০৬:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪

গণপরিবহনে মোবাইল কোর্ট

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় আগামী ১৯ নভেম্বর রবিবার থেকে গণপরিবহনে মোবাইল কোর্ট পরিচলানা করা হবে। দক্ষিণ সিটির ৫ স্থানে লক্করঝক্কড় ও লাইসেন্স ছাড়া বাসের বিরুদ্ধে ডিএসসিসি, বিআরটিএ ও ডিএমপি যৌথভাবে এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবে। সেই সঙ্গে গুলিস্তান ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড সরিয়ে আনন্দবাজার বস্তি এলাকায় সরিয়ে নেয়া হবে। রবিবার নগর ভবনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সেবাদানকারী সংস্থাসমূহের সমন্বয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সভার শুরুতের মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, রাজধানীর যানজট অসহনীয় হয়ে উঠেছে। কিন্তু যখন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়, তখন যানজট কম থাকে। ডিএমপি, ডিএসসিসি ও বিআরটিএ দ্রুত সমন্বয় সভা করে আগামী ১৯ নভেম্বর থেকে টানা এক মাস ডিএসসিসির ৫টি এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবে। এ প্রসঙ্গে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহমেদ সভায় বলেন বলেন, ঢাকায় ৩০০ কোম্পানির প্রায় ৮ হাজার বাস চলাচল করে। শহরের বাইরে থেকে গাড়ি ঘুরবে। শহরের মধ্যে গাড়ি ঘুরতে পারবে না। র আগে মেয়র বলেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চল থেকে এবং পুরান ঢাকা থেকে নতুন ঢাকায় আসতে হলে ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড পার হয়ে আসতে হয়। ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড অবৈধভাবে চলে আসছে। আর শহরের মাঝে থাকায় যানজট খুব বেশি দেখা দেয়। কারণ সেখানে কোন শৃঙ্খলা নেই। মেয়র বলেন, আগামী ১০ দিনের মধ্যে কমিটি গঠন করে আনন্দবাজার বস্তি এলাকায় ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নিতে হবে। এ বিষয়ে সিটি কর্পোরেশন এবং ডিএমপি মিলে কমিটি গঠন করে দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দেন মেয়র। এছাড়া আজিমপুর এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে ওঠা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ডিএমপি যেন অভিযান পরিচালনা করে এবং সেখানে কোনো বাস যেন থেমে না থাকে সেদিকে নজর দিতে বলেন মেয়র। আজিমপুরে বাস শুধু যাত্রী উঠানো নামানোর বাইরে আর কোনো কাজ করতে পারবে না। এ বিষয়ে ডিএমপিকে দায়িত্ব পালন করতে বলেন মেয়র। সভায় ২৪টি এজেন্ডা নিয়ে আলোচনা করা হয়। মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় ২৬টি সেবা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

গণপরিবহনে মোবাইল কোর্ট

প্রকাশিত : ০১:১৯:১০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৭

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় আগামী ১৯ নভেম্বর রবিবার থেকে গণপরিবহনে মোবাইল কোর্ট পরিচলানা করা হবে। দক্ষিণ সিটির ৫ স্থানে লক্করঝক্কড় ও লাইসেন্স ছাড়া বাসের বিরুদ্ধে ডিএসসিসি, বিআরটিএ ও ডিএমপি যৌথভাবে এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবে। সেই সঙ্গে গুলিস্তান ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড সরিয়ে আনন্দবাজার বস্তি এলাকায় সরিয়ে নেয়া হবে। রবিবার নগর ভবনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সেবাদানকারী সংস্থাসমূহের সমন্বয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সভার শুরুতের মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, রাজধানীর যানজট অসহনীয় হয়ে উঠেছে। কিন্তু যখন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়, তখন যানজট কম থাকে। ডিএমপি, ডিএসসিসি ও বিআরটিএ দ্রুত সমন্বয় সভা করে আগামী ১৯ নভেম্বর থেকে টানা এক মাস ডিএসসিসির ৫টি এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবে। এ প্রসঙ্গে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহমেদ সভায় বলেন বলেন, ঢাকায় ৩০০ কোম্পানির প্রায় ৮ হাজার বাস চলাচল করে। শহরের বাইরে থেকে গাড়ি ঘুরবে। শহরের মধ্যে গাড়ি ঘুরতে পারবে না। র আগে মেয়র বলেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চল থেকে এবং পুরান ঢাকা থেকে নতুন ঢাকায় আসতে হলে ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড পার হয়ে আসতে হয়। ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড অবৈধভাবে চলে আসছে। আর শহরের মাঝে থাকায় যানজট খুব বেশি দেখা দেয়। কারণ সেখানে কোন শৃঙ্খলা নেই। মেয়র বলেন, আগামী ১০ দিনের মধ্যে কমিটি গঠন করে আনন্দবাজার বস্তি এলাকায় ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নিতে হবে। এ বিষয়ে সিটি কর্পোরেশন এবং ডিএমপি মিলে কমিটি গঠন করে দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দেন মেয়র। এছাড়া আজিমপুর এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে ওঠা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ডিএমপি যেন অভিযান পরিচালনা করে এবং সেখানে কোনো বাস যেন থেমে না থাকে সেদিকে নজর দিতে বলেন মেয়র। আজিমপুরে বাস শুধু যাত্রী উঠানো নামানোর বাইরে আর কোনো কাজ করতে পারবে না। এ বিষয়ে ডিএমপিকে দায়িত্ব পালন করতে বলেন মেয়র। সভায় ২৪টি এজেন্ডা নিয়ে আলোচনা করা হয়। মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় ২৬টি সেবা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।