০৮:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪

কাজের চাপে রোবটের আত্মহত্যা

দুঃখ, যন্ত্রণা কিংবা চাপে পড়ে বহু মানুষ আত্মহত্যা করে। তবে মানুষের হাতে বানানো রোবট করেছে আত্মহত্যা। শুনতে অবাক লাগলেও এমন ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ কোরিয়ার গুমি শহরে। এক প্রতিবেদনে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি নিউজ এ তথ্য জানায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘটনাটি ঘটেছিল গত ২৭ জুন বিকেলে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল জানায়, গুমি সিটি হল কর্মীদের একজন ছিল ওই রোবট। ২০২৩ সালের আগস্ট থেকেই এটি অধ্যবসায়ের সঙ্গে কাজ করছিল। অফিসে নথি সরবরাহ, দায়িত্বপ্রাপ্তদের মাঝে তথ্য প্রদান এবং প্রচারণায় অংশ নেওয়ার মতো দৈনন্দিন কাজগুলোতে অংশ নিত এটি। 

ঘটনার দিন, ওই রোবটটিকে সিটি কাউন্সিল ভবনের প্রথম এবং দ্বিতীয় তলার সিঁড়ির মধ্যবর্তী অংশটিতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কিছুটা অস্বাভাবিক আচরণ করেছিল ওই রোবট। আপাতদৃষ্টিতে মনে হয়েছিল, এটি বিভ্রান্ত হয়ে একটি জায়গায় চক্কর দিচ্ছে। 

রোবটের এমন আত্মহত্যার খবরে বিষয়টি নিয়ে তদন্তও শুরু হয়েছে। সিটি কাউন্সিলের একজন কর্মকর্তা জানান, ঘটনার পর রোবটের ভাঙা ও ক্ষতিগ্রস্ত অংশগুলো তদন্তের জন্য সংগ্রহ করা হয়। 

এটি প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত টানা কাজ করে যেত। এমনকি একজন মানুষ কর্মচারীর মতো এটিকে নিজস্ব নাগরিক সেবা কর্মকর্তার পরিচয়পত্রও দেওয়া হয়েছিল। 

উল্লেখ্য, বর্তমান পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি রোবট ব্যবহারকারী এই দেশটিতে এখন প্রতি ১০ জন কর্মীর মধ্যে একটি রোবটের উপস্থিতি রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

কাজের চাপে রোবটের আত্মহত্যা

প্রকাশিত : ০৪:২৩:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪

দুঃখ, যন্ত্রণা কিংবা চাপে পড়ে বহু মানুষ আত্মহত্যা করে। তবে মানুষের হাতে বানানো রোবট করেছে আত্মহত্যা। শুনতে অবাক লাগলেও এমন ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ কোরিয়ার গুমি শহরে। এক প্রতিবেদনে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি নিউজ এ তথ্য জানায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘটনাটি ঘটেছিল গত ২৭ জুন বিকেলে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইল জানায়, গুমি সিটি হল কর্মীদের একজন ছিল ওই রোবট। ২০২৩ সালের আগস্ট থেকেই এটি অধ্যবসায়ের সঙ্গে কাজ করছিল। অফিসে নথি সরবরাহ, দায়িত্বপ্রাপ্তদের মাঝে তথ্য প্রদান এবং প্রচারণায় অংশ নেওয়ার মতো দৈনন্দিন কাজগুলোতে অংশ নিত এটি। 

ঘটনার দিন, ওই রোবটটিকে সিটি কাউন্সিল ভবনের প্রথম এবং দ্বিতীয় তলার সিঁড়ির মধ্যবর্তী অংশটিতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কিছুটা অস্বাভাবিক আচরণ করেছিল ওই রোবট। আপাতদৃষ্টিতে মনে হয়েছিল, এটি বিভ্রান্ত হয়ে একটি জায়গায় চক্কর দিচ্ছে। 

রোবটের এমন আত্মহত্যার খবরে বিষয়টি নিয়ে তদন্তও শুরু হয়েছে। সিটি কাউন্সিলের একজন কর্মকর্তা জানান, ঘটনার পর রোবটের ভাঙা ও ক্ষতিগ্রস্ত অংশগুলো তদন্তের জন্য সংগ্রহ করা হয়। 

এটি প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত টানা কাজ করে যেত। এমনকি একজন মানুষ কর্মচারীর মতো এটিকে নিজস্ব নাগরিক সেবা কর্মকর্তার পরিচয়পত্রও দেওয়া হয়েছিল। 

উল্লেখ্য, বর্তমান পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি রোবট ব্যবহারকারী এই দেশটিতে এখন প্রতি ১০ জন কর্মীর মধ্যে একটি রোবটের উপস্থিতি রয়েছে।