০৮:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪
নেই স্পিড ব্রেকার, নেই জ্রেবা ক্রসিং

আনোয়ারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পিএবি সড়কটি যেন মরণ ফাঁদ!

মোঃ চট্টগ্রামে আনোয়ারা-চন্দনাইশ পিএবি সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে সড়কটি যেন মরণ ফাঁদ দুর্ঘটনা যেনো পিছু ছাড়ছে না। সড়কে গাড়ীর চাপ বৃদ্ধি পেলেও গতিরোধক ব্যবস্থা ও জ্রেবা ক্রসিং বা স্পিড ব্রেকার না থাকায় প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। স্পিডব্রেকারের দাবিতে স্থানীয়রা মানববন্ধন করে মিলেনি কোন সুফল।

অনুসন্ধানে জানা যায় – বাঁশখালী, চন্দনাইশ ও কর্ণফুলী উপজেলার মাঝখানে আনোয়ারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি হওয়ায় পাশের এলাকার বৃহৎ অংশ থেকে জনগণ সেবা নিতে আসেন এই হাসপাতালটিতে। সবমিলিয়ে অন্তত ১০ লাখ মানুষের চিকিৎসাসেবার একমাত্র ভরসাস্থল এই হাসপাতাল। চন্দনাইশ এবং কক্সবাজারের দুরপাল্লার এ ঝুকিপুর্ন সড়কটি এখন মরনফাদে পরিনত হয়েছে। প্রায় এখানে সড়ক দুঘটনায় প্রানহানীর ঘটনা ঘটলেও নেয়া হয়নি তেমন কোন প্রতিরোধকমুলক ব্যবস্থা। বিষয়টি নিয়ে যেন কারো মাথা ব্যাথ্যা নেই।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) সকালে নুরজাহান বেগম (৬৪) এক বৃদ্ধা মহিলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে এসে রাস্তা পারাপারের সময় কালাবিবির দিঘি থেকে আসা একটি দ্রুতগতির নোহা গাড়ির ধাক্কা লাগে গুরুতর আহত হয়েছে।

শনিবার (৬ জুলাই) দুপুরে সিএনজি আটোরিকশা উল্টে আবু ছৈয়দ (৫০) নামে এক মসজিদের ইমামের মৃত্যু হয়েছে। এসময় আহত হয়েছে সিএনজির যাত্রী আবু ছৈয়দ (৫০), গুলতাজ বেগম (৬০), রুজি আক্তার (৩৫), সুলতানা (১০), নুর জাহান (৭০) ও চালক হাসান (১৯)।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) সকালে মেডিকেল মোড়ে স্প্রিট ব্রেকার স্থাপনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে স্থানীয়রা। অবরোধকারীদের দাবি ছিল মেডিকেলের মোড়ে এক্সিডেন্টের স্বীকার হয়ে অনেক মানুষ মারা গেছে, অনেকে পঙ্গু হয়েছে। বার বার এই জায়গায় স্প্রিট ব্রেকার স্থাপনের বিষয়ে বলা হলেও এই জায়গায় স্প্রিট ব্রেকার স্থাপন করা হয়নি।

সরেজমিনে পরিদর্শন করে জানা যায়, আনোয়ারা-বাঁশখালী পিএবি সড়ক, আনোয়ারা- চন্দনাইশ পিএবি সড়কে নেই পথচারী পারাপারের নির্দিষ্ট চিহ্ন।নেই গতিরোধক তেমন ব্যবস্থা। ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়ক রাস্তা পার হতে গিয়ে পথচারী প্রায় প্রতিদিনই এখানে দুর্ঘটনায় পড়ছে।

হাসপাতালে সামনে পিএবি সড়কের স্পিডব্রেকার, জ্রেবা ক্রসিং বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মামুনুর রশীদ জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে আমি জানতে পারি যে সড়কটি যখন হচ্ছিল তখন আমার আগে রিসিভ পিও রোড এন্ড হাইওয়েকে জানাই ছিল।এটা আসলে রোড এন্ড হাইওয়াকে জানাতে হবে যে স্কুল, হসপিটাল এই সব জায়গা রোডে আইনগত ভাবে কি দেওয়া উচিত স্পিডব্রেকার, জ্রেবা ক্রসিং নাকি অন্য কোন সংকেত চিহ্ন।কারণ এখানে হাই স্পীডে গাড়ি চালালে এক্সিডেন্ট হতে পারে। আপনি বিষয়টি নিয়ে একটু ইউএনও মহোদয় এবং রোড এন্ড হাইওয়ে দায়িত্ব ইঞ্জিনিয়ারের সাথে আলাপ করেন।আমরা ও চাই যে হসপিটালের জন্য যে রকম প্রযোজ্য সেই রকম থাকুক এটা আমাদের চাওয়া।

আনোয়ারা-চন্দনাইশ পিএবি সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনের সড়কের দূর্ঘটনার এড়াতে স্পিড ব্রেকার বা জ্রেবা ক্রসিং দেওয়ার বিষয়ের জানতে চাইলে দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. তোফায়েল মিয়া জানান, এই বিষয়ে আপনি ইঞ্জিনিয়ারের সাথে কথা বলুন। ইঞ্জিনিয়ার জানান যখন রোড মার্কিং কাজ করা হবে।তখন সড়কের পেইন্টিং করার সময় জ্রেবা ক্রসিং করে দেওয়া হবে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে

ট্যাগ :

শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নেই স্পিড ব্রেকার, নেই জ্রেবা ক্রসিং

আনোয়ারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পিএবি সড়কটি যেন মরণ ফাঁদ!

প্রকাশিত : ০১:২৩:৫০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

মোঃ চট্টগ্রামে আনোয়ারা-চন্দনাইশ পিএবি সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে সড়কটি যেন মরণ ফাঁদ দুর্ঘটনা যেনো পিছু ছাড়ছে না। সড়কে গাড়ীর চাপ বৃদ্ধি পেলেও গতিরোধক ব্যবস্থা ও জ্রেবা ক্রসিং বা স্পিড ব্রেকার না থাকায় প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। স্পিডব্রেকারের দাবিতে স্থানীয়রা মানববন্ধন করে মিলেনি কোন সুফল।

অনুসন্ধানে জানা যায় – বাঁশখালী, চন্দনাইশ ও কর্ণফুলী উপজেলার মাঝখানে আনোয়ারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি হওয়ায় পাশের এলাকার বৃহৎ অংশ থেকে জনগণ সেবা নিতে আসেন এই হাসপাতালটিতে। সবমিলিয়ে অন্তত ১০ লাখ মানুষের চিকিৎসাসেবার একমাত্র ভরসাস্থল এই হাসপাতাল। চন্দনাইশ এবং কক্সবাজারের দুরপাল্লার এ ঝুকিপুর্ন সড়কটি এখন মরনফাদে পরিনত হয়েছে। প্রায় এখানে সড়ক দুঘটনায় প্রানহানীর ঘটনা ঘটলেও নেয়া হয়নি তেমন কোন প্রতিরোধকমুলক ব্যবস্থা। বিষয়টি নিয়ে যেন কারো মাথা ব্যাথ্যা নেই।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) সকালে নুরজাহান বেগম (৬৪) এক বৃদ্ধা মহিলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে এসে রাস্তা পারাপারের সময় কালাবিবির দিঘি থেকে আসা একটি দ্রুতগতির নোহা গাড়ির ধাক্কা লাগে গুরুতর আহত হয়েছে।

শনিবার (৬ জুলাই) দুপুরে সিএনজি আটোরিকশা উল্টে আবু ছৈয়দ (৫০) নামে এক মসজিদের ইমামের মৃত্যু হয়েছে। এসময় আহত হয়েছে সিএনজির যাত্রী আবু ছৈয়দ (৫০), গুলতাজ বেগম (৬০), রুজি আক্তার (৩৫), সুলতানা (১০), নুর জাহান (৭০) ও চালক হাসান (১৯)।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) সকালে মেডিকেল মোড়ে স্প্রিট ব্রেকার স্থাপনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে স্থানীয়রা। অবরোধকারীদের দাবি ছিল মেডিকেলের মোড়ে এক্সিডেন্টের স্বীকার হয়ে অনেক মানুষ মারা গেছে, অনেকে পঙ্গু হয়েছে। বার বার এই জায়গায় স্প্রিট ব্রেকার স্থাপনের বিষয়ে বলা হলেও এই জায়গায় স্প্রিট ব্রেকার স্থাপন করা হয়নি।

সরেজমিনে পরিদর্শন করে জানা যায়, আনোয়ারা-বাঁশখালী পিএবি সড়ক, আনোয়ারা- চন্দনাইশ পিএবি সড়কে নেই পথচারী পারাপারের নির্দিষ্ট চিহ্ন।নেই গতিরোধক তেমন ব্যবস্থা। ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়ক রাস্তা পার হতে গিয়ে পথচারী প্রায় প্রতিদিনই এখানে দুর্ঘটনায় পড়ছে।

হাসপাতালে সামনে পিএবি সড়কের স্পিডব্রেকার, জ্রেবা ক্রসিং বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মামুনুর রশীদ জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে আমি জানতে পারি যে সড়কটি যখন হচ্ছিল তখন আমার আগে রিসিভ পিও রোড এন্ড হাইওয়েকে জানাই ছিল।এটা আসলে রোড এন্ড হাইওয়াকে জানাতে হবে যে স্কুল, হসপিটাল এই সব জায়গা রোডে আইনগত ভাবে কি দেওয়া উচিত স্পিডব্রেকার, জ্রেবা ক্রসিং নাকি অন্য কোন সংকেত চিহ্ন।কারণ এখানে হাই স্পীডে গাড়ি চালালে এক্সিডেন্ট হতে পারে। আপনি বিষয়টি নিয়ে একটু ইউএনও মহোদয় এবং রোড এন্ড হাইওয়ে দায়িত্ব ইঞ্জিনিয়ারের সাথে আলাপ করেন।আমরা ও চাই যে হসপিটালের জন্য যে রকম প্রযোজ্য সেই রকম থাকুক এটা আমাদের চাওয়া।

আনোয়ারা-চন্দনাইশ পিএবি সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনের সড়কের দূর্ঘটনার এড়াতে স্পিড ব্রেকার বা জ্রেবা ক্রসিং দেওয়ার বিষয়ের জানতে চাইলে দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. তোফায়েল মিয়া জানান, এই বিষয়ে আপনি ইঞ্জিনিয়ারের সাথে কথা বলুন। ইঞ্জিনিয়ার জানান যখন রোড মার্কিং কাজ করা হবে।তখন সড়কের পেইন্টিং করার সময় জ্রেবা ক্রসিং করে দেওয়া হবে।

বিজনেস বাংলাদেশ/একে