১১:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪

আর কত কতটা দুর্ভোগ পোহালে কর্তৃপক্ষের নজরে পড়বে

ভেড়ামারা দক্ষিণ রেলগেট নামক প্রধান রাস্তাটা এতটাই ভেঙে গেছে যে, চলাচল করার মত অবস্থা নাই। যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। একটি দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না। দৌলতপুর-ভেড়ামারা-কুষ্টিয়া চলাচল করার প্রধান রাস্তা এইটা এবং ভেড়ামারা পৌরসভার মধ্যে একটা প্রান কেন্দ্র বলা চলে। বৃষ্টির পানি জমে একেবারেই চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে রাস্তাটি। স্থানীয় মানুষের দুর্ভোগের কথা জনপ্রতিনিধিদের একাধিকবার জানানো হলেও কোন সংস্কার হয়নি।

ভেড়ামারা পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পর পর দুই দুইবার নির্বাচিত মেহেদী হাসান সবুজ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এই রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে গেছে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি একটু বৃষ্টি হলেই পানি ও কাঁদা জমে। তিনি আরও বলেন, সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্মকর্তাদের বারবার বলা হলেও কোন কাজ হচ্ছে না। উনারা শুধু ঘুরাই। স্থানীয় মোটর পার্টস সার্ভিসিং দোকান মালিক শাহিন বলেন, এত কষ্টে আমরা বসবাস করি যে, দোকানের সামনে সবসময় পানিও কাঁদা জমে থাকার কারণে কেউ দোকানে আসতে চায় না। আমাদের ব্যবসায় অনেক ক্ষতি হচ্ছে। জরুরিভাবে এই রাস্তাটা মেরামত করা প্রয়োজন।

ঝুঁকিপূর্ণ একটি রাস্তা দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে হাজারো পথচারী দৌলতপুর-ভেড়ামারা-কুষ্টিয়া প্রধান সড়ক হওয়া সত্বেও দীর্ঘদিন এটার কোন সংস্কার হয় নাই। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত ইজিবাই, বাস, ট্র্যাক, প্রাইভেটকার সহ নানা ধরনের যানবাহন চলাচল করে। বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক রাজনীতিবিদ মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, অতি তাড়াতাড়ি করে রাস্তাটি মেরামত করে মানুষের ঝুঁকি থেকে বাঁচানোর দাবি জানাচ্ছি। সেই সাথে স্থানীয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

 

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব

চারদিকে কি হচ্ছে,সেইদিকে নজর না রেখে নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে

আর কত কতটা দুর্ভোগ পোহালে কর্তৃপক্ষের নজরে পড়বে

প্রকাশিত : ০৩:৪৭:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

ভেড়ামারা দক্ষিণ রেলগেট নামক প্রধান রাস্তাটা এতটাই ভেঙে গেছে যে, চলাচল করার মত অবস্থা নাই। যেকোনো সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। একটি দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না। দৌলতপুর-ভেড়ামারা-কুষ্টিয়া চলাচল করার প্রধান রাস্তা এইটা এবং ভেড়ামারা পৌরসভার মধ্যে একটা প্রান কেন্দ্র বলা চলে। বৃষ্টির পানি জমে একেবারেই চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে রাস্তাটি। স্থানীয় মানুষের দুর্ভোগের কথা জনপ্রতিনিধিদের একাধিকবার জানানো হলেও কোন সংস্কার হয়নি।

ভেড়ামারা পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পর পর দুই দুইবার নির্বাচিত মেহেদী হাসান সবুজ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এই রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে গেছে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি একটু বৃষ্টি হলেই পানি ও কাঁদা জমে। তিনি আরও বলেন, সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্মকর্তাদের বারবার বলা হলেও কোন কাজ হচ্ছে না। উনারা শুধু ঘুরাই। স্থানীয় মোটর পার্টস সার্ভিসিং দোকান মালিক শাহিন বলেন, এত কষ্টে আমরা বসবাস করি যে, দোকানের সামনে সবসময় পানিও কাঁদা জমে থাকার কারণে কেউ দোকানে আসতে চায় না। আমাদের ব্যবসায় অনেক ক্ষতি হচ্ছে। জরুরিভাবে এই রাস্তাটা মেরামত করা প্রয়োজন।

ঝুঁকিপূর্ণ একটি রাস্তা দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে হাজারো পথচারী দৌলতপুর-ভেড়ামারা-কুষ্টিয়া প্রধান সড়ক হওয়া সত্বেও দীর্ঘদিন এটার কোন সংস্কার হয় নাই। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত ইজিবাই, বাস, ট্র্যাক, প্রাইভেটকার সহ নানা ধরনের যানবাহন চলাচল করে। বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক রাজনীতিবিদ মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, অতি তাড়াতাড়ি করে রাস্তাটি মেরামত করে মানুষের ঝুঁকি থেকে বাঁচানোর দাবি জানাচ্ছি। সেই সাথে স্থানীয় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

 

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব