ঢাকা সকাল ১০:৫৪, বুধবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নিজেদের মাইনোরিটি ভাববেন না : কাদের

বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আবেগ বা ক্ষোভের বশে কেউ খারাপ ব্যবহার করলে মুখ বুজে থাকবেন না, অবশ্যই জনপ্রতিনিধিকে জানাবেন, আমাদের জানাবেন। বুকে বল নিয়ে চলবেন। আপনাদের অভিভাবক আছে, তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় নেওয়া ক্রেডিট লাইনের প্রথম পর্যায়ের এক বিলিয়ন ডলারের ঋণ পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। তবে দ্বিতীয় পর্যায়ের দুই বিলিয়ন ডলারের ঋণ বাস্তবায়ন পুরোপুরি সম্ভব হয়নি। তবে তা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এবার তৃতীয় ধাপের ঋণ যথাযথভাবে ব্যবহার করা হবে। এ জন্য বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। মূলত এ ঋণের অর্থ ব্যয় হবে সামাজিক নিরাপত্তা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এ ঋণের সুদ হার অনেক কম এবং ২০ বছরে পরিশোধ করতে হবে।’ অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন দেখে ভারতের অর্থমন্ত্রী মুগ্ধ বলে জানিয়েছেন। তিনি জনিয়েছেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি অন্য দেশের জন্য মডেল হতে পারে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এখন দুই দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কও অত্যন্ত চমৎকার।’ গত এপ্রিল মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরকালে বাংলাদেশের জন্য সাড়ে চার বিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি ভারতীয় ক্রেডিট লাইনের ঘোষণা দেয়া হয়। গত ছয় বছরে বাংলাদেশকে ভারতের দেয়া সর্বমোট ক্রেডিট লাইনের পরিমাণ আট বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তৃতীয় ক্রেডিট লাইন চুক্তি স্বাক্ষরে বাংলাদেশ অগ্রাধিকার ভিত্তিক কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামো প্রকল্প বাস্তবায়নে সক্ষমতা অর্জন করবে। উল্লেখ্য, ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য বৈষম্য দীর্ঘদিনের। দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য বরাবরই ভারতের অনুক‚লে রয়েছে এবং এই বৈষম্য ক্রমেই বেড়ে চলেছে। ২০০১-২০০২ অর্থবছরে বাংলাদেশে ভারতের পণ্য রপ্তানির পরিমাণ ছিল এক বিলিয়ন ডলার। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে তা ছয় বিলিয়ন ডলারে পৌঁছে। আর অনানুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশে আসে তিনশ কোটি ডলারের পণ্য। অন্যদিকে বাংলাদেশ থেকে ভারতে রপ্তানি হয় মাত্র মাত্র ৫০ কোটি ডলারের পণ্য।

এ বিভাগের আরও সংবাদ