ঢাকা সকাল ১১:৩৯, মঙ্গলবার, ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২৪শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পিটুপি ও বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের মধ্যে সমঝোতার স্বাক্ষর

করপোরেট প্রতিষ্ঠান পিটুপি’র সঙ্গে বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তির ফলে পিটুপি’র প্রতিটি কনসার্নের হাই ভ্যালুড কাস্টমার, প্রিভিলেজড কার্ড হোল্ডার, সদস্য, কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের বিভিন্ন শাখায় বিশেষ সুবিধা পাবেন। অন্যদিকে বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের কর্মকর্তা, কর্মচারী, কাস্টমার ও কার্ড হোল্ডাররা পিটুপি’র প্রিমিয়াম ক্লদিং ব্র্যান্ড স্ট্রাইপ, পিটুপি ফার্নিচার এবং পিটুপি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টারে যেকোনো কেনাকাটায় বিশেষ সুবিধা পাবেন।

পিটুপি’র পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জনাব মোস্তফা আশরাফুল ইসলাম আলভী, চেয়ারম্যান জনাব সাদমান সাইকা শেফা এবং বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা জনাব মঞ্জুরুল হক এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

এ সময় পিটুপি’র বিজনেস কনসালন্ট্যান্ট (সেলস্, মার্কেটিং এনড কমিনিউকেশন) জনাব মোহাম্মদ হাসান, ম্যানেজার (মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা) জনাব আমিনুল হাসান ও বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার এইচ এম ওমর ফারুক ও কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, নির্মাণ শিল্পের সবকিছু একই ছাদের নিচে এনে ২০১৩ সালে যাত্রা শুরু করে পিটুপি। পিটুপি’র রয়েছে নিজস্ব ডিজাইন ও নিজস্ব কনস্ট্রাকশন টিম। আছে নিজস্ব রড, সিমেন্ট, ব্রিকস, রেডি মিক্সের মতো কনস্ট্রাকশন ম্যাটেরিয়াল। টাইলস, স্যানিটারি, লাইট, ফার্নিচার, হার্ডওয়্যারসের মতো- যাবতীয় ফিনিশ ম্যাটেরিয়ালসও আছে একই ছাদের নিচে। এবং ৭০+ ইঞ্জিনিয়ার-আর্টিটেক্ট নিয়ে পিটুপি এখন একটি পরিপূর্ণ রিয়াল এস্টেট প্রতিষ্ঠান। যাদের অভিজ্ঞতা ও নিষ্ঠায় পিটুপি পারছে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই প্রজেক্টের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করতে।

এছাড়াও পিটুপি’র রয়েছে— পিটুপি ফার্নিচার, পিটুপি ইভেন্টস, পিটুপি ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশনস লিমিটেড, উইকন প্রপার্টিজ লিমিটেড, প্রিমিয়াম ক্লোদিং ব্র্যান্ড স্ট্রাইপ ও পিটুপি ৩৬০।

অন্যদিকে, চট্টগ্রামের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান এন মোহাম্মদ গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা এন মোহাম্মদের বড় ছেলে মঞ্জুরুল হকের হাত ধরে ২০১৩ সালে চট্টগ্রামে যাত্রা শুরু করে বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপ। বর্তমানে চট্টগ্রাম, ঢাকা ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে তাদের ২০টির অধিক রেস্টুরেন্ট রয়েছে। এসব রেস্টুরেন্টে স্থানীয় ও কনন্টিনেন্টাল খাবার পরিবেশন করা হয়। বারকোড রেস্টুরেন্ট গ্রুপে বর্তমানে প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

সব ধরনের গ্রাহকদের কাছে বিভিন্ন স্বাদের খাবার পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হওয়া বারকোড গ্রুপ নানা চ্যালেঞ্জ ও প্রতিবন্ধকতার পথ মাড়িয়ে এখন কোয়ালিটি বজায় রেখে মানুষের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। তাদের জনপ্রিয় খাবারগুলোর মধ্যে রয়েছে- চিকেন স্টিক মিল, ইংলিশ রোস্ট চিকেন, ফুচকা, দোসা ও মেজবান। অফলাইন ও অনলাইনে তাদের খাবারগুলো বিক্রি করা হয়।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব

এ বিভাগের আরও সংবাদ