০৮:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

বাড্ডায় শিশু অপহরণ ও ক্রয় বিক্রয় চক্রের মূলহোতা গ্রেফতার, শিশু মরিয়ম উদ্ধার

সাম্প্রতিক সময়ে বাড্ডা থানাধীন এলাকায় অপরাধ নির্মুলে প্রতিনিয়ত কাজ করছে বাড্ডা থানা পুলিশ। তারাই ধারাবাহিকতায় গত ১৮ মে সকাল ১১ ঘটিকার দিকে ভিকটিম মোসাম্মদ মরিয়ম (২)কে বাড্ডা থানা এলাকা হতে শিশু অপহরণ ও ক্রয়-বিক্রয়ের সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত চক্র অপহরণ করে ঢাকা হতে চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ থানা এলাকার নিয়ে যায়, পরবর্তীতে ভিকটিমের বাবা-মাকে টেলিফোনের মাধ্যমে মুক্তিপণের জন্য ফোন করে শিশু অপহরণকারী ও ক্রয়-বিক্রয় চক্রের মূল হোতা সুমাইয়া (৪৫), ভিকটিমের পিতা মাতা বাড্ডা থানায় অভিযোগ করলে,থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইয়াসিন গাজী তাৎক্ষণিকাভাবে এসি বাড্ডা জোনকে অবহিত করলে বাড্ডা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার রাজন কুমার সাহা এর সার্বিক দিকনির্দেশনা ও তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় এসআই সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া, শাহ আলম খলিফা এএসআই রুহুল আমিন ও নারী পুলিশ সাথী আক্তারের সমন্বয়ে একটি আভিযানিক দল দ্রুত সময়ের মধ্যে চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা করে, পরবর্তীতে ওই থানা এলাকায় বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে আসামি সুমাইয়াকে গ্রেফতার ও শিশু মরিয়মকে উদ্ধার করতে সমর্থ হয়।

শিশুটিকে তার বাবা মা কোলে ফিরে পেয়ে এক আনন্দঘন মুহূর্তের সৃষ্টি হয়।

ঐবিষয়ে রাজন কুমার সাহা গণমাধ্যম কর্মীকে জানান যে বর্তমানে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ও আধুনিক প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষিত, তাই যেকোনো ধরনের অপরাধচক্র কে সমূলে উৎপাটন করার জন্য বাড্ডা থানা পুলিশ সর্বদা প্রস্তুত আছে বলে ও জানান তিনি।

বিজেনেস বাংলাদেশ/DS

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

রাসেলস ভাইপার সাপ নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার আহবান: গোপালগঞ্জ স্বাস্থ্য বিভাগ

বাড্ডায় শিশু অপহরণ ও ক্রয় বিক্রয় চক্রের মূলহোতা গ্রেফতার, শিশু মরিয়ম উদ্ধার

প্রকাশিত : ০৪:০৭:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

সাম্প্রতিক সময়ে বাড্ডা থানাধীন এলাকায় অপরাধ নির্মুলে প্রতিনিয়ত কাজ করছে বাড্ডা থানা পুলিশ। তারাই ধারাবাহিকতায় গত ১৮ মে সকাল ১১ ঘটিকার দিকে ভিকটিম মোসাম্মদ মরিয়ম (২)কে বাড্ডা থানা এলাকা হতে শিশু অপহরণ ও ক্রয়-বিক্রয়ের সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত চক্র অপহরণ করে ঢাকা হতে চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ থানা এলাকার নিয়ে যায়, পরবর্তীতে ভিকটিমের বাবা-মাকে টেলিফোনের মাধ্যমে মুক্তিপণের জন্য ফোন করে শিশু অপহরণকারী ও ক্রয়-বিক্রয় চক্রের মূল হোতা সুমাইয়া (৪৫), ভিকটিমের পিতা মাতা বাড্ডা থানায় অভিযোগ করলে,থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইয়াসিন গাজী তাৎক্ষণিকাভাবে এসি বাড্ডা জোনকে অবহিত করলে বাড্ডা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার রাজন কুমার সাহা এর সার্বিক দিকনির্দেশনা ও তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় এসআই সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া, শাহ আলম খলিফা এএসআই রুহুল আমিন ও নারী পুলিশ সাথী আক্তারের সমন্বয়ে একটি আভিযানিক দল দ্রুত সময়ের মধ্যে চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা করে, পরবর্তীতে ওই থানা এলাকায় বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে আসামি সুমাইয়াকে গ্রেফতার ও শিশু মরিয়মকে উদ্ধার করতে সমর্থ হয়।

শিশুটিকে তার বাবা মা কোলে ফিরে পেয়ে এক আনন্দঘন মুহূর্তের সৃষ্টি হয়।

ঐবিষয়ে রাজন কুমার সাহা গণমাধ্যম কর্মীকে জানান যে বর্তমানে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ও আধুনিক প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষিত, তাই যেকোনো ধরনের অপরাধচক্র কে সমূলে উৎপাটন করার জন্য বাড্ডা থানা পুলিশ সর্বদা প্রস্তুত আছে বলে ও জানান তিনি।

বিজেনেস বাংলাদেশ/DS