ঢাকা রাত ২:০৯, বুধবার, ২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

৪ অনলাইন প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত

ইভ্যালি-ধামাকাসহ চার প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত করেছে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব)। সংগঠনটির পরিচালক আসিফ আহনাফ সদস্যপদ বাতিলের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ইভ্যালি ডটকম লিমিটেড, ধামাকা শপিং, সিরাজগঞ্জ শপ ও গ্লিটার্স আরএসটি ওয়ার্ল্ডের সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

ই-ক্যাবের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আজ (২৯ সেপ্টেম্বর) এক সাধারণ বিজ্ঞপ্তিতে ই-ক্যাবের সদস্যভুক্ত চারটি অনলাইন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিতের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- ইভ্যালি ডটকম লিমিটেড, ধামাকা শপিং (ইনভেরিয়েন্ট টেলিকম লিমিটেড), সিরাজগঞ্জ শপ ও গ্লিটার্স আরএসটি ওয়ার্ল্ড। গত ২৮ সেপ্টেম্বর ই-ক্যাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের সভায় প্রতিষ্ঠানগুলোর সদস্যপদ স্থগিতের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে গত ১৮ আগস্ট আরও চার প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছিল। সাম্প্রতিক সময়ে অভিযোগ ও নজরদারির ভিত্তিতে ই-ক্যাব বিভিন্ন অভিযোগে আটটি প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত করেছে। গত ২৮ আগস্ট অভিযুক্ত অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ই-ক্যাব ১১ সদস্যের একটি কমপ্লায়েন্স অ্যাডভাইজারি কমিটি গঠন করে। ওই কমিটি অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর সদস্যপদ স্থগিতের সুপারিশ করে।

প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়েও বিজ্ঞপ্তিতে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে বারবার সময় নেওয়ার পরও ক্রেতাদের সমস্যার সমাধান না করা, ই-ক্যাবকে চাহিদা মোতাবেক তথ্য না দেওয়া, ডিজিটাল কমার্স নির্দেশিকা-২০২১ পরিপূর্ণভাবে প্রতিপালন না করা ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের পাওনা পরিশোধের বিষয়ে সন্তোষজনক পদক্ষেপ না নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে। ক্রেতা সাধারণের পাওনার কথা বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠানটির সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

কয়েক মাস অতিবাহিত হওয়ার পরও ক্রেতাদের পণ্য বা মূল্য ফেরত না দেওয়া ও ক্রেতা এবং সরবরাহকারীদের অভিযোগগুলো সমাধানে সুনির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা না করা, ক্রেতা-বিক্রেতাদের পাওনা পরিশোধে দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ না নেওয়া, অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধ রাখার অভিযোগে তাদের সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

ই-ক্যাবের চিঠির জবাব না দেওয়া, অভিযোগগুলো নিষ্পত্তি ও ডিজিটাল কমার্স নির্দেশিকা-২০২১ প্রতিপালনের বিষয়ে পদক্ষেপ না নেওয়া এবং এ সম্পর্কিত তথ্য না দেওয়া, সাম্প্রতিক সময়ে গ্রাহকের অর্থ ফেরত না দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটি ই-কমার্সের নামে বেআইনি এমএলএম ব্যবসার সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির সদস্যপদ স্থগিত ঘোষণা করা হলো।

এসব প্রতিষ্ঠানগুলোকে ক্রেতা ও মার্চেন্টদের পাওনা পরিশোধ, নির্দেশিকা বাস্তবায়ন ও অন্যান্য অভিযোগ নিষ্পত্তি করে ৩০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। অন্যথায় অভিযোগের বিশ্লেষণ ও পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রতিষ্ঠানগুলোর সদস্যপদ বাতিল করা হতে পারে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/ এ আর

এ বিভাগের আরও সংবাদ