০২:৩৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ষড়যন্ত্রকারীদের কাছ থেকে সাবধান থাকতে হবে: সেতুমন্ত্রী

ইতিহাসের মানবতাবিরোধী খলনায়কদের ষড়যন্ত্র থেমে গেছে বলে মনে করেন না আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সেই সঙ্গে তার পরামর্শ, ষড়যন্ত্রকারীদের কাছ থেকে সবাইকে সাবধান থাকতে হবে।

তিনি বলেন, “খলনায়কদের জেনে রাখা উচিত- ১৯৭৫, ২০০৪ ও ২০১৭ এক নয়। আওয়ামী লীগ আগের যে কোনও সময়ের চেয়ে এখন অনেক বেশি সচেতন এবং শক্তিশালী। যে কোনও ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করার জন্য আমরা সব সময় প্রস্তুত রয়েছি।”

ঐতিহাসিক জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, “১৫ আগস্ট, ৩ নভেম্বর ও ২১ আগস্ট একই সূত্রে গাঁথা। একই নীল নকশার অংশ। খলনায়করাই এ ধরনের ঘৃণ্য ও জঘন্য হত্যকাণ্ড চালিয়েছে।

পরে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে জাতীয় তিন নেতার কবরে শ্রদ্ধা জানান আওয়ামী লীগ নেতারা। সেই সঙ্গে রাজশাহীতে অপর নেতা এএইচএম কামারুজ্জামানের কবরে দলের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা জাতীয় চারনেতাকে ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। সপরিবারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর সদ্য স্বাধীন দেশকে নেতৃত্বশূন্য করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি তাদের হত্যা করে।

জাতীয় এই চারনেতা হলেন- স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ, অর্থ, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং স্বরাষ্ট্র, বেসামরিক সরবরাহ, ত্রাণ, পুনর্বাসন ও কৃষিমন্ত্রী এএইচএম কামরুজ্জামান।

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

ষড়যন্ত্রকারীদের কাছ থেকে সাবধান থাকতে হবে: সেতুমন্ত্রী

প্রকাশিত : ০৮:৩৫:৪৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০১৭

ইতিহাসের মানবতাবিরোধী খলনায়কদের ষড়যন্ত্র থেমে গেছে বলে মনে করেন না আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সেই সঙ্গে তার পরামর্শ, ষড়যন্ত্রকারীদের কাছ থেকে সবাইকে সাবধান থাকতে হবে।

তিনি বলেন, “খলনায়কদের জেনে রাখা উচিত- ১৯৭৫, ২০০৪ ও ২০১৭ এক নয়। আওয়ামী লীগ আগের যে কোনও সময়ের চেয়ে এখন অনেক বেশি সচেতন এবং শক্তিশালী। যে কোনও ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করার জন্য আমরা সব সময় প্রস্তুত রয়েছি।”

ঐতিহাসিক জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, “১৫ আগস্ট, ৩ নভেম্বর ও ২১ আগস্ট একই সূত্রে গাঁথা। একই নীল নকশার অংশ। খলনায়করাই এ ধরনের ঘৃণ্য ও জঘন্য হত্যকাণ্ড চালিয়েছে।

পরে রাজধানীর বনানী কবরস্থানে জাতীয় তিন নেতার কবরে শ্রদ্ধা জানান আওয়ামী লীগ নেতারা। সেই সঙ্গে রাজশাহীতে অপর নেতা এএইচএম কামারুজ্জামানের কবরে দলের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা জাতীয় চারনেতাকে ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। সপরিবারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর সদ্য স্বাধীন দেশকে নেতৃত্বশূন্য করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি তাদের হত্যা করে।

জাতীয় এই চারনেতা হলেন- স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ, অর্থ, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং স্বরাষ্ট্র, বেসামরিক সরবরাহ, ত্রাণ, পুনর্বাসন ও কৃষিমন্ত্রী এএইচএম কামরুজ্জামান।