০৯:১৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪

১ জুলাই থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ শেকৃবির ক্লাশ-পরীক্ষা

অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারীকৃত পেনশনসংক্রান্ত বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার, প্রতিশ্রুত সুপার গ্রেডে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্তি এবং শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তনের দাবিতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) শিক্ষকরা আগামী পহেলা জুলাই থেকে সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে যাবেন। এসময় ক্লাস, পরীক্ষা সবকিছুই অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে।

রবিবার (৩০ জুন) সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের সামনে সমাবেশ করেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের একাংশ। সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহ প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। পেনশন প্রজ্ঞাপনের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলনে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সাথে একাত্মতা পোষণ করে এ স্বিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে শিক্ষক সমিতি থেকে জানানো হয়।

সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো আশ্বাস না পাওয়ায় এমন স্বিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তারা। কতদিন বন্ধ থাকবে জানতে চাইলে তারা বলেন, এটা সঠিক বলা যাচ্ছে না, তবে সরকার আমাদের দাবি যতদিন না মানবে কতদিন সব বন্ধ থাকবে আর সরকার দাবি মেনে নিলে আমরা ক্লাস, পরীক্ষায় ফিরে যাব। তবে এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোন নোটিস দেয়া হয়নি। শিক্ষকরা বলছেন, শিক্ষক ফেডারেশনের সিদ্ধান্তই তাদের সিদ্ধান্ত। শেকৃবি সংবাদদাতা

ট্যাগ :

১ জুলাই থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ শেকৃবির ক্লাশ-পরীক্ষা

প্রকাশিত : ০৪:১৬:০৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুন ২০২৪

অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারীকৃত পেনশনসংক্রান্ত বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার, প্রতিশ্রুত সুপার গ্রেডে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্তি এবং শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতনস্কেল প্রবর্তনের দাবিতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) শিক্ষকরা আগামী পহেলা জুলাই থেকে সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে যাবেন। এসময় ক্লাস, পরীক্ষা সবকিছুই অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে।

রবিবার (৩০ জুন) সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের সামনে সমাবেশ করেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের একাংশ। সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহ প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। পেনশন প্রজ্ঞাপনের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলনে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সাথে একাত্মতা পোষণ করে এ স্বিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে শিক্ষক সমিতি থেকে জানানো হয়।

সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো আশ্বাস না পাওয়ায় এমন স্বিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তারা। কতদিন বন্ধ থাকবে জানতে চাইলে তারা বলেন, এটা সঠিক বলা যাচ্ছে না, তবে সরকার আমাদের দাবি যতদিন না মানবে কতদিন সব বন্ধ থাকবে আর সরকার দাবি মেনে নিলে আমরা ক্লাস, পরীক্ষায় ফিরে যাব। তবে এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোন নোটিস দেয়া হয়নি। শিক্ষকরা বলছেন, শিক্ষক ফেডারেশনের সিদ্ধান্তই তাদের সিদ্ধান্ত। শেকৃবি সংবাদদাতা