ঢাকা রাত ১২:১৩, বৃহস্পতিবার, ১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঢাকায় ইয়ুথ বাংলার উদ্যোগে তরুণ উদ্যোক্তা মেলা

ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে তিনদিন ব্যাপী তরুণ উদ্যোক্তা মেলা চলছে ঢাকার গুলশান শুটিং ক্লাবে। ১৪ এপ্রিল বাংলা নববর্ষের দিনে শুরু হওয়া এই ব্যতিক্রমী মেলা চলবে শনিবার রাত পর্যন্ত। মেলাটি মূলত নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে আয়োজিত। মেলায় হস্তশিল্প, কারুকার্য, হাতে বানানো পোশাক, শিশুদের পোশাক, হোম মেইড ফুড, জুয়েলারি সামগ্রী, অর্গানিক পণ্য, ঐতিহ্যবাহী খাবার সহ বিভিন্ন পণ্যের পসরা বসেছে যা রাজধানীবাসীর নজর কেড়েছে। জানা গেছে, মেলায় ২৫টিরও বেশি ক্যাটাগরির পণ্য নিয়ে ৭০জন উদ্যোক্তা অংশগ্রহণ করেছেন।

বৃহস্পতিবার অভিনয়শিল্পী দিলারা জামান ও ডলি জহুরকে সঙ্গে নিয়ে মেলার উদ্বোধন করেন ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা সীমা হামিদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন দেশবরেণ্য আবৃত্তিকার শিমুল মোস্তফা, অভিনয়শিল্পি ও পরিচালক সালাহ উদ্দিন লাভলু, ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম এর প্রেসিডেন্ট মুনা চৌধুরী, সংগঠনের ইভেন্ট অর্গানাইজার কমল চৌধুরী সহ এক একঝাঁক অভিনয় ও সঙ্গীত শিল্পী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সীমা হামিদ বলেন, আমরা চাই আমাদের যুবক-তরুণেরা চাকরি করবে না, তারা চাকরির পিছনে ছুটবে না। তারা অন্যদের চাকরি দেবে, উদ্যোক্তা হবে। সে লক্ষ্যেই উয়ুথ এন্টারপ্রেনাল ফেস্টিভালের আয়োজন করে আসছে আমাদের সংগঠন। সীমা হামিদ বলেন, তরুণরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। এ ধরনের মেলা তরুণদেরকে তাদের নিজেদের প্রতি আস্থা তৈরী করতে এবং তাদের আগামী দিনের ভবিষ্যতকে আরো শক্তিশালী করে একটা উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্যে পৌঁছে দিবে বলে আমরা আশা করছি। সংগঠনটির সভাপতি মুনা চৌধুরী বলেন, এ মেলাটি তরুণ প্রজন্মের প্রতিভাবান নারী উদ্যােক্তাদের বিশেষভাবে অনুপ্রাণিত করবে। সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সহায়তা করবে। আমাদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক সীমা হামিদ মহোদয়ের প্রতি অসংখ্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আমাদেরকে সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য। আসলে তাঁর পৃষ্ঠপোষকতা না পেলে আমরা এতদূর আসতে পারতাম না।

তরুণ উদ্যোক্তাদের এগিয়ে যেতে বড় ধরনের সহযোগিতা করার জন্য ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশনের সকল সদস্যকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সংগঠনটির উপদেষ্টা ও অভিনেত্রী দিলারা জামান।

জানা গেছে, ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও চেতনায় উজ্জীবিত শিল্প ও সংস্কৃতি কর্মীদের নিয়ে একটি অলাভজনক সংগঠন। এই সংগঠনটি বরাবরই বাংলাদেশের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও মানুষের জন্য কাজ করে আসছে। এই প্লাটফর্মের মাধ্যমে সৃজনশীল উদ্যোক্তারা দেশে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/ এ আর

এ বিভাগের আরও সংবাদ