১২:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

চুক্তি সম্পন্ন, ভারত থেকে আসছে ট্রেনের ২০০ যাত্রীবাহী বগি

যাত্রীবাহী ট্রেনের ২০০ বগি কিনতে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান আরআইটিইএস লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে ২০ মাস পর থেকে বগি দেওয়া শুরু হবে এবং ৩৬ মাসে মধ্যে সব বগি হস্তান্তর করা হবে।

সোমবার (২০ মে) রাজধানীর রেলওয়ে ভবনে এই চুক্তি সই করা হয়।

ভারতকে ধন্যবাদ জানিয়ে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম বলেন, “আমাদের ক্যারেজের খুব সমস্যা। এই মুহূর্তে তারা (ভারতীয়) যে ক্যারেজ দিচ্ছেন এর জন্য ধন্যবাদ। আগামী দুই মাসের মধ্যে যদি দুই সেট ক্যারেজ দেওয়া হয় তবে সেটা আমাদের জন্য ভালো হবে। বাকিগুলো শিডিউল করে নিলে হবে।”

রেলসচিব হুমায়ুন কবীর বলেন, “সম্প্রতি দেশের দক্ষিণ অংশে রেলের সংযোগ স্থাপন হয়েছে। এতে ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণের জেলাগুলোর যোগাযোগ বাড়ছে। এর ফলে রেল যোগাযোগকে ত্বরান্বিত করবে এসব প্যাসেঞ্জার ক্যারেজ।”

রেলের মহাপরিচালক সরদার সাহাদাত আলী বলেন, “রেলের লক্ষ্য হচ্ছে যোগাযোগ পরিধি বাড়ানো, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে রেল সংযোগ স্থাপন করা, যাত্রীসেবা দেওয়া। আর এই প্রকল্পের মাধ্যমে সেটা অনেকাংশে সম্ভব হবে।”

অনুষ্ঠানে রেলপথ সচিব হুমায়ুন কবীর, মহাপরিচালক সরদার সাহাদাত আলী, ভারতীয় কোম্পানির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাহুল মিত্তাল, ভারতীয় রেলওয়ের প্রোডাকশন ইউনিটের অতিরিক্ত সদস্য সঞ্জয় কুমার পংকজ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের হেড অফ করপোরেশন মিচেল ক্রেজা ও রেলওয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/BH

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

চুক্তি সম্পন্ন, ভারত থেকে আসছে ট্রেনের ২০০ যাত্রীবাহী বগি

প্রকাশিত : ০৭:১৮:২০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

যাত্রীবাহী ট্রেনের ২০০ বগি কিনতে ভারতীয় প্রতিষ্ঠান আরআইটিইএস লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে ২০ মাস পর থেকে বগি দেওয়া শুরু হবে এবং ৩৬ মাসে মধ্যে সব বগি হস্তান্তর করা হবে।

সোমবার (২০ মে) রাজধানীর রেলওয়ে ভবনে এই চুক্তি সই করা হয়।

ভারতকে ধন্যবাদ জানিয়ে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিম বলেন, “আমাদের ক্যারেজের খুব সমস্যা। এই মুহূর্তে তারা (ভারতীয়) যে ক্যারেজ দিচ্ছেন এর জন্য ধন্যবাদ। আগামী দুই মাসের মধ্যে যদি দুই সেট ক্যারেজ দেওয়া হয় তবে সেটা আমাদের জন্য ভালো হবে। বাকিগুলো শিডিউল করে নিলে হবে।”

রেলসচিব হুমায়ুন কবীর বলেন, “সম্প্রতি দেশের দক্ষিণ অংশে রেলের সংযোগ স্থাপন হয়েছে। এতে ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণের জেলাগুলোর যোগাযোগ বাড়ছে। এর ফলে রেল যোগাযোগকে ত্বরান্বিত করবে এসব প্যাসেঞ্জার ক্যারেজ।”

রেলের মহাপরিচালক সরদার সাহাদাত আলী বলেন, “রেলের লক্ষ্য হচ্ছে যোগাযোগ পরিধি বাড়ানো, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে রেল সংযোগ স্থাপন করা, যাত্রীসেবা দেওয়া। আর এই প্রকল্পের মাধ্যমে সেটা অনেকাংশে সম্ভব হবে।”

অনুষ্ঠানে রেলপথ সচিব হুমায়ুন কবীর, মহাপরিচালক সরদার সাহাদাত আলী, ভারতীয় কোম্পানির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাহুল মিত্তাল, ভারতীয় রেলওয়ের প্রোডাকশন ইউনিটের অতিরিক্ত সদস্য সঞ্জয় কুমার পংকজ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের হেড অফ করপোরেশন মিচেল ক্রেজা ও রেলওয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/BH