০৩:৩১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

মুজিবুর রহমান এর আনারস মার্কায় ভোট দিতে মুখিয়ে আছে সদর উপজেলাবাসী

৮ মে সারা দেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১ম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।  বাকী আছে আর মাত্র একটি দিন।কক্সবাজার জেলায় ১ম ধাপের উপজেলা পরিষদ  নির্বাচনে ভোট প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন তিনটি উপজেলার মানুষ। কক্সবাজার সদর,  মহেশখালী ও কুতুবদিয়া উপজেলা। তবে জেলার সর্বত্র আলোচনার তুঙ্গে সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এই উপজেলায় তিনজন প্রার্থী রয়েছেন। ঝিলংজার সাবেক চেয়ারম্যান, কক্সবাজার পৌরসভার সাবেক মেয়র, জেলা আওয়ামীলীগ এর বর্তমান সাধারন সম্পাদক আনারস প্রতীক নিয়ে মুজিবুর রহমান, আরেকজন কক্সবাজার পৌরসভার তিন বারের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগ এর প্রভাবশালী নেতা মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে নুরুল আবছার এবং অপরজন হলেন বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং জেলা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা দোয়াতকলম প্রতীকের কায়সারুল হক জুয়েল।  তার মধ্যে দোয়াতকলম প্রতীকের বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জেলা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা কায়সারুল হক জুয়েল নিজেকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে নিয়েছেন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে।  বাকী রয়েছেন দুজন আনারস প্রতীকের মুজিবুর রহমান ও মোটরসাইকেল প্রতীকের নুরুল আবছার।
প্রচার প্রচারনায় জমজমাট ভাবে জমে উঠেছে তাদের নির্বাচনী লড়াই। জোলার হেভিওয়েট নেতারা ও আসছেন তাদের পক্ষে প্রচারনায়।
প্রার্থী দুজনের মধ্যে নুরুল আবছার দূর্নীতির দায়ে তিনবছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি। দুই বছর জেল ও খেটেছেন তিনি। তার মামলা নং স্পেশাল ৩৮/৯৭। স্পেশাল ফৌজদারী আপিল নং ৪০৪৩/২০০৪ মামলাটি বর্তমানে শুনানীর অপেক্ষায় রয়েছেন মহামান্য হাইকোর্টের আপিল বিভাগে। এছাড়া ও পৌরসভার পানি চলাচলের নালার জায়গা জমি অর্থের বিনিময়ে জেলা প্রশাসককে ম্যানেজ করে কিছু সুবিধাবাদী লোকজনের নামে লিজ দেওয়ার অলিখিত অভিযোগ ও রয়েছে তার বিরুদ্ধে লোকেমুখে। বর্তমানে ওই নালা গুলিতে পানি চলাচলের পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় পৌর এলাকা পুরো বর্ষা মৌসুমে পানির নিচে রয়ে যায়।  তবে তার পক্ষে জেলার বেশিরভাগ জনপ্রতিনিধিরা প্রচার প্রচারনা করছেন। তিনিও দারুন আশাবাদী বিজয়ী হতে।
সে হিসেবে আদালতের ও সাধারন মানুষের কাছে ক্লিন ইমেজের আনারস প্রতীক এর প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান দারুন সুবিধায় রয়েছেন সাধারণ ভোটারদের মাঝে। উপজেলার সর্বত্রই তার জয়ধ্বনি শুনা যাচ্ছে। কেননা তিনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করেছেন টানা ১২ বছর এবং পৌরসভার মেয়র হিসেবে ছিলেন পাঁচ বছর। এই দায়ীত্ব পালন করতে গিয়ে কোন অভিযোগ তার বিরুদ্ধে না থাকায় সাধারণ ভোটারের মধ্যে তিনি ক্লিন ইমেজের মানুষ হিসেবে বেশ সমাধৃত। সাধারন মানুষ তাকে আগামীর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনীত করতে মুখিয়ে রয়েছেন।
ট্যাগ :

মুজিবুর রহমান এর আনারস মার্কায় ভোট দিতে মুখিয়ে আছে সদর উপজেলাবাসী

প্রকাশিত : ০৯:২৫:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ মে ২০২৪
৮ মে সারা দেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১ম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।  বাকী আছে আর মাত্র একটি দিন।কক্সবাজার জেলায় ১ম ধাপের উপজেলা পরিষদ  নির্বাচনে ভোট প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন তিনটি উপজেলার মানুষ। কক্সবাজার সদর,  মহেশখালী ও কুতুবদিয়া উপজেলা। তবে জেলার সর্বত্র আলোচনার তুঙ্গে সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এই উপজেলায় তিনজন প্রার্থী রয়েছেন। ঝিলংজার সাবেক চেয়ারম্যান, কক্সবাজার পৌরসভার সাবেক মেয়র, জেলা আওয়ামীলীগ এর বর্তমান সাধারন সম্পাদক আনারস প্রতীক নিয়ে মুজিবুর রহমান, আরেকজন কক্সবাজার পৌরসভার তিন বারের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগ এর প্রভাবশালী নেতা মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে নুরুল আবছার এবং অপরজন হলেন বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং জেলা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা দোয়াতকলম প্রতীকের কায়সারুল হক জুয়েল।  তার মধ্যে দোয়াতকলম প্রতীকের বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জেলা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা কায়সারুল হক জুয়েল নিজেকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে নিয়েছেন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে।  বাকী রয়েছেন দুজন আনারস প্রতীকের মুজিবুর রহমান ও মোটরসাইকেল প্রতীকের নুরুল আবছার।
প্রচার প্রচারনায় জমজমাট ভাবে জমে উঠেছে তাদের নির্বাচনী লড়াই। জোলার হেভিওয়েট নেতারা ও আসছেন তাদের পক্ষে প্রচারনায়।
প্রার্থী দুজনের মধ্যে নুরুল আবছার দূর্নীতির দায়ে তিনবছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি। দুই বছর জেল ও খেটেছেন তিনি। তার মামলা নং স্পেশাল ৩৮/৯৭। স্পেশাল ফৌজদারী আপিল নং ৪০৪৩/২০০৪ মামলাটি বর্তমানে শুনানীর অপেক্ষায় রয়েছেন মহামান্য হাইকোর্টের আপিল বিভাগে। এছাড়া ও পৌরসভার পানি চলাচলের নালার জায়গা জমি অর্থের বিনিময়ে জেলা প্রশাসককে ম্যানেজ করে কিছু সুবিধাবাদী লোকজনের নামে লিজ দেওয়ার অলিখিত অভিযোগ ও রয়েছে তার বিরুদ্ধে লোকেমুখে। বর্তমানে ওই নালা গুলিতে পানি চলাচলের পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় পৌর এলাকা পুরো বর্ষা মৌসুমে পানির নিচে রয়ে যায়।  তবে তার পক্ষে জেলার বেশিরভাগ জনপ্রতিনিধিরা প্রচার প্রচারনা করছেন। তিনিও দারুন আশাবাদী বিজয়ী হতে।
সে হিসেবে আদালতের ও সাধারন মানুষের কাছে ক্লিন ইমেজের আনারস প্রতীক এর প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান দারুন সুবিধায় রয়েছেন সাধারণ ভোটারদের মাঝে। উপজেলার সর্বত্রই তার জয়ধ্বনি শুনা যাচ্ছে। কেননা তিনি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করেছেন টানা ১২ বছর এবং পৌরসভার মেয়র হিসেবে ছিলেন পাঁচ বছর। এই দায়ীত্ব পালন করতে গিয়ে কোন অভিযোগ তার বিরুদ্ধে না থাকায় সাধারণ ভোটারের মধ্যে তিনি ক্লিন ইমেজের মানুষ হিসেবে বেশ সমাধৃত। সাধারন মানুষ তাকে আগামীর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনীত করতে মুখিয়ে রয়েছেন।