ঢাকা রাত ৯:১৩, শুক্রবার, ১২ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সবার আগে তামিম ইকবাল

ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে নতুন মাইলফলক উন্মোচন করলেন বর্তমান অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সবার আগে ৮ হাজার রানের মাইলফলকে প্রবেশ করলেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৫৭তম রান নেওয়ার মাধ্যমে ক্যারিয়ারের ৮ হাজার রান পূরণ হয়েছে তামিমের।

বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটারের ওয়ানডেতে সাত হাজার রানও নেই। স্বাভাবিকভাবেই সবার আগে এই মাইলফলকে ঢুকলেন তামিম। এর আগে ৫ হাজার, ৬ হাজার ও ৭ হাজার রানেও বাংলাদেশের ব্যাটারদের মধ্যে সবার আগে নাম লিখিয়েছেন দেশসেরা এই ওপেনার।

তবে মাইলফলকে প্রবেশ করার পর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি তামিম। ইনিংসের ২৬তম ওভারে সিকান্দার রাজার বলে আউট হওয়ার আগে ৮৮ বল থেকে নয় চারের মারে ৬২ রান করেছেন টাইগার অধিনায়ক। যা তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৫৪তম হাফসেঞ্চুরি।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ১২০ রান। লিটন দাস ৬৭ বলে ৪৬ রান নিয়ে খেলছেন। তিন নম্বরে নেমেছেন প্রায় তিন বছর ওয়ানডে ম্যাচে সুযোগ পাওয়া এনামুল হক বিজয়।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজের তিন ম্যাচের মতো প্রথম ওয়ানডেতেও টস হেরেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক জিম্বাবুয়ের আমন্ত্রণে আগে ব্যাট করতে নেমেছে তামিমের দল। অনুজ সতীর্থ লিটনকে নিয়ে বাংলাদেশের ইনিংসের গোড়াপত্তন করেছেন তামিম।

রিচার্ড এনগারাভার করা প্রথম ওভারের প্রথম পাঁচ বলই ছিল ডট। শেষ বলে ফ্লিক করে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের খাতা খোলেন তামিম। অভিষিক্ত ভিক্টর নিয়ুচির করা পরের ওভার পুরোটা মেইডেন খেলেন লিটন। তবে নিয়ুচির পরের ওভারে বাউন্ডারি হাঁকিয়েই নিজের রানের খাতা খুলেছেন এ ডানহাতি ওপেনার।

নিয়ুচি-এনগারাভার আঁটসাঁট বোলিংয়ের মাঝে নেতিবাচক ছিল ওয়েসলে মাধভেরের ওভারথ্রো থেকে দেওয়া বাউন্ডারি। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে নন স্ট্রাইক প্রান্তে লক্ষ্যভ্রষ্ট থ্রো করে বাংলাদেশকে বোনাস চার রান দেন মাধভের। এছাড়া নিয়ুচি লেগসাইডের অনেক বাইরে বল করে ওয়াইডসহ বাউন্ডারি দিয়ে বসেন।

এমন দারুণ শুরুর পর পাওয়ার প্লে’তেই দলীয় পঞ্চাশ পূরণ করে ফেলেন তামিম ও লিটন। এরপরও দেখেশুনে খেলতে থাকেন দুজন। মাঠের একপাশে বাউন্ডারির দৈর্ঘ্য প্রায় ৯০ মিটার। ইনিংসের অষ্টম ওভারে সেদিক দিয়ে মেরে দৌড়েই চার রান নিয়ে নেন তামিম-লিটন।

দুজন মিলে দলীয় শতক পূরণ করতে খেলেন ২৩.১ ওভার। যা তাদের চতুর্থ শতরানের উদ্বোধনী জুটি। সবমিলিয়ে বাংলাদেশের ২২তম শতরানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন তারা। রাজার করা সেই ওভারেই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৮ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন তামিম। এর আগে ৬ হাজার ও ৭ হাজার রানও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পূরণ করেছিলেন তিনি।

সবমিলিয়ে বিশ্ব ক্রিকেটে ৩৩তম ব্যাটার হিসেবে ৮ হাজার রান করলেন তামিম। শুধু ওপেনারদের কথা বিবেচনা করলে, বিশ্বের নবম উদ্বোধনী ব্যাটার হলেন তিনি। তামিমের আগে ওয়ানডেতে ৮ হাজার রান করা ওপেনাররা হলেন শচিন টেন্ডুলকার, সনাৎ জয়াসুরিয়া, ক্রিস গেইল, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, সৌরভ গাঙ্গুলি, ডেসমন্ড হেইন্স, সাঈদ আনোয়ার ও হাশিম আমলা।
বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ

এ বিভাগের আরও সংবাদ