০২:৫৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

রাজধানী’তে সক্রিয় চাঁদাবাজি ও “কিশোর গ্যাং”গ্রুপের ১৬ জন’কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-২

র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‍্যাব-২ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিভিন্ন ধরনের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জোরালো ভূমিকা পালন করে আসছে।

তারাই ধারাবাহিকতায় গতকাল ৩১ মার্চ ২০২৪ ইং র‍্যাব-২ এর একাধিক আভিযানিক দল রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান ও চাঁদ উদ্যান এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাই, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত কিশোর গ্যাং এর সক্রিয় সদস্য ইসমাইল (২১)আরিফ (২১)ইমন (২৫)নাজমুল (২৩)নাদিম (৩৩)মোঃ ওয়াকিল (৩৬)মোঃ মোজাক্কিন (২০)মান্না (২১)সোহেল (৩৫)জাহিদ (৩৫)বেলাল (৩০)মোঃ দিপু (২১)মোঃ শান্ত (২০)মোঃ তাওসীফ (১৯)মোঃ তপু (১৯) এবং মোঃ লিটন মিয়া সিএনজি লিটন (২৮)দের’কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার কালে তাদের হেফাজত হতে উদ্ধার করা হয় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রমে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র চাপাতি,ডেগার, ছুরি, চাকু, চাইনিজ কুড়াল, এন্টি কাটার ও বিভিন্ন দেশীয় ধারালো অস্ত্র।

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে সক্রিয় হয়ে উঠেছে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। বিভিন্ন মার্কেট ও সড়কগুলোতে ত্রাস সৃষ্টি করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ছিনতাই ও চাঁদাবাজি করছে। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান ও চাঁদ উদ্যান এলাকায় বেশ কয়েকটি ‘কিশোর গ্যাং’ গ্রুপের সদস্য কর্তৃক চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম লক্ষ্য করা যাচ্ছে। মোহাম্মদপুর ও এর আশপাশের এলাকায় বেশ কয়েকটি চাঁদাবাজি ও অন্যান্য সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সম্পর্কে স্থানীয় জনসাধারণ এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, প্রিন্ট মিডিয়া ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া হতে তথ্য পায় র‌্যাব। ফলশ্রুতিতে র‍্যাব-২ টহল ও গোয়েন্দা কার্যক্রম বৃদ্ধি করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ১৬ জন কিশোর গ্যাং সদস্যদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার পূর্বক তাদের নিকট হতে জানা যায়, তারা ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধ এলাকায় চাঁদাবাজি ও অন্যান্য সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করতো। উল্লিখিত কিশোর গ্যাং সদস্যরা আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে রাতের আধারে একাকী পথচারীদের আকস্মিকভাবে ঘিরে ধরে চাপাতিসহ ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক অর্থ ও মূল্যবান সামগ্রী ছিনতাই করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

তারা বিভিন্ন সময় চাঁদাবাজিসহ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধসহ পাশর্বর্তী এলাকায় দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারামারিসহ বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করতো। গ্রেফতারকৃতরা দিনের বেলায় আত্মগোপনে থেকে রাতের বেলায় ছিনতাই ও চাঁদাবাজি করতো বলে জানা যায়। গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মাদক, ছিনতাই ও মারামারি সংক্রান্ত মামলা রয়েছে এবং এ সকল মামলায় কারাভোগ করেছে বলে জানা যায়। প্রাপ্ত তথ্য যাচাই বাছাই করে র‌্যাব এ ধরনের অভিযান অব্যাহত রাখবে।গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রাজধানীর বিভিন্ন থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS

ট্যাগ :
জনপ্রিয়

ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে কর্মসংস্থান ব্যাংকের নবনিযুক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালকের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন

রাজধানী’তে সক্রিয় চাঁদাবাজি ও “কিশোর গ্যাং”গ্রুপের ১৬ জন’কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-২

প্রকাশিত : ১২:১০:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‍্যাব-২ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিভিন্ন ধরনের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জোরালো ভূমিকা পালন করে আসছে।

তারাই ধারাবাহিকতায় গতকাল ৩১ মার্চ ২০২৪ ইং র‍্যাব-২ এর একাধিক আভিযানিক দল রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান ও চাঁদ উদ্যান এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ছিনতাই, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত কিশোর গ্যাং এর সক্রিয় সদস্য ইসমাইল (২১)আরিফ (২১)ইমন (২৫)নাজমুল (২৩)নাদিম (৩৩)মোঃ ওয়াকিল (৩৬)মোঃ মোজাক্কিন (২০)মান্না (২১)সোহেল (৩৫)জাহিদ (৩৫)বেলাল (৩০)মোঃ দিপু (২১)মোঃ শান্ত (২০)মোঃ তাওসীফ (১৯)মোঃ তপু (১৯) এবং মোঃ লিটন মিয়া সিএনজি লিটন (২৮)দের’কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার কালে তাদের হেফাজত হতে উদ্ধার করা হয় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রমে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র চাপাতি,ডেগার, ছুরি, চাকু, চাইনিজ কুড়াল, এন্টি কাটার ও বিভিন্ন দেশীয় ধারালো অস্ত্র।

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে সক্রিয় হয়ে উঠেছে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। বিভিন্ন মার্কেট ও সড়কগুলোতে ত্রাস সৃষ্টি করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ছিনতাই ও চাঁদাবাজি করছে। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ঢাকা উদ্যান ও চাঁদ উদ্যান এলাকায় বেশ কয়েকটি ‘কিশোর গ্যাং’ গ্রুপের সদস্য কর্তৃক চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম লক্ষ্য করা যাচ্ছে। মোহাম্মদপুর ও এর আশপাশের এলাকায় বেশ কয়েকটি চাঁদাবাজি ও অন্যান্য সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সম্পর্কে স্থানীয় জনসাধারণ এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, প্রিন্ট মিডিয়া ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া হতে তথ্য পায় র‌্যাব। ফলশ্রুতিতে র‍্যাব-২ টহল ও গোয়েন্দা কার্যক্রম বৃদ্ধি করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ১৬ জন কিশোর গ্যাং সদস্যদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার পূর্বক তাদের নিকট হতে জানা যায়, তারা ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধ এলাকায় চাঁদাবাজি ও অন্যান্য সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করতো। উল্লিখিত কিশোর গ্যাং সদস্যরা আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে রাতের আধারে একাকী পথচারীদের আকস্মিকভাবে ঘিরে ধরে চাপাতিসহ ধারালো অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক অর্থ ও মূল্যবান সামগ্রী ছিনতাই করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

তারা বিভিন্ন সময় চাঁদাবাজিসহ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঢাকা উদ্যান, চাঁদ উদ্যান ও বেড়িবাঁধসহ পাশর্বর্তী এলাকায় দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারামারিসহ বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করতো। গ্রেফতারকৃতরা দিনের বেলায় আত্মগোপনে থেকে রাতের বেলায় ছিনতাই ও চাঁদাবাজি করতো বলে জানা যায়। গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মাদক, ছিনতাই ও মারামারি সংক্রান্ত মামলা রয়েছে এবং এ সকল মামলায় কারাভোগ করেছে বলে জানা যায়। প্রাপ্ত তথ্য যাচাই বাছাই করে র‌্যাব এ ধরনের অভিযান অব্যাহত রাখবে।গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রাজধানীর বিভিন্ন থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS