ঢাকা সকাল ৬:৩২, বুধবার, ১লা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ভোলায় হঠাৎ বৃদ্ধি ডায়রিয়ার প্রকোপ

ভোলায় হঠাৎ করেই বৃদ্ধি পেয়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দিতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসক-নার্সরা।

হাসপাতালে রোগীদের চাপ থাকায় বেশিরভাগ রোগীকে মেঝেতে থেকে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

আবহাওয়ার পরিবর্তনজনিত কারণে গরমের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যবিভাগ।

এদিকে ভোলা সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীদের ভিড়। প্রতিদিনিই এখানে গড়ে ৪০ থেকে ৫০ জন করে রোগী ভর্তি হচ্ছেন। এদের মধ্যে নারী, শিশু ও মধ্য বয়স্কদের সংখ্যাই বেশি। শয্যা কম থাকায় রোগীদের মেঝেতে থেকে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

ডায়রিয়া ওয়ার্ডে সুমাইয়া (১১) নামে রোগীর এক স্বজন জানান, গতকাল থেকে বাচ্চার ডায়রিয়া ও বমি দেখা দেয়। আজ সকালে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে এসছি, তার চিকিৎসা চলছে।

ডায়রিয়া রোগী পারভীন বেগম জানান, তিনি ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে সদরের সুদেরহাট গ্রাম থেকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসছেন।
রোগীর স্বজন রিয়াজ বলেন, তার ছোট বোনের ডায়রিয়া হয়েছে, হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে।

রোগীদের চাপ বেড়ে গেলেও তাদের ঠিকমত চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত নার্সরা।
ভোলা হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স নাসরিন আক্তার বলেন, ডায়রিয়া রোগীদের চাপ বেশি থাকায় আমাদের চিকিৎসা সেবা দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এখানে ডায়রিয়ার ১০টি বেডে বর্তমানে রোগী আছেন ৫০ জন। আমরা রোগীদের যথাসাধ্য চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।
ভোলার সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ রেজাউল ইসলাম  জানিয়েছেন, ডায়রিয়া রোগীদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পর্যাপ্ত ওষুধ-স্যালাইন সরবরাহ রয়েছে। গরমের কারণে ডায়রিয়া বেড়েছে। তবে এর প্রকোপ তেমন বেশি নয়, আক্রান্ত নিয়ন্ত্রণে আছে।

জেলার সাতটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শতাধিক ডায়রিয়া চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের আরও সংবাদ