০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

১১ বছরের প্রতিবন্ধী কিশোরকে মারধর

  • গজনবী, ভোলা
  • প্রকাশিত : ০৭:৫২:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
  • 12

বাকপ্রতিবন্ধী কিশোর সিয়াম হোসেন

ভোলার দৌলতখানে সুপারি চুরির অভিযোগ এনে ১১ বছরের বাকপ্রতিবন্ধী কিশোর সিয়াম হোসেন আপনকে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার ১ সেপ্টেম্বর বিকেলে উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রুস্তম হাওলাদার বাড়িতে। সিয়াম বর্তমানে দৌলতখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সিয়াম উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের আওলাদ হোসেনের ছেলে। উক্ত ঘটনায় সিয়ামের মা মোসাঃ শাহিনা বেগম বাদী হয়ে দৌলতখান থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
বৃহস্পতিবার সিয়ামের পিতা আওলাদ হোসেন জানান, গত মঙ্গলবার বিকালে আমার ছেলে সিয়াম হোসেন আপন রাস্তার পাঁশে খেলাধুলা করছিলো । এসময় আলমগীর সহ তার ছেলে শান্ত (৩০) ও প্রান্ত (২৫) সেখান থেকে আমার বাকপ্রতিবন্ধী ছেলেকে তুলে নিয়ে সুপারি চুরির অভিযোগ এনে বাড়িতে নিয়ে বেধড়ক মারধর করে। খবর পেয়ে আমার স্ত্রী শাহিনা বেগম তাকে উদ্ধার করে দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান।
অন্যদিকে অভিযুক্ত আলমগীর জানান, বাকপ্রতিবন্ধী কিশোর সিয়াম হোসেন আপনকে কোন মারধর করা হয়নি । সিয়াম আমাদের গাছ থেকে সুপারি পেড়ে নিয়ে যাচ্ছে, এমন সংবাদ পেয়ে আমার ছেলে তাকে ধরে নিয়ে আসে। পরে তার পরিবারের লোকজনকে খবর দেন। সিয়ামের মা মোসাঃ শাহিনা বেগম এসে ছেলেকে মারধর করে নিয়ে যায়।
দৌলতখান থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. বজলার রহমান জানান, এঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ

জনপ্রিয়

ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে কর্মসংস্থান ব্যাংকের নবনিযুক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালকের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন

১১ বছরের প্রতিবন্ধী কিশোরকে মারধর

প্রকাশিত : ০৭:৫২:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

ভোলার দৌলতখানে সুপারি চুরির অভিযোগ এনে ১১ বছরের বাকপ্রতিবন্ধী কিশোর সিয়াম হোসেন আপনকে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার ১ সেপ্টেম্বর বিকেলে উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রুস্তম হাওলাদার বাড়িতে। সিয়াম বর্তমানে দৌলতখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সিয়াম উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের আওলাদ হোসেনের ছেলে। উক্ত ঘটনায় সিয়ামের মা মোসাঃ শাহিনা বেগম বাদী হয়ে দৌলতখান থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
বৃহস্পতিবার সিয়ামের পিতা আওলাদ হোসেন জানান, গত মঙ্গলবার বিকালে আমার ছেলে সিয়াম হোসেন আপন রাস্তার পাঁশে খেলাধুলা করছিলো । এসময় আলমগীর সহ তার ছেলে শান্ত (৩০) ও প্রান্ত (২৫) সেখান থেকে আমার বাকপ্রতিবন্ধী ছেলেকে তুলে নিয়ে সুপারি চুরির অভিযোগ এনে বাড়িতে নিয়ে বেধড়ক মারধর করে। খবর পেয়ে আমার স্ত্রী শাহিনা বেগম তাকে উদ্ধার করে দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান।
অন্যদিকে অভিযুক্ত আলমগীর জানান, বাকপ্রতিবন্ধী কিশোর সিয়াম হোসেন আপনকে কোন মারধর করা হয়নি । সিয়াম আমাদের গাছ থেকে সুপারি পেড়ে নিয়ে যাচ্ছে, এমন সংবাদ পেয়ে আমার ছেলে তাকে ধরে নিয়ে আসে। পরে তার পরিবারের লোকজনকে খবর দেন। সিয়ামের মা মোসাঃ শাহিনা বেগম এসে ছেলেকে মারধর করে নিয়ে যায়।
দৌলতখান থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. বজলার রহমান জানান, এঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