০৩:১৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

পাবনায় মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় গ্রেফতার ৩

প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত হওয়া সুজানগর উপজেলা নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার জেরে উপজেলার সাগরকান্দি এলাকার মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

শনিবার (১১ মে) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের কাশিপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাবের একটি দল। রবিবার র‌্যাবের সিপিসি ২ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর এহতেশামুল হক খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতাকৃতরা হলেন, আমিনপুর থানার গোয়ালকান্দি গ্রামের আ. কুদ্দুস সরদারের ছেলে মিজান সরদার (৩৩)। তিনি এজাহারনামীয় প্রধান আসামি। এছাড়া একই এলাকার মৃত হাসমত আলী শেখের ছেলে আ. মজিদ শেখ (৪২) ও শ্রীপুর গ্রামের গোলজার ফকিরের ছেলে রহমান ফকির (৩২)।
এর আগে গত ৯ মে একজনের নাম উল্লেখসহ ৪০/৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে সুজানগরের আমিনপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ভূক্তভোগী শ্রী ধীরেন্দ্রনাথ কুন্ডু।

প্রসঙ্গত, গত ৮ মে প্রথম ধাপে সুজাগর উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিজয়ী হন মোটরসাইকেল প্রতীকের আব্দুল বাতেন বিজয়ী ও আনারস প্রতীকের শাহিনুজ্জামান শাহিন পরাজিত হন। ফলাফল ঘোষণার পর থেকেই পরাজিত শাহিনের সমর্থকদের মারধর ও বাড়িঘর, দোকানপাটে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় বিজয়ী আব্দুল বাতেনের সমর্থকরা। এসময় একটি মন্দিরেও হামলা ও ভাঙচুর চালায় তারা। এসব হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় পৃথক ৫ টি মামলা করেন ভূক্তভোগীরা।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

পাবনায় মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় গ্রেফতার ৩

প্রকাশিত : ১১:৪৪:৪১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০২৪

প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত হওয়া সুজানগর উপজেলা নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার জেরে উপজেলার সাগরকান্দি এলাকার মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

শনিবার (১১ মে) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের কাশিপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাবের একটি দল। রবিবার র‌্যাবের সিপিসি ২ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর এহতেশামুল হক খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতাকৃতরা হলেন, আমিনপুর থানার গোয়ালকান্দি গ্রামের আ. কুদ্দুস সরদারের ছেলে মিজান সরদার (৩৩)। তিনি এজাহারনামীয় প্রধান আসামি। এছাড়া একই এলাকার মৃত হাসমত আলী শেখের ছেলে আ. মজিদ শেখ (৪২) ও শ্রীপুর গ্রামের গোলজার ফকিরের ছেলে রহমান ফকির (৩২)।
এর আগে গত ৯ মে একজনের নাম উল্লেখসহ ৪০/৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে সুজানগরের আমিনপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ভূক্তভোগী শ্রী ধীরেন্দ্রনাথ কুন্ডু।

প্রসঙ্গত, গত ৮ মে প্রথম ধাপে সুজাগর উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিজয়ী হন মোটরসাইকেল প্রতীকের আব্দুল বাতেন বিজয়ী ও আনারস প্রতীকের শাহিনুজ্জামান শাহিন পরাজিত হন। ফলাফল ঘোষণার পর থেকেই পরাজিত শাহিনের সমর্থকদের মারধর ও বাড়িঘর, দোকানপাটে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় বিজয়ী আব্দুল বাতেনের সমর্থকরা। এসময় একটি মন্দিরেও হামলা ও ভাঙচুর চালায় তারা। এসব হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় পৃথক ৫ টি মামলা করেন ভূক্তভোগীরা।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে