১২:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪

এবার পদ্মা নদীর পানি পান করবেন বর্ধিত ঢাকার বাসিন্দারা

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে যুক্ত ১৬টি ইউনিয়ন এলাকায় গঠন করা হয়েছে ৩৬টি ওয়ার্ড। এ এলাকাগুলো মূল ঢাকা শহরের আশপাশের এলাকা নিয়ে গঠিত। ঢাকা শহরের এসব বর্ধিত এলাকায় পদ্মা নদীর পানি সরবরাহ করবে সরকার। এ উদ্দেশ্যে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার যশলদিয়ায় ‘পদ্মা পানি শোধনাগার’ নির্মাণ কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে রাজধানী ঢাকায় প্রতিদিন ৪৫ কোটি লিটার বিশুদ্ধ খাবার পানি ৩৫ লাখ মানুষের মাঝে সরবরাহ করা সম্ভব হবে। এখান থেকেই মূলত পানি নিয়ে ঢাকার বর্ধিত এলাকায় সরবরাহ করা হবে। তবে যতদিন প্রকল্পটি শতভাগ বাস্তবায়ন না হবে, ততদিন ভূগর্ভস্থ পানি সরবরাহ করা হবে।

এজন্য ৪ হাজার ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বর্ধিত ঢাকা পানি সরবরাহ রেজিলিয়েন্স’ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে সরকার। ঢাকা উওর সিটি করপোরেশনের অধীন বেরাইদ, বাড্ডা, ভাটারা, সাতারকুল, হরিরামপুর, উত্তরখান, দক্ষিণখান এবং ডুমনি ইউনিয়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

অন্যদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের অধীন দনিয়া, শ্যামপুর, মাতুয়াইল, ডেমরা, সারুলিয়া, দক্ষিণগাঁও, নাসিরাবাদ এবং মান্ডা ইউনিয়নেও প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, বসিলা, হাজারীবাগ, ঢাকা উদ্যান, মিরপুরের একাংশ অন্তর্ভুক্ত হবে প্রকল্পের আওতায়।

এ প্রকল্পে ৩ হাজার ৪২৯ কোটি টাকা ঋণ দেবে নিউ ডেভলপমেন্ট ব্যাংক। জুলাই ২০২৪ থেকে জুন ২০২৯ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের মহাপরিচালক (পরিকল্পনা, পরিবীক্ষণ, মূল্যায়ন ও পরিদর্শন অনুবিভাগ) ড. মো. সারোয়ার বারী গণমাধ্যমকে বলেন, ঢাকার চারপাশ প্রতিনিয়ত সম্প্রসারিত হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় ঢাকার আশপাশের ১৬টি ইউনিয়ন দুই সিটির আওতায় এসেছে। সম্প্রসারিত ঢাকার বাসিন্দাদের সুপেয় পানি পদ্মা নদী থেকে সরবরাহ করা হবে। আমরা সারফেস ও গ্রাউন্ড ওয়াটারের ব্যবস্থা করেছি প্রকল্পের আওতায়।

স্থানীয় সরকার বিভাগ জানায়, পদ্মা পানি শোধনাগারের উৎপাদিত পানি ঢাকায় সরবরাহের জন্য ৪০ কিলোমিটার পাইপ ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হবে। পাইপের মোট ব্যাস ৪০০ মিলিমিটার থেকে ১৮০০ মিলিমিটার পর্যন্ত। ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক স্থাপনের মাধ্যমে ঢাকা শহরের উত্তর-পশ্চিম অংশে পানি সরবরাহ করা হবে। ৫০ দশমিক ৯ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় যাবে এ পানি। এ লক্ষ্যে ডিস্ট্রিক্ট মিটার্ড এরিয়ার (ডিএমএ) আওতায় ১ হাজার ৫৭৫ কিলোমিটার ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক স্থাপন ও পুনর্বাসন করা হবে।

৪০ কিলোমিটার ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক স্থাপন, ১ হাজার ৫৭৫ কিলোমিটার ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক স্থাপন ও পুনর্বাসন করা হবে। এছাড়া ১৭০টি গভীর নলকূপও স্থাপন করা হবে। প্রশিক্ষণ-পরার্মশক প্রতিষ্ঠানসহ ভূমি অধিগ্রহণে ব্যয় করা হবে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

চারদিকে কি হচ্ছে,সেইদিকে নজর না রেখে নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে

