০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

‘বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়ায় প্রমাণ হয়েছে সরকার গণতান্ত্রিক’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়ায় প্রমাণ হয়েছে, এই সরকার কতটা গণতান্ত্রিক, কতটা আন্তরিক।’
১০ নভেম্বর শুক্রবার শহীদ নূর হোসেন দিবস উপলক্ষে রাজধানীর গুলিস্তানে নূর হোসেন চত্বরে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে বিএনপি বিষোদগার করতে পারে। তবে বিএনপি নির্বাচন বয়কট করেছে, আর তাতে দেশে গণতন্ত্র থাকল না, বিষয়টি এমন নয়।
ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে গণতন্ত্র আছে বলেই ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) ও কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) সম্মেলনের জন্য বাংলাদেশকে বেছে নেওয়া হয়েছে। দেশে যদি গণতন্ত্র না থাকত তাহলে এ দুটি সম্মেলন সফলভাবে অনুষ্ঠিত হতো না।
মন্ত্রী বলেন, বিএনপিসহ সব দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন চায় আওয়ামী লীগ। তবে আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আহবান জানালেও বিএনপি অংশগ্রহণ করবে, না জানালেও করবে।
তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্রের জন্য নূর হোসেন নিজের রক্ত দিয়ে গেছেন। জীবনের বিনিময়ে তার স্বপ্নের গণতন্ত্র মুক্তি পেয়েছে। সেই গণতন্ত্রকেই সরকার ধারণ করছে। অনেক রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হবে।
সে সময় উপস্থিত ছিলেন- মাহবুব-উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আহমদ হোসেন, অসীম কুমার উকিল, এনামুল হক শামীম, আবদুস সোবহান গোলাপ, ফরিদুন্নাহার লাইলী, আমিনুল ইসলাম আমিন ও এসএম কামাল হোসেন প্রমুখ।

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

ইসরায়েলে আঘাত হেনেছে হিজবুল্লাহর ড্রোন, আহত ১৮

‘বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়ায় প্রমাণ হয়েছে সরকার গণতান্ত্রিক’

প্রকাশিত : ১২:৫৬:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ নভেম্বর ২০১৭

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়ায় প্রমাণ হয়েছে, এই সরকার কতটা গণতান্ত্রিক, কতটা আন্তরিক।’
১০ নভেম্বর শুক্রবার শহীদ নূর হোসেন দিবস উপলক্ষে রাজধানীর গুলিস্তানে নূর হোসেন চত্বরে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে বিএনপি বিষোদগার করতে পারে। তবে বিএনপি নির্বাচন বয়কট করেছে, আর তাতে দেশে গণতন্ত্র থাকল না, বিষয়টি এমন নয়।
ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে গণতন্ত্র আছে বলেই ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) ও কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) সম্মেলনের জন্য বাংলাদেশকে বেছে নেওয়া হয়েছে। দেশে যদি গণতন্ত্র না থাকত তাহলে এ দুটি সম্মেলন সফলভাবে অনুষ্ঠিত হতো না।
মন্ত্রী বলেন, বিএনপিসহ সব দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন চায় আওয়ামী লীগ। তবে আসন্ন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আহবান জানালেও বিএনপি অংশগ্রহণ করবে, না জানালেও করবে।
তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্রের জন্য নূর হোসেন নিজের রক্ত দিয়ে গেছেন। জীবনের বিনিময়ে তার স্বপ্নের গণতন্ত্র মুক্তি পেয়েছে। সেই গণতন্ত্রকেই সরকার ধারণ করছে। অনেক রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হবে।
সে সময় উপস্থিত ছিলেন- মাহবুব-উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আহমদ হোসেন, অসীম কুমার উকিল, এনামুল হক শামীম, আবদুস সোবহান গোলাপ, ফরিদুন্নাহার লাইলী, আমিনুল ইসলাম আমিন ও এসএম কামাল হোসেন প্রমুখ।