০৪:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

কিশোরগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় উপজেলা চেয়ারম্যান হচ্ছেন লিটন

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে আগামী ৫ জুন কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন কুলিয়ারচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মো. আবুল হোসেন লিটন। আর কোনো প্রার্থী না থাকায় তিনি চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন।

রোববার (১২ মে) দুপুরে মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থী না থাকায় জয়ের পথে রয়েছেন লিটন। জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এটিএম ফরহাদ চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আবুল হোসেন লিটন বলেন, রাজনীতিকে আমি নেশা হিসেবে নিয়েছি। মানুষের সেবা করতে পারলে আমি অনেক আনন্দিত হই। আমি শৈশব থেকে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। দীর্ঘ প্রায় ২৮ বছর যাবত থানা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে রয়েছি। জনপ্রতিনিধি হিসেবে কুলিয়ারচরের প্রান্তিক জনগোষ্ঠী ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উন্নয়নের জন্য যে আমাকে এককভাবে অকুণ্ঠভাবে সমর্থন দিয়েছে তাদের কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ। ব্যক্তিগতভাবে আমি আনন্দিত হলেও কুলিয়ারচরের সকলের প্রতি ঋণী ও দায়বদ্ধ। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে প্রতিযোগিতা থাকবে, যা গণতন্ত্রের একটি সৌন্দর্য। এখানে যে কেউ যদি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসতো অবশ্যই সেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা মোকাবিলা করে যদি জয়লাভ করতে পারতাম আমি আরও বেশি আনন্দিত হতাম। তবে কুলিয়ারচরবাসীর জন্য কিছু করতে চাই।

 

কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আগামী ১৯ মে প্রার্থিতা প্রত্যাহার ও ৫ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ উপজেলায় মোট ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৬২ হাজার ৪১৯ জন।

আগামী ৫ জুন চতুর্থ ধাপে নির্বাচনে জেলার কুলিয়ারচর, বাজিতপুর ও ভৈরব উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

ট্যাগ :

কিশোরগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় উপজেলা চেয়ারম্যান হচ্ছেন লিটন

প্রকাশিত : ১১:০৮:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০২৪

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে আগামী ৫ জুন কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন কুলিয়ারচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মো. আবুল হোসেন লিটন। আর কোনো প্রার্থী না থাকায় তিনি চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন।

রোববার (১২ মে) দুপুরে মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থী না থাকায় জয়ের পথে রয়েছেন লিটন। জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এটিএম ফরহাদ চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আবুল হোসেন লিটন বলেন, রাজনীতিকে আমি নেশা হিসেবে নিয়েছি। মানুষের সেবা করতে পারলে আমি অনেক আনন্দিত হই। আমি শৈশব থেকে রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। দীর্ঘ প্রায় ২৮ বছর যাবত থানা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে রয়েছি। জনপ্রতিনিধি হিসেবে কুলিয়ারচরের প্রান্তিক জনগোষ্ঠী ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উন্নয়নের জন্য যে আমাকে এককভাবে অকুণ্ঠভাবে সমর্থন দিয়েছে তাদের কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ। ব্যক্তিগতভাবে আমি আনন্দিত হলেও কুলিয়ারচরের সকলের প্রতি ঋণী ও দায়বদ্ধ। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে প্রতিযোগিতা থাকবে, যা গণতন্ত্রের একটি সৌন্দর্য। এখানে যে কেউ যদি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসতো অবশ্যই সেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা মোকাবিলা করে যদি জয়লাভ করতে পারতাম আমি আরও বেশি আনন্দিত হতাম। তবে কুলিয়ারচরবাসীর জন্য কিছু করতে চাই।

 

কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আগামী ১৯ মে প্রার্থিতা প্রত্যাহার ও ৫ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ উপজেলায় মোট ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৬২ হাজার ৪১৯ জন।

আগামী ৫ জুন চতুর্থ ধাপে নির্বাচনে জেলার কুলিয়ারচর, বাজিতপুর ও ভৈরব উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।