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির সব অভিযোগ মিথ্যা: হোয়াইট হাউস

প্রকাশিত : ০৪:১৩:৪৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৭

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যেসব নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন, তার সবই মিথ্যা বলে দাবি করেছে হোয়াইট হাউসের প্রেসসচিব সারাহ হুকাবি স্যান্ডারস।

শুক্রবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগের বিষয়ে হোয়াইট হাউজের অবস্থানের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে সান্ডার্স একথা বলেন।

হোয়াইট হাউসের ব্রিফিংয়ের সময় সম্প্রতি ক্ষমতাবান ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগের ব্যাপারে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। সেখানে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ. ডব্লিউ. বুশ এবং এবিসি নিউজের সাবেক সাংবাদিক মার্ক হ্যালপেরিনের নামও উঠে আসে।

সিবিএস নিউজের সাংবাদিক জ্যাকুলিন আলেমানি বলে উঠেন, ‘অবশ্যই যৌন হয়রানি বড় ধরনের সংবাদ। প্রেসিডেন্টের (ট্রাম্পের) বিরুদ্ধে অন্তত ১৬ জন নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন। গত সপ্তাহে রোজ গার্ডেনে সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট দাবি করলেন, এগুলো ভুয়া সংবাদ। তাহলে কি সরকারিভাবে হোয়াইট হাউসের অবস্থান এটাই যে, সব নারী মিথ্যা বলছেন?’

সঙ্গে সঙ্গে সারাহ হুকাবি স্যান্ডারস উত্তরে জানান, ‘হ্যাঁ, শুরু থেকেই আমাদের কাছে বিষয়টি পরিষ্কার এবং এ ব্যাপারে প্রেসিডেন্ট নিজেও কথা বলেছেন।’আবারও প্রশ্ন করেন জ্যাকুলিন আলেমানি। সামার জার্ভোস নামের এক নারীর অভিযোগের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি জানান, ‘এই নারী ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন, তাকে জোরপূর্বক চুম্বন করে বুকে হাত দিয়েছেন তিনি।’

এ ব্যাপারে ট্রাম্প জানান, ‘এগুলো সব ভুয়া খবর। একেবারেই ভুয়া। এগুলো বানোয়াট এবং অপমানজনক। এতে করে কী এমন হবে, কিন্তু বিশ্ব রাজনীতিতে তার প্রভাব পড়বে।’

২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারণার সময় জোরপূর্বক স্পর্শ করা, চুম্বন করার অভিযোগ করেছেন ১১ জন নারী। আর অন্যদেরকে আগের বিভিন্ন সময়ে ট্রাম্প যৌন হয়রানি করেছেন বলে অভিযোগ ওঠে।

হার্ভে উইনস্টেইন, বিল ও’রিয়্যালি, জরার আইলেস এবং হ্যালপেরিনের বিরুদ্ধে যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ ওঠার পর ট্রাম্পের ব্যাপারটাও নতুনভাবে আলোচনায় এসেছে