০২:৩৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪

খুলনায় বাসের পর এবার লঞ্চ ধর্মঘট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

খুলনায় বাসের পর এবার লঞ্চ ধর্মঘট শুরু হয়েছে। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) সকাল থেকে খুলনা বিআইডব্লিউ লঞ্চ টার্মিনাল হতে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি এবং আসেনি। বাস ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীরা পড়েছেন দুর্ভোগে। খুলনা থেকে কয়রাসহ দক্ষিণাঞ্চলের তিনরুটে প্রতিদিন লঞ্চ চলাচল করে। এদিকে, বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, শনিবার (২২ অক্টোবর) খুলনা মহানগরীর ডাকবাংলো মোড়ে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ বানচাল করতে সরকারের নির্দেশে বাস মালিক সমিতি এই ধর্মঘট ডাকার পর এখন নৌ-পথও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ লঞ্চ লেবার অ্যাসোসিয়েশনের খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জানান, বেতন বৃদ্ধিসহ ১০ দফা দাবিতে তারা ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট আহবান করেছেন। এর সঙ্গে বিএনপির সমাবেশের কোনো সম্পর্ক নেই।

ধর্মঘটে থাকা শ্রমিকরা জানান, লঞ্চ শ্রমিকদের বেতন বাড়ানো, ভৈরব থেকে নওয়াপাড়া পর্যন্ত নদীর খনন, ভারতগামী জাহাজের ল্যান্ডিং পাস দেওয়ার দাবিসহ ১০ দফা দাবিতে ধর্মঘট পালন করছেন যাত্রীবাহী লঞ্চের শ্রমিকরা। শ্রমিকদের ধর্মঘটের কারণে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে খুলনা থেকে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যাচ্ছে না। তবে মালবাহীসহ অন্যান্য লঞ্চ ও নৌযান চলাচল করছে।

খুলনা মহানগর বিএনপির আহবায়ক শফিকুল আলম মনা বলেন, শনিবার (২২ অক্টোবর) খুলনার বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। এই গণসমাবেশে নেতাকর্মীদের আসা ঠেকাতে সরকারের নির্দেশে বাস মালিক সমিতি এই ধর্মঘট ডেকেছে। এখন নৌ-পথও বন্ধ করে দিয়েছে। কোনোভাবেই গণসমাবেশ ঠেকানো যাবে না। যেকোনো মূল্যে সমাবেশ সফল করা হবে। তবে, খুলনা থেকে রাজধানী ঢাকা ও রাজশাহীসহ উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব

মেঘনা ধনাগোদা সেচ প্রকল্প বেড়ীবাঁধ সড়কে আবারও ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি

খুলনায় বাসের পর এবার লঞ্চ ধর্মঘট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

প্রকাশিত : ০৩:৩৩:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ অক্টোবর ২০২২

খুলনায় বাসের পর এবার লঞ্চ ধর্মঘট শুরু হয়েছে। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) সকাল থেকে খুলনা বিআইডব্লিউ লঞ্চ টার্মিনাল হতে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি এবং আসেনি। বাস ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীরা পড়েছেন দুর্ভোগে। খুলনা থেকে কয়রাসহ দক্ষিণাঞ্চলের তিনরুটে প্রতিদিন লঞ্চ চলাচল করে। এদিকে, বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, শনিবার (২২ অক্টোবর) খুলনা মহানগরীর ডাকবাংলো মোড়ে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ বানচাল করতে সরকারের নির্দেশে বাস মালিক সমিতি এই ধর্মঘট ডাকার পর এখন নৌ-পথও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ লঞ্চ লেবার অ্যাসোসিয়েশনের খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জানান, বেতন বৃদ্ধিসহ ১০ দফা দাবিতে তারা ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট আহবান করেছেন। এর সঙ্গে বিএনপির সমাবেশের কোনো সম্পর্ক নেই।

ধর্মঘটে থাকা শ্রমিকরা জানান, লঞ্চ শ্রমিকদের বেতন বাড়ানো, ভৈরব থেকে নওয়াপাড়া পর্যন্ত নদীর খনন, ভারতগামী জাহাজের ল্যান্ডিং পাস দেওয়ার দাবিসহ ১০ দফা দাবিতে ধর্মঘট পালন করছেন যাত্রীবাহী লঞ্চের শ্রমিকরা। শ্রমিকদের ধর্মঘটের কারণে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে খুলনা থেকে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যাচ্ছে না। তবে মালবাহীসহ অন্যান্য লঞ্চ ও নৌযান চলাচল করছে।

খুলনা মহানগর বিএনপির আহবায়ক শফিকুল আলম মনা বলেন, শনিবার (২২ অক্টোবর) খুলনার বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। এই গণসমাবেশে নেতাকর্মীদের আসা ঠেকাতে সরকারের নির্দেশে বাস মালিক সমিতি এই ধর্মঘট ডেকেছে। এখন নৌ-পথও বন্ধ করে দিয়েছে। কোনোভাবেই গণসমাবেশ ঠেকানো যাবে না। যেকোনো মূল্যে সমাবেশ সফল করা হবে। তবে, খুলনা থেকে রাজধানী ঢাকা ও রাজশাহীসহ উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব