০৪:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

দুর্নীতির মামলায় আটক ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার অহিদুল বরখাস্ত

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় আটক বাংলাদেশ রেজিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের (বিআরএসএ) সভাপতি ও ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার অহিদুল ইসলামকে (৪৭) চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

রোববার (১২ মে) আইন মন্ত্রণালয় থেকে এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

এতে বলা হয়, দুর্নীতি দমন কমিশন ঢাকা-১-এর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের ২১ সেপ্টেম্বরের মামলায় গত ৩০ এপ্রিল অভিযোগপত্র গৃহীত হওয়ায় এবং একই তারিখে তাকে হাজতে পাঠানোয় সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮-এর ধারা ৩৯-এর উপধারা ২ অনুযায়ী উক্ত তারিখ থেকে তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

সাময়িক বরখাস্তকালে তিনি নিবন্ধন অধিদপ্তরে সংযুক্ত থাকবেন এবং বিধি মোতাবেক খোরাকি ভাতাসহ অন্যান্য সুবিধাদি পাবেন।

সম্পদের তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে অহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে ২০২৩ সালের ২১ সেপ্টেম্বর মামলা করে দুদক। তার বিরুদ্ধে ৯৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার সম্পদের মিথ্যা তথ্য বা ভিত্তিহীন তথ্য দাখিল এবং জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ ১ কোটি ২১ লাখ ৫৫ হাজার ৬৪৯ টাকার সম্পদ ভোগদখলে রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে, গত ৩০ এপ্রিল জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS

দুর্নীতির মামলায় আটক ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার অহিদুল বরখাস্ত

প্রকাশিত : ০৩:১৮:০৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় আটক বাংলাদেশ রেজিস্ট্রেশন সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের (বিআরএসএ) সভাপতি ও ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার অহিদুল ইসলামকে (৪৭) চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

রোববার (১২ মে) আইন মন্ত্রণালয় থেকে এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

এতে বলা হয়, দুর্নীতি দমন কমিশন ঢাকা-১-এর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের ২১ সেপ্টেম্বরের মামলায় গত ৩০ এপ্রিল অভিযোগপত্র গৃহীত হওয়ায় এবং একই তারিখে তাকে হাজতে পাঠানোয় সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮-এর ধারা ৩৯-এর উপধারা ২ অনুযায়ী উক্ত তারিখ থেকে তাকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

সাময়িক বরখাস্তকালে তিনি নিবন্ধন অধিদপ্তরে সংযুক্ত থাকবেন এবং বিধি মোতাবেক খোরাকি ভাতাসহ অন্যান্য সুবিধাদি পাবেন।

সম্পদের তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে অহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে ২০২৩ সালের ২১ সেপ্টেম্বর মামলা করে দুদক। তার বিরুদ্ধে ৯৪ লাখ ৫০ হাজার টাকার সম্পদের মিথ্যা তথ্য বা ভিত্তিহীন তথ্য দাখিল এবং জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ ১ কোটি ২১ লাখ ৫৫ হাজার ৬৪৯ টাকার সম্পদ ভোগদখলে রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে, গত ৩০ এপ্রিল জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বিজনেস বাংলাদেশ/DS