০২:৩৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

প্রধান বিচারপতি দেশে ফিরছেন 

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা

দুই একদিনের মধ্যে দেশে ফিরছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। চলতি মাসের ১০ অথবা ১২ তারিখে তিনি দেশে ফিরতে পারেন। প্রধান বিচারপতি বর্তমানে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে তিনি সরাসরি দেশে ফিরবেন।
প্রধান বিচারপতির প্রয়োজনীয় প্রটোকল প্রস্তুতের জন্য সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন বিভাগকে বিষয়টি তিনি জানিয়েছেন।
প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা চান সম্মানজনকভাবে দেশে ফিরে বিচারকাজ পরিচালনার জন্য এজলাসে বসতে এবং তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত ১১ অভিযোগের বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে। কিন্তু আপিল বিভাগের বিচারপতিরা আগেই প্রধান বিচারপতির সঙ্গে বসে বিচারকাজ পরিচালনায় অপারগতা প্রকাশ করে বিবৃতি দেওয়ায় ওই আশা পূরণের বিষয়টি অনেকটাই সুদূর পরাহত। আইনমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেলও বিষয়টি বারবার গণমাধ্যমকে বলে আসছেন।
দেশে ফিরে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা সিনহা দায়িত্ব গ্রহণ করবেন না পদত্যাগ করবেন এই বিষয়ে তেমন কিছু জানা যায়নি।
গত সোমবার এক প্রতিক্রিয়ায় অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, আপিল বিভাগের বিচারপতিরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে বসে বিচারকার্য করবেন না বলে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া এক বিবৃতিতে আগেই জানানো হয়েছে। এরপরও যদি উনি (প্রধান বিচারপতি) দায়িত্ব নিতে চান তবে তা অবমাননাকর বলেই মনে করি।
ইতোমধ্যে সরকার সেই পুরো রায়ের রিভিউ আবেদনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে। এ বিষয়ে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা মাহবুবে আলমের সঙ্গে বৈঠক করেছেন আইনমন্ত্রী।
সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর সরকারের শাসন বিভাগের সাথে বিচার বিভাগের টানা পোড়েন শুরু হয়।আইনজীবী সমিতির নেতারা এসময় অভিযোগ করে বলেছিলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে ছুটিতে যেতে বাধ্য করা হয়েছে।
শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে একমাসের ছুটিতে যাওয়ার দুই দিন পর প্রকাশ্যে বেরিয়ে তিনি গুলশান-২ নম্বরে অবস্থিত ভিসা সেন্টারে উপস্থিত হয়ে অস্ট্রেলিয়ার ভিসার জন্য আবেদন করেছিলেন।
প্রসঙ্গত, ৩ অক্টোবর থেকে এক মাসের ছুটিতে যান প্রধান বিচারপতি সিনহা। পরবর্তীকালে ওই ছুটির মেয়াদ ১০ নভেম্বর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। গত ১৩ অক্টোবর তিনি অস্ট্রেলিয়া যান। অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগের পূর্বে প্রধান বিচারপতি সিনহা এক খোলা চিঠিতে বলেছিলেন, ‘আমি অসুস্থ নই। আমি চলে যাচ্ছি, পালিয়েও যাচ্ছি না। আমি আবার ফিরে আসবো।’

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

প্রধান বিচারপতি দেশে ফিরছেন 

প্রকাশিত : ১১:৩৩:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৮ নভেম্বর ২০১৭

দুই একদিনের মধ্যে দেশে ফিরছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। চলতি মাসের ১০ অথবা ১২ তারিখে তিনি দেশে ফিরতে পারেন। প্রধান বিচারপতি বর্তমানে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে তিনি সরাসরি দেশে ফিরবেন।
প্রধান বিচারপতির প্রয়োজনীয় প্রটোকল প্রস্তুতের জন্য সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন বিভাগকে বিষয়টি তিনি জানিয়েছেন।
প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা চান সম্মানজনকভাবে দেশে ফিরে বিচারকাজ পরিচালনার জন্য এজলাসে বসতে এবং তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত ১১ অভিযোগের বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে। কিন্তু আপিল বিভাগের বিচারপতিরা আগেই প্রধান বিচারপতির সঙ্গে বসে বিচারকাজ পরিচালনায় অপারগতা প্রকাশ করে বিবৃতি দেওয়ায় ওই আশা পূরণের বিষয়টি অনেকটাই সুদূর পরাহত। আইনমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেলও বিষয়টি বারবার গণমাধ্যমকে বলে আসছেন।
দেশে ফিরে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা সিনহা দায়িত্ব গ্রহণ করবেন না পদত্যাগ করবেন এই বিষয়ে তেমন কিছু জানা যায়নি।
গত সোমবার এক প্রতিক্রিয়ায় অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, আপিল বিভাগের বিচারপতিরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে বসে বিচারকার্য করবেন না বলে সুপ্রিম কোর্টের দেওয়া এক বিবৃতিতে আগেই জানানো হয়েছে। এরপরও যদি উনি (প্রধান বিচারপতি) দায়িত্ব নিতে চান তবে তা অবমাননাকর বলেই মনে করি।
ইতোমধ্যে সরকার সেই পুরো রায়ের রিভিউ আবেদনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে। এ বিষয়ে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা মাহবুবে আলমের সঙ্গে বৈঠক করেছেন আইনমন্ত্রী।
সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর সরকারের শাসন বিভাগের সাথে বিচার বিভাগের টানা পোড়েন শুরু হয়।আইনজীবী সমিতির নেতারা এসময় অভিযোগ করে বলেছিলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে ছুটিতে যেতে বাধ্য করা হয়েছে।
শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে একমাসের ছুটিতে যাওয়ার দুই দিন পর প্রকাশ্যে বেরিয়ে তিনি গুলশান-২ নম্বরে অবস্থিত ভিসা সেন্টারে উপস্থিত হয়ে অস্ট্রেলিয়ার ভিসার জন্য আবেদন করেছিলেন।
প্রসঙ্গত, ৩ অক্টোবর থেকে এক মাসের ছুটিতে যান প্রধান বিচারপতি সিনহা। পরবর্তীকালে ওই ছুটির মেয়াদ ১০ নভেম্বর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। গত ১৩ অক্টোবর তিনি অস্ট্রেলিয়া যান। অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগের পূর্বে প্রধান বিচারপতি সিনহা এক খোলা চিঠিতে বলেছিলেন, ‘আমি অসুস্থ নই। আমি চলে যাচ্ছি, পালিয়েও যাচ্ছি না। আমি আবার ফিরে আসবো।’