০৪:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

কুমিল্লায় পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই, অস্ত্রসহ গ্রেফতার: ৫

কুমিল্লায় পৃথক অভিযানে ছিনতাই চক্রের মূল হোতাসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে একটি চক্র নগরীতে পুলিশ পরিচয়ে হ্যান্ডকাপ ও অস্ত্রশস্ত্র দেখিয়ে ছিনতাই করতো।

রোববার (১২ মে) দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান কুমিল্লা পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান। পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই প্রেসব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- কুমিল্লা নগরীর ২য় মুরাদপুর এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে সুমন ও একই এলাকার মৃত সেলিম মিয়ার ছেলে সুজন, নগরীর উত্তর চর্থা এলাকার খোকন মিয়ার ছেলে মেহেদী হাসান, কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার মো. জসিম উদ্দিনের ছেলে মো. রাকিব হোসেন ও কুমিল্লা শহরতলীর চাঁনপুর গ্রামের সুমন মিয়ার ছেলে রাহিদুল ইসলাম মাহি।

পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান জানান, গ্রেফতারকৃত ছিনতাইকারী চক্রটি কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন স্থানে মোটরসাইকেলযোগে এসে পথচারীদেরকে পুলিশ পরিচয়ে হ্যান্ডকাপ ও অস্ত্রশস্ত্র দেখিয়ে ছিনতাই করতো। পরে বৃহস্পতিবার (৯ মে) পুলিশের অভিযানে ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় সুমনকে গ্রেফতার করা হয়। সুমনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তার দেওয়া তথ্যমতে তার সহযোগী সুজনকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে, ১টি পাইপগান, ২টি কার্তুজ, ১টি রামদা এবং ওয়ারড্রফ এর ভেতর থেকে ছিনতাইকৃত ১টি বারো আনা ওজনের স্বর্ণের চুড়ি, বিভিন্ন তালার চাবি ১১০টি, হাইওয়ে পুলিশের ডিপ সাইন সংযুক্ত ২ সেট পোশাক ও ডিবি পুলিশের কেডস জুতা ১ জোড়া, ১টি হ্যান্ডকাপ, ছিনতাইকৃত মহিলাদের ভ্যানিটি ব্যাগ ১০টি, ২টি মোটরসাইকেলের রেজিস্ট্রেশন নম্বর কম্পিউটারে কম্পোজকৃত লেমিনিটিং করা এবং তার ভাড়া বাসার উঠানের পাশে রাখা ১টি হেলমেট’সহ ১টি পালসার ১৫০ সিসি মোটরসাইকেল, ১টি র‍্যাপ রোড মাস্টার মোটরসাইকেল, ১টি পালসার ১৫০ সিসিমোটর সাইকেল, ১টি পিকআপ গাড়ী, ১টি তালা কাটার, ষ্টীলের কভার সহ ২টি চাকু, ১টি এসএস ষ্টীলের হাতলযুক্ত দ্বিফলা কুড়াল, ৫টি কাঠের হাতলযুক্ত হাতুড়ী, ৩টি বিভিন্ন সাইজের সেলাই রেঞ্জ এবং ছিনতাইকৃত ১১টি ব্যাক প্যাক ও ১০টি মানি ব্যাগ, ১টি সুইচ গিয়ার চাকু, ছিনতাইকৃত ৫টি মহিলাদের পার্সব্যাগ এবং ছিনতাই পরবর্তী ভাগে পাওয়া ১২ হাজার ৭৫০ টাকা উদ্ধার করা হয়।

এদিকে প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, আরেকটি ছিনতাইকারী দল নগরীর ঠাকুরপাড়ায় সিএনজিযোগে এক মহিলার কাছ থেকে স্বর্নালংকার ছিনতাই করে। পরে অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় শনিবার (১১ মে) রাতে সিএনজি চালক মো. রাকিব হোসেনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পরে সিএনজি চালকের দেওয়া তথ্যমতে অপর দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।

এসময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত সিএনজি ১টি, ১ ভরি ৪ আনা ওজনের স্বর্ণ, ১টি দেশীয় এলজি, ২ রাউন্ড কার্তুজ, ১টি আইফোন, ১টি চাপাতি উদ্ধার করা হয়।

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) নাজমুল হাসান, কুমিল্লা সদর সার্কেল কামরান হোসেন, কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ওসি ফিরোজ হোসেন, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি রাজেশ বড়ুয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) মংনে থোয়াই মারমা প্রমুখ।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS

ট্যাগ :

কুমিল্লায় পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই, অস্ত্রসহ গ্রেফতার: ৫

প্রকাশিত : ০৫:৩১:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪

কুমিল্লায় পৃথক অভিযানে ছিনতাই চক্রের মূল হোতাসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে একটি চক্র নগরীতে পুলিশ পরিচয়ে হ্যান্ডকাপ ও অস্ত্রশস্ত্র দেখিয়ে ছিনতাই করতো।

রোববার (১২ মে) দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান কুমিল্লা পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান। পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই প্রেসব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- কুমিল্লা নগরীর ২য় মুরাদপুর এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে সুমন ও একই এলাকার মৃত সেলিম মিয়ার ছেলে সুজন, নগরীর উত্তর চর্থা এলাকার খোকন মিয়ার ছেলে মেহেদী হাসান, কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার মো. জসিম উদ্দিনের ছেলে মো. রাকিব হোসেন ও কুমিল্লা শহরতলীর চাঁনপুর গ্রামের সুমন মিয়ার ছেলে রাহিদুল ইসলাম মাহি।

পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান জানান, গ্রেফতারকৃত ছিনতাইকারী চক্রটি কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন স্থানে মোটরসাইকেলযোগে এসে পথচারীদেরকে পুলিশ পরিচয়ে হ্যান্ডকাপ ও অস্ত্রশস্ত্র দেখিয়ে ছিনতাই করতো। পরে বৃহস্পতিবার (৯ মে) পুলিশের অভিযানে ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় সুমনকে গ্রেফতার করা হয়। সুমনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তার দেওয়া তথ্যমতে তার সহযোগী সুজনকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে, ১টি পাইপগান, ২টি কার্তুজ, ১টি রামদা এবং ওয়ারড্রফ এর ভেতর থেকে ছিনতাইকৃত ১টি বারো আনা ওজনের স্বর্ণের চুড়ি, বিভিন্ন তালার চাবি ১১০টি, হাইওয়ে পুলিশের ডিপ সাইন সংযুক্ত ২ সেট পোশাক ও ডিবি পুলিশের কেডস জুতা ১ জোড়া, ১টি হ্যান্ডকাপ, ছিনতাইকৃত মহিলাদের ভ্যানিটি ব্যাগ ১০টি, ২টি মোটরসাইকেলের রেজিস্ট্রেশন নম্বর কম্পিউটারে কম্পোজকৃত লেমিনিটিং করা এবং তার ভাড়া বাসার উঠানের পাশে রাখা ১টি হেলমেট’সহ ১টি পালসার ১৫০ সিসি মোটরসাইকেল, ১টি র‍্যাপ রোড মাস্টার মোটরসাইকেল, ১টি পালসার ১৫০ সিসিমোটর সাইকেল, ১টি পিকআপ গাড়ী, ১টি তালা কাটার, ষ্টীলের কভার সহ ২টি চাকু, ১টি এসএস ষ্টীলের হাতলযুক্ত দ্বিফলা কুড়াল, ৫টি কাঠের হাতলযুক্ত হাতুড়ী, ৩টি বিভিন্ন সাইজের সেলাই রেঞ্জ এবং ছিনতাইকৃত ১১টি ব্যাক প্যাক ও ১০টি মানি ব্যাগ, ১টি সুইচ গিয়ার চাকু, ছিনতাইকৃত ৫টি মহিলাদের পার্সব্যাগ এবং ছিনতাই পরবর্তী ভাগে পাওয়া ১২ হাজার ৭৫০ টাকা উদ্ধার করা হয়।

এদিকে প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, আরেকটি ছিনতাইকারী দল নগরীর ঠাকুরপাড়ায় সিএনজিযোগে এক মহিলার কাছ থেকে স্বর্নালংকার ছিনতাই করে। পরে অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় শনিবার (১১ মে) রাতে সিএনজি চালক মো. রাকিব হোসেনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পরে সিএনজি চালকের দেওয়া তথ্যমতে অপর দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।

এসময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত সিএনজি ১টি, ১ ভরি ৪ আনা ওজনের স্বর্ণ, ১টি দেশীয় এলজি, ২ রাউন্ড কার্তুজ, ১টি আইফোন, ১টি চাপাতি উদ্ধার করা হয়।

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) নাজমুল হাসান, কুমিল্লা সদর সার্কেল কামরান হোসেন, কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ওসি ফিরোজ হোসেন, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি রাজেশ বড়ুয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) মংনে থোয়াই মারমা প্রমুখ।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS