১১:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪

নরসিংদীতে সন্ত্রাসী হামলা, গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

নরসিংদীর রায়পুরায় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব বিরোধের জেরে পলাশতলী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য ও বিশিষ্ঠ ঠিকাদার আব্দুল বাছেদ ভুইয়া ও তার লোকদের উপর আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা, গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় দোষীদের বিচার ও গ্রেফতারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। হামলার ঘটনায় অভিযোগ উঠেছে সম্প্রতি রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সুমন হত্যার প্রধান আসামী আবিদ হাসান রুবেল ও তার সমর্থকদের বিরুদ্ধে।
রোববার (২৩ জুন) দুপুরে উপজেলার মেথিকান্দা গ্রামের নিজ বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন সাবেক বিআরডিবি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা হারুনুর রশিদ ভূইয়া।
সংবাদ সম্মেলনে হারুনুর রশিদ ভূইয়া বলেন, সুমন হত্যার প্রতিবাদ করার জেরে সন্ত্রাসী, ভুমিদস্যু, অস্ত্রবাজ, মাদক ব্যবসায়ী ও একাধিক মামলার পলাতক আসামী আবিদ হাসান রুবেল ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে তার ভাই আব্দুল বাছেদ মেম্বারসহ তার পরিবারের লোকদের ওপর গুলিবর্ষণ ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে গুলিবিদ্ধসহ ৪ জন স্বজন ও সমর্থক আহত হয়েছেন। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় থানায় তাদের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে। হামলাকারী সন্ত্রাসীদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় আছেন জানিয়ে দ্রুত  হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি করেন তিনি। এসময় তার ভাই সাবেক ইউপি মেম্বার আব্দুল বাসেদ, নূর মোহাম্মদ, জাহাঙ্গীর আলম দুলাল,শাজাহান সহ পরিবারের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, গত ২২ মে নির্বাচনী প্রচারনায় গিয়ে প্রতিপক্ষ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আবিদ হাসান রুবেল ও তার  সমর্থকদের হামলায় নিহত হন তালা প্রতীকের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. সুমন মিয়া। এরপরই হযরত আলী ওরফে হরজু সমর্থকদের সাথে লিয়াকত আলী মিস্ত্রি বাড়ির সমর্থকদের পূর্ব বিরোধ বেড়ে যায়। সেই সূত্র ধরেই শনিবার (২২ জুন) বিকেলে লেয়াকত আলী ওরফে লইক্কা মিস্ত্রি ও হরযত আলী ওরফে হরজু সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
ট্যাগ :

মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্প বেড়ীবাঁধ সড়কে আবারও ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি

নরসিংদীতে সন্ত্রাসী হামলা, গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত : ০৭:২৮:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪
নরসিংদীর রায়পুরায় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব বিরোধের জেরে পলাশতলী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য ও বিশিষ্ঠ ঠিকাদার আব্দুল বাছেদ ভুইয়া ও তার লোকদের উপর আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা, গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় দোষীদের বিচার ও গ্রেফতারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। হামলার ঘটনায় অভিযোগ উঠেছে সম্প্রতি রায়পুরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সুমন হত্যার প্রধান আসামী আবিদ হাসান রুবেল ও তার সমর্থকদের বিরুদ্ধে।
রোববার (২৩ জুন) দুপুরে উপজেলার মেথিকান্দা গ্রামের নিজ বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন সাবেক বিআরডিবি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা হারুনুর রশিদ ভূইয়া।
সংবাদ সম্মেলনে হারুনুর রশিদ ভূইয়া বলেন, সুমন হত্যার প্রতিবাদ করার জেরে সন্ত্রাসী, ভুমিদস্যু, অস্ত্রবাজ, মাদক ব্যবসায়ী ও একাধিক মামলার পলাতক আসামী আবিদ হাসান রুবেল ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে তার ভাই আব্দুল বাছেদ মেম্বারসহ তার পরিবারের লোকদের ওপর গুলিবর্ষণ ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে গুলিবিদ্ধসহ ৪ জন স্বজন ও সমর্থক আহত হয়েছেন। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় থানায় তাদের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে। হামলাকারী সন্ত্রাসীদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় আছেন জানিয়ে দ্রুত  হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি করেন তিনি। এসময় তার ভাই সাবেক ইউপি মেম্বার আব্দুল বাসেদ, নূর মোহাম্মদ, জাহাঙ্গীর আলম দুলাল,শাজাহান সহ পরিবারের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, গত ২২ মে নির্বাচনী প্রচারনায় গিয়ে প্রতিপক্ষ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আবিদ হাসান রুবেল ও তার  সমর্থকদের হামলায় নিহত হন তালা প্রতীকের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. সুমন মিয়া। এরপরই হযরত আলী ওরফে হরজু সমর্থকদের সাথে লিয়াকত আলী মিস্ত্রি বাড়ির সমর্থকদের পূর্ব বিরোধ বেড়ে যায়। সেই সূত্র ধরেই শনিবার (২২ জুন) বিকেলে লেয়াকত আলী ওরফে লইক্কা মিস্ত্রি ও হরযত আলী ওরফে হরজু সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।