ঢাকা রাত ৯:৪৬, শুক্রবার, ১২ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ক্রয় মূল্যে ব্যাংকের বিনিয়োগ হিসাব: বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রজ্ঞাপন

শেয়ারবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমা গণনায় বাজার দামের পরিবর্তে ক্রয় মূল্যকে (কস্ট প্রাইস) বিবেচনায় নেওয়ার ক্ষেত্রে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সম্মতি দিয়েছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক মো. আব্দুল মান্নান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনটি অফ-সাইট সুপারভিশন ডিপার্টমেন্ট থেকে জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ব্যাংক কোম্পানি অন্য কোম্পানির শেয়ার ধারনের বিষয়ে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের ঊর্ধ্বসীমা (এক্সপোজার লিমিট) নির্ধারণের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের ক্রয় মূল্যকেই ‘বাজারমূল্য’ হিসেবে বিবেচনা করতে হবে।

এর আগে গত মঙ্গলবার এ বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকে একটি চিঠি পাঠানো হয়। উপসচিব মো. জেহাদ উদ্দিন স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমা নির্ধারণে ক্রয় মূল্যকে (কস্ট প্রাইস) বাজার মূল্য হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে। বর্তমান ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুযায়ী, একটি ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান তার মোট মূলধনের ২৫ শতাংশের বেশি শেয়ার ধারণ করতে পারবে না। সহযোগী প্রতিষ্ঠানসহ এটা হবে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ।

শেয়ারের ধারণের মূল্য নির্ধারণ করা হয় বাজারমূল্যের ভিত্তিতে। এখানেই দেখা দেয় বিপত্তি। ব্যাংক তার বিনিয়োগসীমার মধ্যে থেকে শেয়ার কিনলেও তার দাম বেড়ে গেলে বাজারমূল্যের ভিত্তিকে বিনিয়োগ গণনার কারণে বিনিয়োগসীমা অতিক্রম করে যাচ্ছে। ফলে দাম বাড়লেই ব্যাংকগুলো তাদের হাতে থাকা শেয়ার বিক্রির চাপ বাড়ায়। এতে শেয়ারবাজারে বিক্রির চাপ বেড়ে দরপতন হয়।
এর কারণে শেয়ারবাজারে দীর্ঘদিন ধরে ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমা গণনায় বাজার দামের পরিবর্তে ক্রয় মূল্যকে বিবেচনায় নেওয়ার দাবি জানিয়ে আসা হচ্ছিল। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংক তাতে সাড়া দেয়নি।

বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ

এ বিভাগের আরও সংবাদ