ঢাকা সকাল ৮:৩৭, বুধবার, ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

৬ মাসেই দৃশ্যমান মেট্রোরেল

আগামী ছয় মাসের মধ্যে বহুল প্রতীক্ষিত মেট্রোরেল প্রকল্প দৃশ্যমান হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল দুপুরে রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়িতে মেট্রোরেল নির্মাণ প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনে এসে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, মেট্রোরেল যেভাবে শুরু হয়েছে, মাঝখানে হলি আর্টিজান ট্রাজেডির কারণে কাজ বন্ধের উপক্রম হয়েছিল। এ কারণে কাজের কিছুটা ধীরগতি ছিল। তবে বর্তমানে ১০-১২% কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ছয় মাসের মধ্যে জনগণের কাছে পদ্মা সেতুর মতো মেট্রোরেল প্রকল্পও দৃশ্যমান হবে। সেতুমন্ত্রী বলেন, ২০১৯ সাল নাগাদ আগারগাঁও পর্যন্ত কাজ শেষ হবে এবং
২০২০ সালে বাংলাদেশ ব্যাংক পর্যন্ত প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, মেট্রোরেল প্রকল্পে ৩২ কিলোমিটার আন্ডারগ্রাউন্ড থাকবে। ইতোমধ্যে আটটি টেন্ডারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন টেন্ডার কাজ শেষ হলে গ্রাউন্ডের কাজ শুরু হবে। জামায়াতে ইসলামীর আট নেতা গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার হরতাল ডেকেছে সংগঠনটি। এ প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রাজনীতিকে কেউ যদি সহিংসতার দিকে নিয়ে যায়, তাহলে উদ্ভূত পরিস্থিতি বলে দেবে জবাব কী! সহিংসতা সৃষ্টি করে এদেশে কোনো আন্দোলন গড়ে তোলা যায় না এর প্রমাণ ৫ জানুয়ারি পরবর্তী বিএনপির অবরোধ কর্মসূচি। তখন গাড়ি পোড়ানো হয়েছিল, মানুষ পুড়িয়ে মারা হয়েছিল, রেললাইন উপড়ে ফেলা হয়েছিল, রাস্তা কেটে ফেলা হয়েছিল, পুলিশ বাহীনির উপর আক্রমণ করা হয়েছিল। কিন্তু আন্দোলন সফল করা যায়নি। তখন বিএনপি-জামায়াত জনগণের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিল।’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সহিংস রাজনীতির কোনো পজিটিভ রেজাল্ট নেই, সেটি ৫ জানুয়ারির নির্বাচনউত্তর পরিস্থিতি প্রমাণ করে। সহিংসতা যারাই করবে তারা জনগণের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। যখনই আন্দোলন সহিংস রূপ নেবে তখন জবাবও হবে সেরকম।’ মন্ত্রী বলেন, ‘আগামীকালের হরতালে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঠে থাকার কোনো প্রয়োজন নেই। সেরকম অবস্থা আমাদের বিরোধীদলের নেই। আন্দোলন করার সক্ষমতাও তাদের নেই।

এ বিভাগের আরও সংবাদ