০৪:১৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

একজন মানবিক ওসি মোহাম্মদ মহসীন

প্রাচীন কালে পুলিশের সৃষ্টি হয়ে ছিলো খাজনা আদায়ের জন্য। যার কারনে প্রাচীন কালে পুলিশ মানুষের ঘাড় ধরে সরকারের খাজনা আদায় করে দিত জনগনের কাছ থেকে। সময়ের পরিক্রমায় সেই পুলিশ আস্তে আস্তে হলেও যথেষ্ট জনবান্ধন পুলিশে পরিণত হয়েছে। জনসেবায় পুলিশের মনোজগতেও ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী, আড্ডাবাজ ও মানবিক ছেলে-মেয়েগুলো দলেদলে এই বাহিনীতে যোগ দিচ্ছেন। সুতরাং পুলিশে গুণগত পরিবর্তন এখন সাদাচোখেও দৃশ্যমান, যদিও যথেষ্ট ব্যতিক্রম রয়েছে এবং ব্যতিক্রম সবসময় উদাহরণও নয়।

আজ আপনি ৯৯৯ এ ফ্রি ডায়াল করলেই পুলিশ আপনার দরজায় গিয়ে হাজির হচ্ছে। আপনি গহীন অরণ্য বা মাঝ নদীতে কোনো সমস্যায় পড়ে জাস্ট একটা কল করলেই আপনার পাশে পৌঁছে যাচ্ছেন বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা। করোনাকালে পুলিশ তার ইতিহাসের সেরা মানবিক ও সাহসী গল্প রচনা করেছে।

আর এটি সম্ভব হয়েছে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দুরদর্শিতা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের তত্ত্বাবধান ও বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি)চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন এর দক্ষ নেতৃত্বের কারনে। পুলিশের এই পরিবর্তনের পিছনে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন বাংলাদেশ পুলিশের কিছু ডাইনামিক পুলিশ সদস্যরা।তাদের মধ্য অন্যতম একজন হলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) তেজগাঁও থানার ডাইনামিক ও মানবিক অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহসীন।

তারাই ধারবাহিকতায় প্রতি বছরের ন্যায় এই বছরও পবিত্র মাহে রমজানে ইফতারে পূর্ব মহুর্তে তেজগাঁও থানাধীন এলাকায় মাঠে ঘাটে রাস্তায় ফুটপাতে বাসে কিংবা সিএনজি তে গিয়ে পথচারীদের বিনামূল্যে স্বশরিলে ইফতার বিতরন করেন তেজগাঁও থানার সুযোগ্য অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহসীন।

বাংলাদেশ পুলিশ জনবান্ধব পুলিশিংয়ের জন্য ওসি মহসীন এখন এক নামে পরিচিত। তার চালু করা ‘হ্যালো ওসি’ কার্যক্রম চালু হওয়ার পর থেকে পুরো সিএমপি জুড়ে সুনাম কুঁড়িয়ে সারা দেশব্যাপি প্রশংসনীয় হয়েছেন তিনি।

এছাড়া আইনি শাসনের পাশাপাশি মানবিক পুলিশ হিসেবে ওসি মোহাম্মদ মহসীনের সুনাম রয়েছে। তিনি করোনাকালে খাদ্য, ওষুধ, রোগী পরিবহন সহ নানা জনবান্ধব কাজ করে যেই থানায় দায়িত্ব পালন করেছেন থানা এলাকার অসহায় বাসিন্দাদের পাশে দাঁড়িয়ে মানুষের নজরে এসেছেন খুব অল্প সময়ে । এছাড়াও সমগ্র বাংলাদেশে তার সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ক্রান্তিলগ্ন চট্টগ্রামের থাকা কালীন বিশেষ ভূমিকায় চট্টগ্রামকে মাদকমুক্ত করার পিছনে এক বিশাল অবদান রেখেছেন ওসি মোহাম্মদ মহসিন।

ওসি মোহাম্মদ মহসীন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন রমজানকে বলা হয় সংযম ও আত্মশুদ্ধির মাস। রমজান মাসের শুরু থেকে রাজধানীতে যেমন তীব্র গরম তার উপর থাকে যানজট সংকট প্রকট। আমাদের বর্তমান মাননীয় ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান স্যার রমজানে তিনি রাস্তায় ইফতার করেছে। যানজটে নিরসনে ট্রাফিক পুলিশ কে সহযোগিতা করার জন্য আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। তাই ট্রাফিক পুলিশে পাশে থেকে আমরা যানজট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছি । যানজটের কারনে অনেকে সময় মতো বাসায় গিয়ে ইফতার করতে পারেন না। বাসে বসে ইফতার কিনার ও কোনো সুযোগ নেই তাই আমি মানবিক দিক চিন্তা করে ভাম্যমান পথচারীদের জন্য আমার এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।

তেজগাঁও থানা এলাকার বর্তমান আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও জনকল্যান মুখি পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সোনার বাংলার অসমাপ্ত কাজগুলো করে যাচ্ছেন তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,তার অংশ হিসেবে ডিজিটাল বাংলার পরে, স্মার্ট বাংলা গড়ার লক্ষ্যে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন,আর আমরা তার হাতিয়ার হিসেবে দেশ ও দেশের জনগণের শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার লক্ষ্যে যে কোনো প্রতিকুলতার মোকাবেলা করে জনগণের মুখে হাসি ফোঁটানোর লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি, যেমন এখন সামাজিক উন্নয়নে বাধা হয়ে দাড়িয়েছে, কিশোর গ্যাং এর উৎপাত, মাদক, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, চাঁদাবাজি, মারামারি, রাহাজানি, চুরি ডাকাতি, এগুলো তেজগাঁও থানা এলাকায় এখন অনেকটাই কম, আমার কাছে কোনো দুষ্কৃতীকারীদের ছাড় নাই, সে ক্ষেত্রে আমি যে কোনো প্রতিকুলতার মোকাবেলা করে তেজগাঁও বাসীদের নিশ্চিন্তে বসবাস করার অভয় দিচ্ছি ইনশাআল্লাহ।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS

জনপ্রিয়

ইসরায়েলকে সতর্ক করল হোয়াইট হাউজ

একজন মানবিক ওসি মোহাম্মদ মহসীন

প্রকাশিত : ০৩:২১:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪

প্রাচীন কালে পুলিশের সৃষ্টি হয়ে ছিলো খাজনা আদায়ের জন্য। যার কারনে প্রাচীন কালে পুলিশ মানুষের ঘাড় ধরে সরকারের খাজনা আদায় করে দিত জনগনের কাছ থেকে। সময়ের পরিক্রমায় সেই পুলিশ আস্তে আস্তে হলেও যথেষ্ট জনবান্ধন পুলিশে পরিণত হয়েছে। জনসেবায় পুলিশের মনোজগতেও ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী, আড্ডাবাজ ও মানবিক ছেলে-মেয়েগুলো দলেদলে এই বাহিনীতে যোগ দিচ্ছেন। সুতরাং পুলিশে গুণগত পরিবর্তন এখন সাদাচোখেও দৃশ্যমান, যদিও যথেষ্ট ব্যতিক্রম রয়েছে এবং ব্যতিক্রম সবসময় উদাহরণও নয়।

আজ আপনি ৯৯৯ এ ফ্রি ডায়াল করলেই পুলিশ আপনার দরজায় গিয়ে হাজির হচ্ছে। আপনি গহীন অরণ্য বা মাঝ নদীতে কোনো সমস্যায় পড়ে জাস্ট একটা কল করলেই আপনার পাশে পৌঁছে যাচ্ছেন বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা। করোনাকালে পুলিশ তার ইতিহাসের সেরা মানবিক ও সাহসী গল্প রচনা করেছে।

আর এটি সম্ভব হয়েছে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার দুরদর্শিতা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের তত্ত্বাবধান ও বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি)চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন এর দক্ষ নেতৃত্বের কারনে। পুলিশের এই পরিবর্তনের পিছনে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন বাংলাদেশ পুলিশের কিছু ডাইনামিক পুলিশ সদস্যরা।তাদের মধ্য অন্যতম একজন হলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) তেজগাঁও থানার ডাইনামিক ও মানবিক অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহসীন।

তারাই ধারবাহিকতায় প্রতি বছরের ন্যায় এই বছরও পবিত্র মাহে রমজানে ইফতারে পূর্ব মহুর্তে তেজগাঁও থানাধীন এলাকায় মাঠে ঘাটে রাস্তায় ফুটপাতে বাসে কিংবা সিএনজি তে গিয়ে পথচারীদের বিনামূল্যে স্বশরিলে ইফতার বিতরন করেন তেজগাঁও থানার সুযোগ্য অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহসীন।

বাংলাদেশ পুলিশ জনবান্ধব পুলিশিংয়ের জন্য ওসি মহসীন এখন এক নামে পরিচিত। তার চালু করা ‘হ্যালো ওসি’ কার্যক্রম চালু হওয়ার পর থেকে পুরো সিএমপি জুড়ে সুনাম কুঁড়িয়ে সারা দেশব্যাপি প্রশংসনীয় হয়েছেন তিনি।

এছাড়া আইনি শাসনের পাশাপাশি মানবিক পুলিশ হিসেবে ওসি মোহাম্মদ মহসীনের সুনাম রয়েছে। তিনি করোনাকালে খাদ্য, ওষুধ, রোগী পরিবহন সহ নানা জনবান্ধব কাজ করে যেই থানায় দায়িত্ব পালন করেছেন থানা এলাকার অসহায় বাসিন্দাদের পাশে দাঁড়িয়ে মানুষের নজরে এসেছেন খুব অল্প সময়ে । এছাড়াও সমগ্র বাংলাদেশে তার সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ক্রান্তিলগ্ন চট্টগ্রামের থাকা কালীন বিশেষ ভূমিকায় চট্টগ্রামকে মাদকমুক্ত করার পিছনে এক বিশাল অবদান রেখেছেন ওসি মোহাম্মদ মহসিন।

ওসি মোহাম্মদ মহসীন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন রমজানকে বলা হয় সংযম ও আত্মশুদ্ধির মাস। রমজান মাসের শুরু থেকে রাজধানীতে যেমন তীব্র গরম তার উপর থাকে যানজট সংকট প্রকট। আমাদের বর্তমান মাননীয় ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান স্যার রমজানে তিনি রাস্তায় ইফতার করেছে। যানজটে নিরসনে ট্রাফিক পুলিশ কে সহযোগিতা করার জন্য আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। তাই ট্রাফিক পুলিশে পাশে থেকে আমরা যানজট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছি । যানজটের কারনে অনেকে সময় মতো বাসায় গিয়ে ইফতার করতে পারেন না। বাসে বসে ইফতার কিনার ও কোনো সুযোগ নেই তাই আমি মানবিক দিক চিন্তা করে ভাম্যমান পথচারীদের জন্য আমার এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।

তেজগাঁও থানা এলাকার বর্তমান আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও জনকল্যান মুখি পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সোনার বাংলার অসমাপ্ত কাজগুলো করে যাচ্ছেন তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,তার অংশ হিসেবে ডিজিটাল বাংলার পরে, স্মার্ট বাংলা গড়ার লক্ষ্যে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন,আর আমরা তার হাতিয়ার হিসেবে দেশ ও দেশের জনগণের শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার লক্ষ্যে যে কোনো প্রতিকুলতার মোকাবেলা করে জনগণের মুখে হাসি ফোঁটানোর লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি, যেমন এখন সামাজিক উন্নয়নে বাধা হয়ে দাড়িয়েছে, কিশোর গ্যাং এর উৎপাত, মাদক, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, চাঁদাবাজি, মারামারি, রাহাজানি, চুরি ডাকাতি, এগুলো তেজগাঁও থানা এলাকায় এখন অনেকটাই কম, আমার কাছে কোনো দুষ্কৃতীকারীদের ছাড় নাই, সে ক্ষেত্রে আমি যে কোনো প্রতিকুলতার মোকাবেলা করে তেজগাঁও বাসীদের নিশ্চিন্তে বসবাস করার অভয় দিচ্ছি ইনশাআল্লাহ।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS