০৩:১৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

তৈরি পোশাক খাতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে: বাণিজ্যমন্ত্রী

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, দেশের মোট রফতানির প্রায় ৮২ ভাগ বর্তমানে তৈরি পোশাক। রফতানির এই ধারা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে সরকার তৈরি পোশাকের নতুন বাজার অনুসদ্ধানসহ নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

সংসদের ১৮তম অধিবেশনে রবিবার জাতীয় পার্টির সদস্য নুরুল ইসলাম মিলনের (কুমিল্লা-৮) লিখিত প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী এসব কথা জানান।

তোফায়েল আহমেদ আরও বলেন, তৈরি পোশাক রফতানি বাজার সম্প্রসারণ ও সুসংহত করার লক্ষ্যে সরকার ব্রাজিল, মেক্সিকো, দক্ষিণ আফ্রিকা, চিলি ও এবং রাশিয়াসহ অন্যান্য অগ্রসরমান দেশে বাণিজ্য প্রতিনিধি দল পাঠানো হচ্ছে। একইসঙ্গে বিদেশে বিপনন মিশন প্রেরণ, একক দেশীয় বস্ত্র ও তৈরি পোশাক মেলার আয়োজন, আন্তর্জাতিক মেলার আয়োজন, ও অংশগ্রহণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি আঞ্চলিক বাজারসমূহ আরো গভীরভাবে পর্যালোচনার সুবিধার্থে বিদেশস্থ বাংলাদেশের মিশনসমূহে বাণিজ্যিক উইং স্থাপন করা হয়েছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরো জানান, এর মধ্যে বিদ্যমান জেনেভাস্থ বাণিজ্যিক উইং সম্পসারণ করা হয়েছে। দক্ষিণ কোরিযা ও সিঙ্গাপুরে নতুন বাণিজ্যিক উইং স্থাপন করা হয়েছে। তৈরি পোশাক ও গার্মেন্ট এক্সেসরিজসহ সকল রফতানি পণ্য উন্নয়ন ও ভবিষ্যত প্রতিযোগীতামূলক সক্ষমতা বৃদ্ধিতে গবেষণা ও উন্নয়ন কার্যক্রমের উপর জোর দিয়ে গবেষণার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

তৈরি পোশাক খাতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ০৭:৫৫:৩০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, দেশের মোট রফতানির প্রায় ৮২ ভাগ বর্তমানে তৈরি পোশাক। রফতানির এই ধারা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে সরকার তৈরি পোশাকের নতুন বাজার অনুসদ্ধানসহ নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

সংসদের ১৮তম অধিবেশনে রবিবার জাতীয় পার্টির সদস্য নুরুল ইসলাম মিলনের (কুমিল্লা-৮) লিখিত প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী এসব কথা জানান।

তোফায়েল আহমেদ আরও বলেন, তৈরি পোশাক রফতানি বাজার সম্প্রসারণ ও সুসংহত করার লক্ষ্যে সরকার ব্রাজিল, মেক্সিকো, দক্ষিণ আফ্রিকা, চিলি ও এবং রাশিয়াসহ অন্যান্য অগ্রসরমান দেশে বাণিজ্য প্রতিনিধি দল পাঠানো হচ্ছে। একইসঙ্গে বিদেশে বিপনন মিশন প্রেরণ, একক দেশীয় বস্ত্র ও তৈরি পোশাক মেলার আয়োজন, আন্তর্জাতিক মেলার আয়োজন, ও অংশগ্রহণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পাশাপাশি আঞ্চলিক বাজারসমূহ আরো গভীরভাবে পর্যালোচনার সুবিধার্থে বিদেশস্থ বাংলাদেশের মিশনসমূহে বাণিজ্যিক উইং স্থাপন করা হয়েছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরো জানান, এর মধ্যে বিদ্যমান জেনেভাস্থ বাণিজ্যিক উইং সম্পসারণ করা হয়েছে। দক্ষিণ কোরিযা ও সিঙ্গাপুরে নতুন বাণিজ্যিক উইং স্থাপন করা হয়েছে। তৈরি পোশাক ও গার্মেন্ট এক্সেসরিজসহ সকল রফতানি পণ্য উন্নয়ন ও ভবিষ্যত প্রতিযোগীতামূলক সক্ষমতা বৃদ্ধিতে গবেষণা ও উন্নয়ন কার্যক্রমের উপর জোর দিয়ে গবেষণার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।