এবার পদ্মা নদীর পানি পান করবেন বর্ধিত ঢাকার বাসিন্দারা

প্রকাশিত : ১১:৫৬:৫৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১০ নভেম্বর ২০২৩

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে যুক্ত ১৬টি ইউনিয়ন এলাকায় গঠন করা হয়েছে ৩৬টি ওয়ার্ড। এ এলাকাগুলো মূল ঢাকা শহরের আশপাশের এলাকা নিয়ে গঠিত। ঢাকা শহরের এসব বর্ধিত এলাকায় পদ্মা নদীর পানি সরবরাহ করবে সরকার। এ উদ্দেশ্যে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার যশলদিয়ায় ‘পদ্মা পানি শোধনাগার’ নির্মাণ কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে রাজধানী ঢাকায় প্রতিদিন ৪৫ কোটি লিটার বিশুদ্ধ খাবার পানি ৩৫ লাখ মানুষের মাঝে সরবরাহ করা সম্ভব হবে। এখান থেকেই মূলত পানি নিয়ে ঢাকার বর্ধিত এলাকায় সরবরাহ করা হবে। তবে যতদিন প্রকল্পটি শতভাগ বাস্তবায়ন না হবে, ততদিন ভূগর্ভস্থ পানি সরবরাহ করা হবে।

এজন্য ৪ হাজার ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বর্ধিত ঢাকা পানি সরবরাহ রেজিলিয়েন্স’ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে সরকার। ঢাকা উওর সিটি করপোরেশনের অধীন বেরাইদ, বাড্ডা, ভাটারা, সাতারকুল, হরিরামপুর, উত্তরখান, দক্ষিণখান এবং ডুমনি ইউনিয়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

অন্যদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের অধীন দনিয়া, শ্যামপুর, মাতুয়াইল, ডেমরা, সারুলিয়া, দক্ষিণগাঁও, নাসিরাবাদ এবং মান্ডা ইউনিয়নেও প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর, বসিলা, হাজারীবাগ, ঢাকা উদ্যান, মিরপুরের একাংশ অন্তর্ভুক্ত হবে প্রকল্পের আওতায়।

এ প্রকল্পে ৩ হাজার ৪২৯ কোটি টাকা ঋণ দেবে নিউ ডেভলপমেন্ট ব্যাংক। জুলাই ২০২৪ থেকে জুন ২০২৯ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের মহাপরিচালক (পরিকল্পনা, পরিবীক্ষণ, মূল্যায়ন ও পরিদর্শন অনুবিভাগ) ড. মো. সারোয়ার বারী গণমাধ্যমকে বলেন, ঢাকার চারপাশ প্রতিনিয়ত সম্প্রসারিত হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় ঢাকার আশপাশের ১৬টি ইউনিয়ন দুই সিটির আওতায় এসেছে। সম্প্রসারিত ঢাকার বাসিন্দাদের সুপেয় পানি পদ্মা নদী থেকে সরবরাহ করা হবে। আমরা সারফেস ও গ্রাউন্ড ওয়াটারের ব্যবস্থা করেছি প্রকল্পের আওতায়।

স্থানীয় সরকার বিভাগ জানায়, পদ্মা পানি শোধনাগারের উৎপাদিত পানি ঢাকায় সরবরাহের জন্য ৪০ কিলোমিটার পাইপ ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হবে। পাইপের মোট ব্যাস ৪০০ মিলিমিটার থেকে ১৮০০ মিলিমিটার পর্যন্ত। ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক স্থাপনের মাধ্যমে ঢাকা শহরের উত্তর-পশ্চিম অংশে পানি সরবরাহ করা হবে। ৫০ দশমিক ৯ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় যাবে এ পানি। এ লক্ষ্যে ডিস্ট্রিক্ট মিটার্ড এরিয়ার (ডিএমএ) আওতায় ১ হাজার ৫৭৫ কিলোমিটার ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক স্থাপন ও পুনর্বাসন করা হবে।

৪০ কিলোমিটার ট্রান্সমিশন নেটওয়ার্ক স্থাপন, ১ হাজার ৫৭৫ কিলোমিটার ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক স্থাপন ও পুনর্বাসন করা হবে। এছাড়া ১৭০টি গভীর নলকূপও স্থাপন করা হবে। প্রশিক্ষণ-পরার্মশক প্রতিষ্ঠানসহ ভূমি অধিগ্রহণে ব্যয় করা হবে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে