ঢাকা বিকাল ৪:২৬, বৃহস্পতিবার, ৮ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘এটাই আমার শেষ খেলা না’-তামিম

প্রথম ওয়ানডের আগে শোনা যাচ্ছিল, ইনজুরি পুরোপুরিই সেরেছে টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ মিস করা তামিম ইকবালের। তবে তামিমকে একাদশে না দেখে অবাক হন অনেকেই। পরবর্তীতে জানা যায়, পুরোপুরি ফিট হয়ে না ওঠায়ই তামিমকে খেলানোর ঝুঁকি নেননি ফিজিও।
যদিও একই সময়ে তামিম ও কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে নিয়ে অনেক জলঘোলা হয়। এক মিডিয়া কর্মীর দাবি অনুযায়ী, প্রথম ওয়ানডের আগে অনুশীলনে কোচের উপর মেজাজ দেখিয়ে ব্যাট ছুঁড়ে ফেলেছিলেন তামিম, যার রেশ ছিল একাদশে না থাকা পর্যন্ত। যদিও এমন দাবির সত্যতা যাচাইও হয়নি, আর তামিমও অস্বীকার করেছেন এমন ঘটনা।
মঙ্গলবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে তামিম কথা বলেন তার ইনজুরি প্রসঙ্গে।
তিনি বলেন, ব্যথা অল্প থাকলেও বিশেষজ্ঞদের কথা অমান্য করেননি তিনি; আর এজন্যই ছিলেন না প্রথম ম্যাচের দলে- ‘গত ম্যাচে ব্যথা ছিল। হয়তো সেই পর্যায়ে ছিল না। তারপরও বিশেষজ্ঞের মতামত নেওয়াটা আমি বেশি পছন্দ করেছি। এই কারণেই আমাদের ক্রিকেট বোর্ড বিশেষজ্ঞদের নিয়ে আসে। আজকেও আমি একই রুটিন অনুসরণ করবো। আজকে দেখা যাক কী হয়।‘
ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় নিয়ে আসা দ্বিতীয় ম্যাচকে ঘিরে পৃথক কোনো পরিকল্পনা নেই তামিমের। তবে ভালো করার জন্য শুরুটাও ভালো চাই তার- ‘আমার কাজ হল ভালোভাবে প্রস্তুত হওয়া। খেলাটাকে প্রতি বল হিসেবে দেখা। এরপর যদি আমি ভালো শুরু পাই, তারপর দেখা যাবে।’
প্রথম ওয়ানডেতে তামিম ছিলেন না দলে, বাংলাদেশও ম্যাচ হেরেছে বাজেভাবে। অনেকেই মনে করছেন, তামিম থাকলে বদলে যেতে পারতো ম্যাচের চিত্র। তবে এই ব্যাপারটি মাথায় রেখে ঝুঁকি নিয়ে খেলতে মোটেও রাজী নন সচেতন এই ব্যাটসম্যান। তামিম মনে করিয়ে দেন, এটাই নয় তার শেষ ম্যাচ।
তামিম বলেন, ‘একটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে, এটাই আমার শেষ খেলা না। এটাই বাংলাদেশ দলের শেষ সফর না। যদি আমি এখানে আমি কিছু করতে গিয়ে আবার চোট পাই তাহলে আমি প্রায় দুই মাসের জন্য মাঠের বাইরে চলে যাব।‘

এ বিভাগের আরও সংবাদ