১২:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪

আ.লীগ নেতা সাইদার হত্যায় সাবেক চেয়ারম্যানসহ ২৩ কারাগারে

পাবনা পৌর আওয়ামী লীগ নেতা সাইদার মালিথা হত্যাকা-ের ঘটনায় হেমায়েতপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলাউদ্দিন মালিথাসহ ২৩ জনের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার (২৪ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে পাবনা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক ইসরাত জাহান মুন্নি তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়ে দেন।

আলাউদ্দিন মালিথা ছাড়া অন্যান্য আসামিরা হলেন- আলাউদ্দিন মালিথার ৭ ভাই গাফুরিয়াবাদের মৃত আহসান মালিথার ছেলে মো. হায়দার মালিথা (৪৮), মো. রঞ্জু মালিথা (৪০), মো. দুলাল মালিথা (৫৫), রাজু মালিথা (৪৫), আশরাফ মালিথা (৬৫), উজ্জল মালিথা (৩১) ও সঞ্জু মালিথা (২৮)। আশরাফ মালিথার ছেলে স্বপন মালিথা (৪০), শহরের চক ছাতিয়ানি মহল্লার ৃমত কালাম মালিথার ছেলে আশিক মালিথা (২৫), গাফুরিয়াবাদের মৃত হাসি মালিথার দুই ছেলে খোকন মালিথা (৩০) ও রোকন মালিথা (২৮), মোজাহার মালিথার দুই ছেলে আব্দুল সামাদ মালিথা (৩৫) ও জলিল মালিথা (৩০), কাফি মালিথার ছেলে হৃদয় মালিথা (২০), চর প্রতাপপুর গ্রামের ফটিক প্রামাণিকের ছেলে শরীফ প্রামাণিক (৩২) ও মো. পিন্টু (৩৮), কৃষ্ণদিয়ার গ্রামের মৃত আফিল শেখের ছেলে আব্দুল রাজ্জাক (৬০) এবং গাফুরিয়াবাদ এলাকার মৃত হেলাল মালিথার ছেলে নাছির মালিথা।

এর আগে ঘটনার ৩ দিন পরে এজাহারভুক্ত দুই আসামি স্বপন ও আশিক মালিথাসহ পাবনা শহরের কাশিপুরের মো. শাজাহান খানের ছেলে মো. রিপন খান (২৭), মাটি সড়ক গোপালপুরের আকবার হোসেনের ছেলে মো. নুরুজ্জামান রাকিব (২৪), একই এলাকার মো. রমজান আলীর ছেলে মো. ইয়াসিন আরাফাত ইস্তি (২৬) ও চক ছাতিয়ানির মৃত আব্দুল হাকিম মালিথার ছেলে মোহাম্মদ আলিফ মালিথা (২২)কে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। আর বাকিরা চলতি মাসের ৩ অক্টোবর হাইকোর্ট থেকে অস্থায়ী জামিন নিয়েছিলেন।

আজকে জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ১৭ জন হাইকোর্টের নির্দেশনা মতে আত্মসমর্পণ করেন আর কারাগারে থাকা ৬ জনকে হাজির করা হয়। পরে শুনানি শেষে ২৩ জনকেই কারাগারে পাঠানো হয়। এছাড়া এজাহারভুক্ত আসলাম শেখ এখনও পলাতক রয়েছেন।

আদালতের রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ খান রতন। আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট তৌফিক ইমাম খান ও বাদীপক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মীর রাকিব আলম রিজন।

এতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে অ্যাডভোকেট মীর রাকিব আলম রিজন বলেন, ‘হাইকোর্টে জামিনপ্রাপ্ত আসামিরা আত্মসমর্পণ করেছিলেন। বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন। আশা করি- দ্রুতই বিচার কার্যক্রম শুরু হবে।’

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের চর বাঙাবাড়িয়ার নজুর মোড়ে চা খাচ্ছিলেন সাইদার মালিথা (৫০)। এ সময় ৬-৭ জন সন্ত্রাসী তাকে ঘিরে ধরে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে। নিহত সাইদার মালিথা হেমায়েতপুরের চর প্রতাপপুর কাবলিপাড়ার মৃত হারান মালিথার ছেলে। তিনি পাবনা পৌর আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব

চারদিকে কি হচ্ছে,সেইদিকে নজর না রেখে নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে

আ.লীগ নেতা সাইদার হত্যায় সাবেক চেয়ারম্যানসহ ২৩ কারাগারে

প্রকাশিত : ০১:৩৩:৫৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ অক্টোবর ২০২২

পাবনা পৌর আওয়ামী লীগ নেতা সাইদার মালিথা হত্যাকা-ের ঘটনায় হেমায়েতপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলাউদ্দিন মালিথাসহ ২৩ জনের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার (২৪ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে পাবনা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক ইসরাত জাহান মুন্নি তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়ে দেন।

আলাউদ্দিন মালিথা ছাড়া অন্যান্য আসামিরা হলেন- আলাউদ্দিন মালিথার ৭ ভাই গাফুরিয়াবাদের মৃত আহসান মালিথার ছেলে মো. হায়দার মালিথা (৪৮), মো. রঞ্জু মালিথা (৪০), মো. দুলাল মালিথা (৫৫), রাজু মালিথা (৪৫), আশরাফ মালিথা (৬৫), উজ্জল মালিথা (৩১) ও সঞ্জু মালিথা (২৮)। আশরাফ মালিথার ছেলে স্বপন মালিথা (৪০), শহরের চক ছাতিয়ানি মহল্লার ৃমত কালাম মালিথার ছেলে আশিক মালিথা (২৫), গাফুরিয়াবাদের মৃত হাসি মালিথার দুই ছেলে খোকন মালিথা (৩০) ও রোকন মালিথা (২৮), মোজাহার মালিথার দুই ছেলে আব্দুল সামাদ মালিথা (৩৫) ও জলিল মালিথা (৩০), কাফি মালিথার ছেলে হৃদয় মালিথা (২০), চর প্রতাপপুর গ্রামের ফটিক প্রামাণিকের ছেলে শরীফ প্রামাণিক (৩২) ও মো. পিন্টু (৩৮), কৃষ্ণদিয়ার গ্রামের মৃত আফিল শেখের ছেলে আব্দুল রাজ্জাক (৬০) এবং গাফুরিয়াবাদ এলাকার মৃত হেলাল মালিথার ছেলে নাছির মালিথা।

এর আগে ঘটনার ৩ দিন পরে এজাহারভুক্ত দুই আসামি স্বপন ও আশিক মালিথাসহ পাবনা শহরের কাশিপুরের মো. শাজাহান খানের ছেলে মো. রিপন খান (২৭), মাটি সড়ক গোপালপুরের আকবার হোসেনের ছেলে মো. নুরুজ্জামান রাকিব (২৪), একই এলাকার মো. রমজান আলীর ছেলে মো. ইয়াসিন আরাফাত ইস্তি (২৬) ও চক ছাতিয়ানির মৃত আব্দুল হাকিম মালিথার ছেলে মোহাম্মদ আলিফ মালিথা (২২)কে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। আর বাকিরা চলতি মাসের ৩ অক্টোবর হাইকোর্ট থেকে অস্থায়ী জামিন নিয়েছিলেন।

আজকে জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ১৭ জন হাইকোর্টের নির্দেশনা মতে আত্মসমর্পণ করেন আর কারাগারে থাকা ৬ জনকে হাজির করা হয়। পরে শুনানি শেষে ২৩ জনকেই কারাগারে পাঠানো হয়। এছাড়া এজাহারভুক্ত আসলাম শেখ এখনও পলাতক রয়েছেন।

আদালতের রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ খান রতন। আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট তৌফিক ইমাম খান ও বাদীপক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মীর রাকিব আলম রিজন।

এতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে অ্যাডভোকেট মীর রাকিব আলম রিজন বলেন, ‘হাইকোর্টে জামিনপ্রাপ্ত আসামিরা আত্মসমর্পণ করেছিলেন। বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন। আশা করি- দ্রুতই বিচার কার্যক্রম শুরু হবে।’

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের চর বাঙাবাড়িয়ার নজুর মোড়ে চা খাচ্ছিলেন সাইদার মালিথা (৫০)। এ সময় ৬-৭ জন সন্ত্রাসী তাকে ঘিরে ধরে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে। নিহত সাইদার মালিথা হেমায়েতপুরের চর প্রতাপপুর কাবলিপাড়ার মৃত হারান মালিথার ছেলে। তিনি পাবনা পৌর আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব