০৪:১৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

তথ্য দিন সেবা নিন’ ডিসি রিফাত রহমান শামীম

সেবা ও সদাচার, ডিএমপি’র অঙ্গীকার”-এই প্রতিপাদ্যকে উপজীব্য করে এগিয়ে যাচ্ছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।গৌরবময় এই পথচলায় ডিএমপি গুলশান বিভাগের সার্বিক নিরাপত্তা বিধানে নগরবাসীর আস্থার প্রতীক হয়ে উঠেছে ডিএমপি গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার(ডিসি) রিফাত রহমান শামীম(পিপিএম)।

১৯৭৬ সালের ১লা ফেব্রুয়ারি ৬ হাজার পুলিশ সদস্য এবং ১২টি থানা নিয়ে যাত্রা শুরু করে ডিএমপি। দীর্ঘ পথপরিক্রমায় ঢাকা মহানগরীর প্রায় ২ কোটি ২৫ লাখ নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ডিএমপি’র কার্যক্রম ৫০টি থানায় বিস্তৃত হয়েছে। বর্তমানে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে কাজ করছেন ৬ জন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিআইজি), ১২ জন যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (অতি. ডিআইজি), ৫৭ জন উপপুলিশ কমিশনারসহ (এসপি) ৩৪ হাজার অফিসার ও ফোর্স।

গত (৭ নভেম্বর)২৩ ইং ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমানের সই করা এক আদেশে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ) এর উপ-পুলিশ কমিশনার(ডিসি) রিফাত রহমান শামীম’কে বদলী করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) হিসেবে পদায়ন করা হয় ।

আপনার পুলিশ,আপনার পাশে। তথ্য দিন সেবা নিন’এ স্লোগান”কে সামনে রেখে গুলশান বিভাগ’কে অপরাধ মুক্ত রাখতে প্রতিনিয়ত নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ডিএমপি গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার(ডিসি)রিফাত রহমান শামীম(পিপিএম)।

গুলশান বিভাগের সার্বিক অবস্থার খবর জানতে চাইলে রিফাত রহমান শামীম আজকের বিজনেস বাংলাদেশ’কে জানান, বছর ঘুরে আবারও এলো রহমত,মাগফেরাত আর নাজাতের সওগাত নিয়ে মাহে রমজান।শুরু হলো সংযম-সাধনা, আত্মশুদ্ধি আর ত্যাগের মাস। কয়েকদিন পরেই পবিত্র ঈদুল ফিতর। গুলশান ও বনানী, ঢাকার অভিজাত এলাকা। এখানে দেশি-বিদেশি কূটনৈতিক থেকে শুরু বিত্তশালীদের বসবাস। উক্ত এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ঈদুল ফিতর কে সামনে রেখে অপরাধীরা বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়তে না পারে সেদিকে ও কঠোর নজরদারীতে রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো জানান ঢাকা শহরের অন্যতম একটি সমস্যা যানজট।রমজান মাসে তীব্র যানজট দেখা দেয় রাজধানীতে। যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি ডিসি রিফাত রহমান শামীম স্বশরীলে গুলশান,বারিধারা,বনানী,ভাটারা,বাড্ডাসহ প্রতিটি এলাকায় গুলশান বিভাগের সকল অফিসারগণ ট্রাফিক পুলিশকে সহযোগিতা করছে কিনা সেটা ও তদারকি করছেন প্রতিনিয়ত।ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি গুলশান বিভাগের প্রতিটি পুলিশ সদস্যবৃন্দ যানজট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছেন। সর্বপরি ট্রাফিক এই সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগিয়ে আসার ও আহ্বান জানান তিনি।

রিফাত রহমান শামীম মাদারীপুর জেলার কৃতি সন্তান। তিনি ২৪ তম বিসিএস শেষে ২০০৫ সালে পুলিস সুপার হিসেবে যোগদান করেন। তাকে জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে জন্য পিপিএম (সেবা)পদে পদক প্রদান পান তিনি।

২০১৮ সালের আগস্ট মাসে মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার হিসেবে ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার (এসপি) নির্বাচিত হন পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম।সেই সময়ে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজির সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সভায় তার হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন ঢাকা রেঞ্জের ডি আই জি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন,বর্তমান পুলিশের মহাপরিদর্শক(আইজিপি)।

রিফাত রহমান শামীম সবসময় মানুষের কল্যাণে নিজেকে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা করেন। মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার থাকা কালীন কনকনে শীতে অসহায় ছিন্নমূল শীতার্ত মানুষকে একটু উষ্ণতা দিতে কম্বল হাতে ফুটপাতে হাজির হোন রিফাত রহমান শামীম ।ত ৎকালীন পুলিশ সুপারের কম্বল পেয়ে খুশিতে আত্নাহারা অসহায় ছিন্নমূল মানুষ গুলো।

রিফাত রহমান শামীম একজন সাংবাদিক বান্ধব পুলিশ সুপার ছিলেন। বিদায় বেলায় পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম (পিপিএম)-কে বদলি জনিত বিদায় সংবর্ধনা জানিয়েছেন মানিকগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সম্মানিত সাংবাদিকরা।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

ইসরায়েলে আঘাত হেনেছে হিজবুল্লাহর ড্রোন, আহত ১৮

তথ্য দিন সেবা নিন’ ডিসি রিফাত রহমান শামীম

প্রকাশিত : ১০:৪৬:০০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ ২০২৪

সেবা ও সদাচার, ডিএমপি’র অঙ্গীকার”-এই প্রতিপাদ্যকে উপজীব্য করে এগিয়ে যাচ্ছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।গৌরবময় এই পথচলায় ডিএমপি গুলশান বিভাগের সার্বিক নিরাপত্তা বিধানে নগরবাসীর আস্থার প্রতীক হয়ে উঠেছে ডিএমপি গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার(ডিসি) রিফাত রহমান শামীম(পিপিএম)।

১৯৭৬ সালের ১লা ফেব্রুয়ারি ৬ হাজার পুলিশ সদস্য এবং ১২টি থানা নিয়ে যাত্রা শুরু করে ডিএমপি। দীর্ঘ পথপরিক্রমায় ঢাকা মহানগরীর প্রায় ২ কোটি ২৫ লাখ নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ডিএমপি’র কার্যক্রম ৫০টি থানায় বিস্তৃত হয়েছে। বর্তমানে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে কাজ করছেন ৬ জন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিআইজি), ১২ জন যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (অতি. ডিআইজি), ৫৭ জন উপপুলিশ কমিশনারসহ (এসপি) ৩৪ হাজার অফিসার ও ফোর্স।

গত (৭ নভেম্বর)২৩ ইং ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমানের সই করা এক আদেশে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ) এর উপ-পুলিশ কমিশনার(ডিসি) রিফাত রহমান শামীম’কে বদলী করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) হিসেবে পদায়ন করা হয় ।

আপনার পুলিশ,আপনার পাশে। তথ্য দিন সেবা নিন’এ স্লোগান”কে সামনে রেখে গুলশান বিভাগ’কে অপরাধ মুক্ত রাখতে প্রতিনিয়ত নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ডিএমপি গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার(ডিসি)রিফাত রহমান শামীম(পিপিএম)।

গুলশান বিভাগের সার্বিক অবস্থার খবর জানতে চাইলে রিফাত রহমান শামীম আজকের বিজনেস বাংলাদেশ’কে জানান, বছর ঘুরে আবারও এলো রহমত,মাগফেরাত আর নাজাতের সওগাত নিয়ে মাহে রমজান।শুরু হলো সংযম-সাধনা, আত্মশুদ্ধি আর ত্যাগের মাস। কয়েকদিন পরেই পবিত্র ঈদুল ফিতর। গুলশান ও বনানী, ঢাকার অভিজাত এলাকা। এখানে দেশি-বিদেশি কূটনৈতিক থেকে শুরু বিত্তশালীদের বসবাস। উক্ত এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ঈদুল ফিতর কে সামনে রেখে অপরাধীরা বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়তে না পারে সেদিকে ও কঠোর নজরদারীতে রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো জানান ঢাকা শহরের অন্যতম একটি সমস্যা যানজট।রমজান মাসে তীব্র যানজট দেখা দেয় রাজধানীতে। যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি ডিসি রিফাত রহমান শামীম স্বশরীলে গুলশান,বারিধারা,বনানী,ভাটারা,বাড্ডাসহ প্রতিটি এলাকায় গুলশান বিভাগের সকল অফিসারগণ ট্রাফিক পুলিশকে সহযোগিতা করছে কিনা সেটা ও তদারকি করছেন প্রতিনিয়ত।ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি গুলশান বিভাগের প্রতিটি পুলিশ সদস্যবৃন্দ যানজট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছেন। সর্বপরি ট্রাফিক এই সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগিয়ে আসার ও আহ্বান জানান তিনি।

রিফাত রহমান শামীম মাদারীপুর জেলার কৃতি সন্তান। তিনি ২৪ তম বিসিএস শেষে ২০০৫ সালে পুলিস সুপার হিসেবে যোগদান করেন। তাকে জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে জন্য পিপিএম (সেবা)পদে পদক প্রদান পান তিনি।

২০১৮ সালের আগস্ট মাসে মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার হিসেবে ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার (এসপি) নির্বাচিত হন পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম।সেই সময়ে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজির সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সভায় তার হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন ঢাকা রেঞ্জের ডি আই জি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন,বর্তমান পুলিশের মহাপরিদর্শক(আইজিপি)।

রিফাত রহমান শামীম সবসময় মানুষের কল্যাণে নিজেকে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা করেন। মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার থাকা কালীন কনকনে শীতে অসহায় ছিন্নমূল শীতার্ত মানুষকে একটু উষ্ণতা দিতে কম্বল হাতে ফুটপাতে হাজির হোন রিফাত রহমান শামীম ।ত ৎকালীন পুলিশ সুপারের কম্বল পেয়ে খুশিতে আত্নাহারা অসহায় ছিন্নমূল মানুষ গুলো।

রিফাত রহমান শামীম একজন সাংবাদিক বান্ধব পুলিশ সুপার ছিলেন। বিদায় বেলায় পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম (পিপিএম)-কে বদলি জনিত বিদায় সংবর্ধনা জানিয়েছেন মানিকগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সম্মানিত সাংবাদিকরা।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS