১১:০৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪

চোরাইভাবে ইউরিয়া সার বিক্রির সময় সারসহ ভ্যান চালক আটক

নওগাঁর বদলগাছীতে পৃথক পৃথক দুটি স্থান থেকে কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ও ডিলারদের সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চোরাই ভাবে কৃষকের মাঝে সার না দিয়ে ব্যবসায়ীর নিকট ইউরিয়া সার বিক্রি হচ্ছে। বহনকৃত ইউরিয়া সার সহ দুইজন ভ্যান চালক ও দুইজন ক্রেতাকে আটক করে সাধারণ জনতা। আটককৃতরা হলেন, বদলগাছীর মেসার্স অনুপ ট্রেডার্স এর স্বত্ত¡াধিকারী চিতা নামক সার ডিলার ও তার ক্রেতা বদলগাছীর মাছ বাজার এলাকার ক্ষুদ্র সার ব্যবসায়ী আজাদ এবং কোলা বাজারের সোলায়মান ট্রেডার্সের স্বত্ত¡াধিকারী জুয়েল হোসেন এবং তার ক্রেতা ভাতশাইল গ্রামের রিংকু।

২৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় বদলগাছী উপজেলার গোবরচাঁপা হাটের সাব-ডিলার মেসার্স অনুপ ট্রেডার্স ১০ বস্তা ইউরিয়া সার চোরাই ভাবে বাজারে বিক্রয় করার সময় মেসার্স অনুপ ট্রেডার্স এর স্বত্ত¡াধিকারী চিতা ও তার ক্রেতা বদলগাছী মাছ বাজার এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আজাদকে আটক করে স্থানীয় জনতা। অবৈধভাবে বহনকৃত সার আটকের ব্যাপারটি উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আতিয়া খাতুন ও কৃষি অফিসারকে জানানো হলেও কোনও ব্যবস্থা নেয়নি তাঁরা।

পরে বিকেল ৪টায় বদলগাছীর ব্র্যাক অফিসের সামনে থেকে রিংকু নামক এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে ৮ বস্তা সারসহ আটক করে স্থানীয় জনতা। রিংকু বদলগাছীর কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা (বিএস) শামসুল আলম খানের সহযোগিতায় কোলা বাজারের সাব ডিলার জুয়েলের কাছ থেকে বেশি দামে সার ক্রয় করে চোরাইভাবে বাজারে বিক্রয় করার জন্য নিয়ে যাচ্ছিল।
জানা যায়, বদলগাছীর মাছ বাজার এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আজাদ ১২৬০ টাকা বস্তা দরে ১০ বস্তা সার কিনে চোরাইভাবে বাজারে বিক্রির উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু আজ সকালেও এলাকার কৃষকেরা সার নিতে এসে ডিলারের কাছ থেকে খালি হাতে ফিরে যেতে হযছে অনেক কৃষককে।

এলাকাবাসীরা বলেন, তারা সার না পেয়ে ডিলারের দোকানের আশে পাশেই বসে ছিলেন সার পাওয়ার আশায়। এমন সময় কৃষকদেরকে সার না দিয়ে অবৈধভাবে অন্যত্র দশ বস্তা সার বিক্রির সময় ক্রেতা ও বিক্রেতাকে আটক করে জনতা।
গোবরচাপাঁহাটের শরিফুল বলেন, আমরা সাধারণ কৃষকরা সার পাচ্ছি না। আর আমাদের এখান থেকে অন্যত্র সার নিয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে কৃষি অফিসারকে জানানোর পরেও কোন ব্যবস্থা নেননি। এ ব্যাপারে অনূপ ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী চিতা বলেন, ভাই এটা নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করেন না। এ বিষয়ে নিউজ না করতে অনুরোধ করেন তিনি।

কোলা বাজারের সোলায়মান ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী জুয়েল বলেন, আমার কাছ থেকে কৃষি অফিসের উপ-সহকারী (বিএস) শামসুল আলম খান আমার কাছ থেকে ইউরিয়া সার নিয়েছে। সে কাকে দিবে আমি জানি না।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভ্যান চালক বলেন, আমার কাছে এই মালের কোনও মেমো নেই। এসব ইউরিয়া সার কোলা থেকে শামসুল বিএস আনছে। এই সব সার ভাতশাইল যাবে। উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা (বিএস) শামসুল আলম খান বলেন, আমাদের ইউনিয়নে সারের চাহিদা থাকায় কোলা থেকে দুই-এক বস্তা সার আনতে বলেছি।

কোলা ইউপি চেয়ারম্যান শাহিনুর ইসলাম স্বপন বলেন, আমার ইউনিয়নে অনেক সারের সংকট রয়েছে। এখান থেকে সার অন্য ইউনিয়নে উপ-সহকারী কর্মকর্তা কেন নিয়ে যাবেন। আমার এলাকার কৃষকরা সারের জন্য প্রতিদিনই আমার কাছে ঘুরছে।
এ বিষয়ে বদলগাছী সহকারী কমিশনার (ভূমি) আতিয়া খাতুন বলেন, আপনি বিষয়টি কৃষি অফিসারকে জানান।
উপজেলা কৃষি অফিসার হাসান আলী বলেন, এমাসে আমার এখানে ইউরিয়া সারের কোনও বরাদ্দ নেই। বাহির থেকে সার আসতেই পারে তাতে সমস্যা কি? এক পর্যায়ে এক প্রতিবেদককে তিনি প্রশ্ন করেন আপনি কি সাংবাদিক? আপনি গোবরচাঁপা গেছেন সেনপাড়াও গেছেন সারা উপজেলায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন নাকি? সারগুলো আপনার অফিসের বিএস শামসুল আলম খান কোলাহাট থেকে নিয়ে এসেছেন বলে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, আমার জানা নেই ।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব

চারদিকে কি হচ্ছে,সেইদিকে নজর না রেখে নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে

চোরাইভাবে ইউরিয়া সার বিক্রির সময় সারসহ ভ্যান চালক আটক

প্রকাশিত : ১২:০২:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ অক্টোবর ২০২২

নওগাঁর বদলগাছীতে পৃথক পৃথক দুটি স্থান থেকে কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ও ডিলারদের সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চোরাই ভাবে কৃষকের মাঝে সার না দিয়ে ব্যবসায়ীর নিকট ইউরিয়া সার বিক্রি হচ্ছে। বহনকৃত ইউরিয়া সার সহ দুইজন ভ্যান চালক ও দুইজন ক্রেতাকে আটক করে সাধারণ জনতা। আটককৃতরা হলেন, বদলগাছীর মেসার্স অনুপ ট্রেডার্স এর স্বত্ত¡াধিকারী চিতা নামক সার ডিলার ও তার ক্রেতা বদলগাছীর মাছ বাজার এলাকার ক্ষুদ্র সার ব্যবসায়ী আজাদ এবং কোলা বাজারের সোলায়মান ট্রেডার্সের স্বত্ত¡াধিকারী জুয়েল হোসেন এবং তার ক্রেতা ভাতশাইল গ্রামের রিংকু।

২৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় বদলগাছী উপজেলার গোবরচাঁপা হাটের সাব-ডিলার মেসার্স অনুপ ট্রেডার্স ১০ বস্তা ইউরিয়া সার চোরাই ভাবে বাজারে বিক্রয় করার সময় মেসার্স অনুপ ট্রেডার্স এর স্বত্ত¡াধিকারী চিতা ও তার ক্রেতা বদলগাছী মাছ বাজার এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আজাদকে আটক করে স্থানীয় জনতা। অবৈধভাবে বহনকৃত সার আটকের ব্যাপারটি উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আতিয়া খাতুন ও কৃষি অফিসারকে জানানো হলেও কোনও ব্যবস্থা নেয়নি তাঁরা।

পরে বিকেল ৪টায় বদলগাছীর ব্র্যাক অফিসের সামনে থেকে রিংকু নামক এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীকে ৮ বস্তা সারসহ আটক করে স্থানীয় জনতা। রিংকু বদলগাছীর কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা (বিএস) শামসুল আলম খানের সহযোগিতায় কোলা বাজারের সাব ডিলার জুয়েলের কাছ থেকে বেশি দামে সার ক্রয় করে চোরাইভাবে বাজারে বিক্রয় করার জন্য নিয়ে যাচ্ছিল।
জানা যায়, বদলগাছীর মাছ বাজার এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আজাদ ১২৬০ টাকা বস্তা দরে ১০ বস্তা সার কিনে চোরাইভাবে বাজারে বিক্রির উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু আজ সকালেও এলাকার কৃষকেরা সার নিতে এসে ডিলারের কাছ থেকে খালি হাতে ফিরে যেতে হযছে অনেক কৃষককে।

এলাকাবাসীরা বলেন, তারা সার না পেয়ে ডিলারের দোকানের আশে পাশেই বসে ছিলেন সার পাওয়ার আশায়। এমন সময় কৃষকদেরকে সার না দিয়ে অবৈধভাবে অন্যত্র দশ বস্তা সার বিক্রির সময় ক্রেতা ও বিক্রেতাকে আটক করে জনতা।
গোবরচাপাঁহাটের শরিফুল বলেন, আমরা সাধারণ কৃষকরা সার পাচ্ছি না। আর আমাদের এখান থেকে অন্যত্র সার নিয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে কৃষি অফিসারকে জানানোর পরেও কোন ব্যবস্থা নেননি। এ ব্যাপারে অনূপ ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী চিতা বলেন, ভাই এটা নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করেন না। এ বিষয়ে নিউজ না করতে অনুরোধ করেন তিনি।

কোলা বাজারের সোলায়মান ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী জুয়েল বলেন, আমার কাছ থেকে কৃষি অফিসের উপ-সহকারী (বিএস) শামসুল আলম খান আমার কাছ থেকে ইউরিয়া সার নিয়েছে। সে কাকে দিবে আমি জানি না।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভ্যান চালক বলেন, আমার কাছে এই মালের কোনও মেমো নেই। এসব ইউরিয়া সার কোলা থেকে শামসুল বিএস আনছে। এই সব সার ভাতশাইল যাবে। উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা (বিএস) শামসুল আলম খান বলেন, আমাদের ইউনিয়নে সারের চাহিদা থাকায় কোলা থেকে দুই-এক বস্তা সার আনতে বলেছি।

কোলা ইউপি চেয়ারম্যান শাহিনুর ইসলাম স্বপন বলেন, আমার ইউনিয়নে অনেক সারের সংকট রয়েছে। এখান থেকে সার অন্য ইউনিয়নে উপ-সহকারী কর্মকর্তা কেন নিয়ে যাবেন। আমার এলাকার কৃষকরা সারের জন্য প্রতিদিনই আমার কাছে ঘুরছে।
এ বিষয়ে বদলগাছী সহকারী কমিশনার (ভূমি) আতিয়া খাতুন বলেন, আপনি বিষয়টি কৃষি অফিসারকে জানান।
উপজেলা কৃষি অফিসার হাসান আলী বলেন, এমাসে আমার এখানে ইউরিয়া সারের কোনও বরাদ্দ নেই। বাহির থেকে সার আসতেই পারে তাতে সমস্যা কি? এক পর্যায়ে এক প্রতিবেদককে তিনি প্রশ্ন করেন আপনি কি সাংবাদিক? আপনি গোবরচাঁপা গেছেন সেনপাড়াও গেছেন সারা উপজেলায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন নাকি? সারগুলো আপনার অফিসের বিএস শামসুল আলম খান কোলাহাট থেকে নিয়ে এসেছেন বলে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, আমার জানা নেই ।

বিজনেস বাংলাদেশ/ হাবিব