ঢাকা দুপুর ১২:৩৭, বুধবার, ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মহামারিতে ভারতে অতিরিক্ত মৃত্যু ৪০ লাখ ছাড়িয়েছে: গবেষণা

ভারতের সরকারি তথ্য অনুযায়ী, করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মারা গেছেন ৪ লাখ ১৪ হাজারের কিছু বেশি মানুষ। তবে দেশটিতে করোনায় প্রকৃত মৃত্যুর সংখ্যা এর প্রায় দশগুণ, অর্থাৎ ৪০ লাখেরও বেশি বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট।

মঙ্গলবার এ বিষয়ক এক প্রতিবেদনে বিবিসি জানিয়েছে ভারতের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে তিনটি ভিন্ন উৎস থেকে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণের পর এ তথ্য জানতে পেরেছে সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট।

ভারতের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক মহমারিবিদরা অবশ্য আগেই বলেছিলেন, ভারতে করোনায় প্রকৃত মৃত্যুর সংখ্যা সরকারি হিসেবের চেয়ে অনেক বেশি, তবে তাদের ধারণা ছিল সরকারি হিসেবের চেয়ে এই সংখ্যা বড়জোর ৫ কিংবা ৭ গুণ বেশি হতে পারে ।

কিন্তু এটি যে দশগুণেরও বেশি হতে পারে, তা এর আগে কেউই অনুমান করতে পারেননি।

ভারতে করোনায় আক্রান্ত রোগী প্রথম শনাক্ত হয় ২০২০ সালের ৩০ জানুয়ারি, কেরালায়। তারপর বছরজুড়ে ব্যাপক মাত্রায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটার পর অক্টোবর থেকে দেশটিতে কমতে শুরু করে করোনায় দৈনিক আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা।

তবে তারপর মার্চের মাঝামাঝি থেকে ফের ভারতে বাড়তে থাকে সংক্রমণ-মৃত্যু। এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে বিপর্যয়ের চুড়ান্ত অবস্থায় পৌঁছায় ভারত। সরকারি হিসেব অনুযায়ী সে সময় থেকে জুনের প্রথম ১৫ দিন – দু’মাস প্রায় প্রতিদিন দেশটিতে করোনায় প্রতিদিন আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ বা তারও বেশি মানুষ, মারা গেছেন দৈনিক ৪ হাজারেরও অধিক।

সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্টের গবেষকরা জানিয়েছেন- বিশাল এই দেশটির স্বাস্থ্য ব্যবস্থার অবকাঠামোগত দুর্বলতা, সাধারণ মানুষের এই রোগটি বিষয়ে অজ্ঞতা ও দারিদ্র্যের কারণে অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর টেস্ট করাননি। চিকিৎসাও পাননি অনেকেই।

 

বিজনেস বাংলাদেশ/ আতিক

এ বিভাগের আরও সংবাদ