ঢাকা দুপুর ২:০২, শনিবার, ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিটে ৭ অভিযোগের বিষয়ে ৩ টি অভিযানসহ সরজমিনে পদক্ষেপ গ্রহণ

দুদকের অভিযান এক নতুন ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়ন, নম্বর প্লেট, ফিটনেস, লার্নার, মালিকানা পরিবর্তনসহ প্রত্যেকটি কাজে বাংলাদেশ রোড এন্ড ট্রান্সপোর্ট অথোরিটি (বিআরটিএ) অফিসের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঘুষ গ্রহণ এবং দালালদের দৌরাত্ম সংক্রান্ত অভিযোগের বিষয়ে বিআরটিএ অফিস, উত্তরা, ঢাকাতে আজ ২০ জুন ২২ তারিখে দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক রণজিৎ কুমার কর্মকার এর নেতৃত্ব ও উপসহকারী পরিচালক মো: কামিয়াব আফতাহি-উন-নবী এর সমন্বয়ে গঠিত টিম একটি এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালনা করেছে।

অভিযানকালে টিম সেবা গ্রহীতার ছদ্মবেশে অফিস প্রাঙ্গন থেকে ২ জন দালাল এবং ফটোকপি দোকানের ২ জন মালিক ও ১ জন কর্মচারীকে অনৈতিক সুবিধা পাইয়ে দেয়ার লোভ দেখিয়ে ঘুষ গ্রহণের সময় হাতেনাতে ধরে ফেলে। পরবর্তীতে বিআরটিএ সদর কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জুবের আলম এর ভ্রাম্যমাণ আদালতে আটককৃত আসামিগণ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ায়, বিজ্ঞ আদালত তাদের ৪ জনকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ১ জনকে ১৪ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে এবং অভিযোগ সংশ্লিষ্ট ২টি কম্পিউটার দোকান সিলগালা করে দেন।

এ ব্যাপারে উক্ত অফিসের সহকারী পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কর্মকর্তাদের সতর্ক করে দেয় টিম এবং সংশ্লিষ্ট রেকর্ডপত্র সংগ্রহ করে। সংগৃহীত রেকর্ডপত্র পর্যালোচনাপূর্বক পরবর্তী কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে কমিশন বরাবর প্রতিবেদন দাখিল করবে এনফোর্সমেন্ট টিম।

দুদকের অভিযান দুই এর উপজেলা বন অফিস, ভুরুঙ্গামারী, কুড়িগ্রাম এর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অবৈধ করাত কল মালিকদের লাইসেন্স না করে টাকার বিনিময়ে ব্যবসা পরিচালনার অভিযোগের ভিত্তিতে উপপরিচালক জনাব আবু হেনা আশিকুর রহমান, দুদক, সজেকা, রংপুরের নেতৃত্বে আরও একটি অভিযান পরিচালনা করে। এসময় অফিসে উপস্থিত হয়ে রেকর্ডপত্র সংগ্রহপূর্বক পর্যালোচনা করে এনফোর্সমেন্ট টিম।

রেকর্ডপত্র পর্যালোচনায় দেখা যায়, কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলায় ৪৩ টি করাতকল রয়েছে তন্মধ্যে লাইসেন্স প্রাপ্ত ০৩টি এবং লাইসেন্স প্রক্রিয়াধীন ০৬ টি।

অবৈধ করাত কল মালিকগণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্ত জনাব মোঃ খাইরুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং স্থানীয় পুলিশের সমন্বয়ে ০১টি করাত কলে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। অভিযান পরিচালনাকালে করাত কল মালিক বৈধ লাইসেন্স প্রর্দশন করতে ব্যর্থ হওয়ায় ভ্রাম্যমান আদালত ঐ মিল মালিককে ১০,০০০/- টাকা জরিমানা করে এবং করাত কলটি বন্ধ করে দেয়।

এসময় ভ্রাম্যমান আদালত লাইসেন্সবিহীন করাতগুলোকে বৈধ করণের নিমিত্ত লাইসেন্সের জন্য উপজেলা বন কর্মকর্তাকে নির্দেশনা প্রদান করেন।
অভিযান পরিচালনাকালে উপজেলা বন কর্মকর্তাকে রেকর্ডপত্র সরবরাহের জন্য অনুরোধ করা হয়। পরবর্তীতে সংগৃহীত রেকর্ডপত্রের আলোকে কমিশন বরাবর প্রতিবেদন প্রেরণ করবে এনফোর্সমেন্ট টিম।

দুদকের অভিযান তিন উপজেলা সমাজসেবা অফিস, জাজিরা, শরীয়তপুর এর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এতিমদের জন্য বরাদ্দকৃত অর্থ উত্তোলনপূর্বক আত্মসাতের অভিযোগে জনাব আখতারুজ্জামান, সহকারী পরিচালক, দুদক, মাদারীপুর এর নেতৃত্বে আজ আরও একটি এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালিত হয়।

টিম অভিযান পরিচালনাকালে জেলা সমাজসেবা কার্যালয় থেকে সংশ্লিষ্ট রেকর্ড সংগ্রহ এবং সদর উপজেলার কাশীপুর এতিমখানা পরিদর্শন এবং অভিযোগের বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। এসময় এতিমখানার কমিটি যোগসাজোশ করে টাকা আত্মসাৎ, অনিয়ম এবং এতিমদের সংখ্যা নির্দিষ্টভাবে উল্লেখ না থাকার বিষয়ে খতিয়ে দেখা হয়।

অভিযোগ বিষয়ে পূর্বে থেকে উক্ত কতৃপক্ষ কি কি ব্যবস্থা নিয়েছে তা বিস্তারিত পর্যালোচনা করা হয়। দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম সরকারি বরাদ্দের বিষয় সংশ্লিষ্ট নীতিমালা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে মেনে চলার নির্দেশ প্রদান করা হয়। সরাসরি উপস্থিত হয়ে এনফোর্সমেন্ট অভিযান পরিচালনা করায় সাধারণ মানুষ দুদকের টিমকে সাধুবাদ জানায়। সংশ্লিষ্ট রেকর্ডপত্র বিস্তারিত পর্যালোচনা করে টিম পরবর্তীতে প্রতিবেদন কমিশন বরাবর প্রেরণ করবে।

অভিযান শেষে প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে পত্র প্রেরণ করছে দুদক এছাড়াও দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন- ১০৬) আগত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ব্যবস্থা গ্রহণপূর্ক কমিশনকে অবহিত করার জন্য ০৪টি দপ্তরে দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিট থেকে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ/ এ আর

এ বিভাগের আরও সংবাদ