ঢাকা রাত ৩:৩১, বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আমাদের ড্রেসিংরুমে কোনো গ্রুপিং নেই : বাবর

উপমহাদেশের ক্রীড়া সংস্কৃতিতে নেতিবাচক একটি দিক হলো দলের মধ্যে গ্রুপিং। যা কি না বাজে প্রভাব ফেলে পুরো দলের ওপর। তবে ধীরে ধীরে প্রায় সব দলই এই অবস্থা থেকে সরে আসছে, গ্রুপিংয়ের হাত থেকে মুক্ত হচ্ছে সবাই।

সে ধারাবাহিকতায় পাকিস্তান ক্রিকেট দলের বর্তমান অধিনায়ক বাবর আজম জোর গলায় বলেছেন, তাদের ড্রেসিংরুমে কোন গ্রুপিং নেই। সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরামর্শ করে স্বাধীনভাবেই যেকোন সিদ্ধান্ত নেয়ার ব্যাপারে আশাবাদী বাবর আজম।

শুক্রবার লাহোরে সংবাদমাধ্যমে পাকিস্তান অধিনায়ক বলেছেন, ‘এই দলটা তারুণ্যে ভরপুর। আমাদের ড্রেসিংরুমে কোন মনোমালিন্য কিংবা গ্রুপিং নেই। এই দলের সবাই এক। প্রত্যেক খেলোয়াড় একে অপরকে সম্মান করে এবং কঠিন সময় পাশে দাঁড়ায়, ভালো পারফরম্যান্সে খুশি হয়। দলের মধ্যে কেউ কাউকে টেনে নামাতে চায় না।’

সোমবার (২৩ নভেম্বর) পাকিস্তান ক্রিকেট দলের প্রায় ৬০ জনের বিশাল বহর নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওনা হবে। এ সফরে তিন টি-টোয়েন্টি ও দুই টেস্ট খেলবে পাকিস্তান। এর বাইরে পাকিস্তান ‘এ’ দলেরও রয়েছে বেশ কিছু চারদিন ও কুড়ি ওভারের ম্যাচ।

এ নিউজিল্যান্ড সফরেই প্রথমবারের মতো পাকিস্তানের সব ফরম্যাটের অধিনায়কত্ব করবেন বাবর। তবে এতে বাড়তি কোন চাপ অনুভব করছেন না বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যান। কেননা ক্রিকেট ক্যারিয়ারে সবসময় চাপের সঙ্গে লড়াই করেই খেলেছেন তিনি।

বাবরের ভাষ্য, ‘আমি সবসময় চাপকে সঙ্গী করেই খেলেছি। পাকিস্তান দলে যখন প্রথমবারের মতো এসেছি তখন পারফর্ম করার চাপ ছিল। প্রতিদিন নতুন নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয় আমাদের। এখন নতুন চ্যালেঞ্জ ও দায়িত্ব এসেছে। সাদা বলের ক্রিকেটে পাওয়া অভিজ্ঞতা টেস্টে কাজে লাগানোর চেষ্টা করব।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমি সিনিয়রদের কাছ থেকে পরামর্শ নেবো। সরফরাজ (আহমেদ) ও আজহার (আলি)র কাছ থেকে আমি অনেক শিখেছি। যা আমি শিখেছি, যা তারা শিখিয়েছেন সেগুলো বাস্তবায়নের চেষ্টা থাকবে। প্রয়োজন পড়লে তাদের সঙ্গে আবার কথা বলব। দিনশেষে স্বতন্ত্রভাবেই আমার সিদ্ধান্তগুলো নেবো।’

বিজনেস বাংলাদেশ/ এস শিকদার

এ বিভাগের আরও সংবাদ