১০:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

লালমনিরহাটে ক্লাশ চলাকালীন বিদ্যালয়ে আগুণ পুড়ে গেছে দুই শ্রেণীকক্ষ

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলা কেবি বালিকা বিদ্যালয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে আকস্মিকভাবে শর্টসার্কিট থেকে আগুণ লেগে পুড়ে  গেছে দুই শ্রেণীকক্ষ। এসময় আতংকিত হয়ে পরেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তবে হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুণ নিয়ন্ত্রণ আনেন।
রোববার (১২মে) দুপুরে এ ঘটন ঘটে।

বিদ্যালয় সুত্রে জানাগেছে, রোববার দুপুরে টিফিন শুরুর সময়ে আকস্মিকভাবে ৬ষ্ঠ শ্রেনীর দুটি ক্লাসরুমে আগুণের সুত্রপাত ঘটে। এসময় ওই শ্রেনী কক্ষ দুটিতে থাকা ১০টি ফ্যান, দরজা জানালাসহ আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে আদিতমারী ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনেন। এর আগে শ্রেণীকক্ষে আগুণ দেখে বিদ্যালয় থেকে ছাত্রীরা আতংকিত হয়ে বাহিরে বেরিয়ে আসে।

কেবি বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম জানান, শর্টসার্কিট থেকে আগুণের সুত্রপাত হয়েছে। তিনি আরো জানান, বিদ্যালয়ের শ্রেণীকক্ষ দুটির সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তবে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলেও দাবী করেন তিনি।

ট্যাগ :

লালমনিরহাটে ক্লাশ চলাকালীন বিদ্যালয়ে আগুণ পুড়ে গেছে দুই শ্রেণীকক্ষ

প্রকাশিত : ০৯:৫৭:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০২৪

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলা কেবি বালিকা বিদ্যালয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে আকস্মিকভাবে শর্টসার্কিট থেকে আগুণ লেগে পুড়ে  গেছে দুই শ্রেণীকক্ষ। এসময় আতংকিত হয়ে পরেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তবে হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুণ নিয়ন্ত্রণ আনেন।
রোববার (১২মে) দুপুরে এ ঘটন ঘটে।

বিদ্যালয় সুত্রে জানাগেছে, রোববার দুপুরে টিফিন শুরুর সময়ে আকস্মিকভাবে ৬ষ্ঠ শ্রেনীর দুটি ক্লাসরুমে আগুণের সুত্রপাত ঘটে। এসময় ওই শ্রেনী কক্ষ দুটিতে থাকা ১০টি ফ্যান, দরজা জানালাসহ আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে আদিতমারী ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনেন। এর আগে শ্রেণীকক্ষে আগুণ দেখে বিদ্যালয় থেকে ছাত্রীরা আতংকিত হয়ে বাহিরে বেরিয়ে আসে।

কেবি বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম জানান, শর্টসার্কিট থেকে আগুণের সুত্রপাত হয়েছে। তিনি আরো জানান, বিদ্যালয়ের শ্রেণীকক্ষ দুটির সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তবে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি বলেও দাবী করেন তিনি।