০২:০০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

বীরমুক্তিযোদ্ধা হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে সাবেক অধ্যক্ষ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা এম এ ওয়াজেদ আলীকে হত্যা মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ।রোববার, ২৯জানুয়ারী দুপুরে জেলা শহরের মিশন মোড় চত্বরে ওই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা নিহত পাটগ্রাম মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. ওয়াজেদ আলীর স্মৃতিচারণ করে বলেন, শুধু পাটগ্রাম নয়, জেলার সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি ছিলেন তিনি। এই হত্যাকান্ডের মূল আসামী ঘটনার ১০দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি। বীর মুক্তিযোদ্ধা এম ওয়াজেদ আলীকে হত্যা একটি পরিকল্পিত ঘটনা বলে দাবি করে ঘটনায় জড়িত মুল আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার এবং ঘটনার পিছনের ঘটনা খুঁজে বের করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনির প্রতি দাবী জানানো হয়।

মানববন্ধনে একাত্মতা ঘোষনা করে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড, মতিয়ার রহমান। বক্তব্য দেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সদর উপজেলা কমান্ডার আবু বকর সিদ্দিক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কামান্ডার মেজবাহ উদ্দিন প্রমুখ।

পরে তাঁরা বিক্ষোভ মিছিলসহ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেন। স্মারকলিপি গ্রহন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব টি এম এ মমিন। এসময় তিনি বলেন, আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছি। তদন্ত চলছে। এ পর্যন্ত ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। দ্রুত মুল আসামী গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গত ২০জানুয়ারী রাতে পৌরসভার নিউ পূর্ব পারার নিজস্ব বাড়ীর সামনে সাবেক অধ্যক্ষ বীরমুক্তিযোদ্ধা এম ওয়াজেদ আলী (৬৯) দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের দারা আহত হন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই রাতেই নিহত হন তিনি। পরদিন নিহতের ছোট ছেলে রিফাত হাসান (২৯) বাদী হয়ে পাটগ্রাম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তে নেমে পাটগ্রাম থানা পুলিশ সন্দেহভাজন একজনকে গ্রেপ্তার করলেও এজাহারভুক্ত মূল আসামিকে ঘটনার ১০দিন পেরিয়ে গেলেও গ্রেপ্তার করতে পারিনি।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব

জনপ্রিয়

বীরমুক্তিযোদ্ধা হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি

প্রকাশিত : ০৩:১৬:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে সাবেক অধ্যক্ষ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা এম এ ওয়াজেদ আলীকে হত্যা মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ।রোববার, ২৯জানুয়ারী দুপুরে জেলা শহরের মিশন মোড় চত্বরে ওই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা নিহত পাটগ্রাম মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধা এম. ওয়াজেদ আলীর স্মৃতিচারণ করে বলেন, শুধু পাটগ্রাম নয়, জেলার সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি ছিলেন তিনি। এই হত্যাকান্ডের মূল আসামী ঘটনার ১০দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি। বীর মুক্তিযোদ্ধা এম ওয়াজেদ আলীকে হত্যা একটি পরিকল্পিত ঘটনা বলে দাবি করে ঘটনায় জড়িত মুল আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার এবং ঘটনার পিছনের ঘটনা খুঁজে বের করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনির প্রতি দাবী জানানো হয়।

মানববন্ধনে একাত্মতা ঘোষনা করে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড, মতিয়ার রহমান। বক্তব্য দেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সদর উপজেলা কমান্ডার আবু বকর সিদ্দিক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কামান্ডার মেজবাহ উদ্দিন প্রমুখ।

পরে তাঁরা বিক্ষোভ মিছিলসহ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেন। স্মারকলিপি গ্রহন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব টি এম এ মমিন। এসময় তিনি বলেন, আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছি। তদন্ত চলছে। এ পর্যন্ত ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। দ্রুত মুল আসামী গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গত ২০জানুয়ারী রাতে পৌরসভার নিউ পূর্ব পারার নিজস্ব বাড়ীর সামনে সাবেক অধ্যক্ষ বীরমুক্তিযোদ্ধা এম ওয়াজেদ আলী (৬৯) দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের দারা আহত হন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই রাতেই নিহত হন তিনি। পরদিন নিহতের ছোট ছেলে রিফাত হাসান (২৯) বাদী হয়ে পাটগ্রাম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তে নেমে পাটগ্রাম থানা পুলিশ সন্দেহভাজন একজনকে গ্রেপ্তার করলেও এজাহারভুক্ত মূল আসামিকে ঘটনার ১০দিন পেরিয়ে গেলেও গ্রেপ্তার করতে পারিনি।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব