০২:২৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪

কুমিল্লায় দেয়াল ধসে শ্রেণিকক্ষে প্রাণ গেল ৫ম শ্রেণির স্কুল ছাত্রের

কু‌মিল্লা নগরীর শাকতলা এলাকায় স্কুলের পাশে ভবনের দেয়াল ধসে শ্রেণিকক্ষে প্রাণ গেল পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। এ ঘটনা আহত হয়েছেন এক স্কুল শিক্ষক।
সোমবার (২৭ মে) সকাল ১১ ঘটিকায় কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের নূর আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে সকাল পৌনে ১১ টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নির্মাণীন সাত তলা ভবনের দেয়াল ধ‌সে এই শিক্ষার্থী ঘটনাস্থলেই মারা যায়।। দুর্ঘটনার সময় ক্লাসরুমে ছিল ওই শিক্ষক ও শিক্ষার্থী।
নিহত সাগর শাকতলা এলাকার অলি আহমেদের বড় ছেলে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন সদর দক্ষিণ উপজেলার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আলমগীর ভুইয়া।
এদিকে প্রবল ঘূর্ণিঝড় রিমালের কারণে সারাদেশে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সোমবার বন্ধ থাকলে ও সরকারি আর্দেশ অমান্য করে নূর আই‌ডিয়াল স্কুল এন্ড ক‌লে‌জের সভাপতি আশিকুর রহমার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি খোলা রাখার নির্দেশ দেন।
এ বিষয় জানতে চাইলে নূর আই‌ডিয়াল স্কুল এন্ড ক‌লে‌জের সভাপতি আশিকুর রহমার,সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে মুঠো ফোনটি বন্ধ করে দেন, একাধিকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায় নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নূর আইডিয়াল স্কুল ও কলেজের টিনশেড বিল্ডিংয়ে ক্লাশ করছিলো সাগর ও তার সহপাঠীরা। এ সময় হঠাৎ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির নির্মাণধীন ৬ তলার উপরের অংশ ভেঙ্গে পড়ে। এ সময় ইট পাথরের নিচে চাপা পড়ে যায় সাগর। স্থানীয়রা সাগরকে উদ্ধার করে কুমিল্লা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মোঃ রাসেল খান তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
হাসপাতালের চিকিৎসক রাসেল জানান, সাগরের মাথায় প্রচন্ড আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারনা করছি তাকে হসপিটালে নিয়ে আসার আগেই মৃত্যুবরণ করে।
নিহত সাগরের বাবা অলি আহমেদ জানান, তার দুই ছেলের মধ্য সাগর বড়। সকালে স্কুলের জন্য বাসা থেকে বের হয়। তারপর লোকমুখে শুনি স্কুলে ভবন ভেঙ্গে পড়ে তার ছেলে মারা যায়। এ ঘূর্ণিঝড়ের মধ্যে স্কুল তারা কেন খোলা রাখলো। যে বা যাদের গাফিলতির কারনেই হয়ে থাকে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই, ছেলের মৃত্যুর বিচার চাই বলে দাবি জানান।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ সার্কেল এএসপি এমরানুল হোসেন মারুফ জানান, নির্মাণাধীন সাত তলা ভবনটি অরক্ষৃতভাবেই তাদের কাজ চালাচ্ছিল।  প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয় যে,  নির্মাণ কাজ করাকালীন সময়ে কোন নিরাপত্তা বেষ্টনী না রাখায় সেই পিলারটি স্কুলের উপর পড়ে  এবং ওই ছাত্র নিহতের ঘটনা ঘটে।  এই ঘটনায় একই স্কুল শিক্ষক আহত রয়েছে বলেও জেনেছি।  ঘটনার সাথে দায়ী যারাই হোক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ট্যাগ :
জনপ্রিয়

কুমিল্লায় দেয়াল ধসে শ্রেণিকক্ষে প্রাণ গেল ৫ম শ্রেণির স্কুল ছাত্রের

প্রকাশিত : ০৯:২৯:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪
কু‌মিল্লা নগরীর শাকতলা এলাকায় স্কুলের পাশে ভবনের দেয়াল ধসে শ্রেণিকক্ষে প্রাণ গেল পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। এ ঘটনা আহত হয়েছেন এক স্কুল শিক্ষক।
সোমবার (২৭ মে) সকাল ১১ ঘটিকায় কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের নূর আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে সকাল পৌনে ১১ টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নির্মাণীন সাত তলা ভবনের দেয়াল ধ‌সে এই শিক্ষার্থী ঘটনাস্থলেই মারা যায়।। দুর্ঘটনার সময় ক্লাসরুমে ছিল ওই শিক্ষক ও শিক্ষার্থী।
নিহত সাগর শাকতলা এলাকার অলি আহমেদের বড় ছেলে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন সদর দক্ষিণ উপজেলার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আলমগীর ভুইয়া।
এদিকে প্রবল ঘূর্ণিঝড় রিমালের কারণে সারাদেশে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সোমবার বন্ধ থাকলে ও সরকারি আর্দেশ অমান্য করে নূর আই‌ডিয়াল স্কুল এন্ড ক‌লে‌জের সভাপতি আশিকুর রহমার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি খোলা রাখার নির্দেশ দেন।
এ বিষয় জানতে চাইলে নূর আই‌ডিয়াল স্কুল এন্ড ক‌লে‌জের সভাপতি আশিকুর রহমার,সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে মুঠো ফোনটি বন্ধ করে দেন, একাধিকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায় নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নূর আইডিয়াল স্কুল ও কলেজের টিনশেড বিল্ডিংয়ে ক্লাশ করছিলো সাগর ও তার সহপাঠীরা। এ সময় হঠাৎ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির নির্মাণধীন ৬ তলার উপরের অংশ ভেঙ্গে পড়ে। এ সময় ইট পাথরের নিচে চাপা পড়ে যায় সাগর। স্থানীয়রা সাগরকে উদ্ধার করে কুমিল্লা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মোঃ রাসেল খান তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
হাসপাতালের চিকিৎসক রাসেল জানান, সাগরের মাথায় প্রচন্ড আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারনা করছি তাকে হসপিটালে নিয়ে আসার আগেই মৃত্যুবরণ করে।
নিহত সাগরের বাবা অলি আহমেদ জানান, তার দুই ছেলের মধ্য সাগর বড়। সকালে স্কুলের জন্য বাসা থেকে বের হয়। তারপর লোকমুখে শুনি স্কুলে ভবন ভেঙ্গে পড়ে তার ছেলে মারা যায়। এ ঘূর্ণিঝড়ের মধ্যে স্কুল তারা কেন খোলা রাখলো। যে বা যাদের গাফিলতির কারনেই হয়ে থাকে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই, ছেলের মৃত্যুর বিচার চাই বলে দাবি জানান।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ সার্কেল এএসপি এমরানুল হোসেন মারুফ জানান, নির্মাণাধীন সাত তলা ভবনটি অরক্ষৃতভাবেই তাদের কাজ চালাচ্ছিল।  প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয় যে,  নির্মাণ কাজ করাকালীন সময়ে কোন নিরাপত্তা বেষ্টনী না রাখায় সেই পিলারটি স্কুলের উপর পড়ে  এবং ওই ছাত্র নিহতের ঘটনা ঘটে।  এই ঘটনায় একই স্কুল শিক্ষক আহত রয়েছে বলেও জেনেছি।  ঘটনার সাথে দায়ী যারাই হোক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।