০১:০৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

মাদারীপুর শহরে ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে ২৬০টি সিসি ক্যামেরার স্থাপন

মাদারীপুর শহরে অপরাধ দমন ও নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম মনিটারিং করার জন্য সিসি টিভি কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে।

বুধবার (২৯ মে) মাদারীপুর পুলিশের কার্যালয়ে সিসি ক্যামেরা নিয়ন্ত্রণ ও বাস্তবায়ন কক্ষ উদ্বোধন করেন মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মারুফুর রশিদ খান, পুলিশ সুপার মো. মাসুদ আলম, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ।

জানা গেছে, বিভিন্ন অপরাধ, সন্ত্রাসীমূলক কর্মকান্ড, সড়ক দুর্ঘটনারোধে মাদারীপুর শহরের প্রধান প্রধান পয়েন্টে এবং শেখ হাসিনা মহাসড়কে প্রায় ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে ২৬০টি সিসি ক্যামেরার স্থাপন কর হয়।

এ সময় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে, সাবেক পৌর মেয়র নুর আলম বাবু চৌধুরী, মাদারীপুর চেম্বার ও কমার্স সভাপতি হাফিজুর রহমান খান, মাদারীপুর জেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো শাজাহান হাওলাদার, যুদ্ধকালীন খলিল বাহিনীর প্রধান খলিলুর রহমান খান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেন সেলিম প্রমুখ। এ সময় জেলার বিভিন্ন দপ্তর ও ব্যবসায়ী এবং সুশীল সমাজ ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মী ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

ঈদুল আযহার ছুটিতে ৯ দিন চলবে না মৈত্রী ট্রেন

মাদারীপুর শহরে ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে ২৬০টি সিসি ক্যামেরার স্থাপন

প্রকাশিত : ০৪:৩১:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

মাদারীপুর শহরে অপরাধ দমন ও নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম মনিটারিং করার জন্য সিসি টিভি কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে।

বুধবার (২৯ মে) মাদারীপুর পুলিশের কার্যালয়ে সিসি ক্যামেরা নিয়ন্ত্রণ ও বাস্তবায়ন কক্ষ উদ্বোধন করেন মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মারুফুর রশিদ খান, পুলিশ সুপার মো. মাসুদ আলম, চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ।

জানা গেছে, বিভিন্ন অপরাধ, সন্ত্রাসীমূলক কর্মকান্ড, সড়ক দুর্ঘটনারোধে মাদারীপুর শহরের প্রধান প্রধান পয়েন্টে এবং শেখ হাসিনা মহাসড়কে প্রায় ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে ২৬০টি সিসি ক্যামেরার স্থাপন কর হয়।

এ সময় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে, সাবেক পৌর মেয়র নুর আলম বাবু চৌধুরী, মাদারীপুর চেম্বার ও কমার্স সভাপতি হাফিজুর রহমান খান, মাদারীপুর জেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো শাজাহান হাওলাদার, যুদ্ধকালীন খলিল বাহিনীর প্রধান খলিলুর রহমান খান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ সাখাওয়াত হোসেন সেলিম প্রমুখ। এ সময় জেলার বিভিন্ন দপ্তর ও ব্যবসায়ী এবং সুশীল সমাজ ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মী ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS